চাঁদপুর, রোববার ৬ ডিসেম্বর ২০২০, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২০ রবিউস সানি ১৪৪২
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হারিয়ে যাচ্ছে মানবিকতা
গাজী সালাহউদ্দিন
০৬ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


গত কয়েক মাসে দেশের বিভিন্ন এলাকায় সংঘটিত এমন কিছু লোমহর্ষক ও হৃদয়বিদারক ঘটনায় মনে হচ্ছে মানুষের মধ্য থেকে ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে মানবিকতা। বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত ঘটনাগুলোর বর্ণনায় রীতিমতো গা শিউরে ওঠে। নীতি-নৈতিকতা তো দূরে থাক, কিছু মানুষের মধ্য থেকে মানবিকতা শব্দটিও উধাও হয়ে যাচ্ছে রীতিমতো। মানবিক না হয়ে বরং কিছু কিছু মানুষ অমানবিক ও পাশবিক হচ্ছে প্রতিনিয়ত। এই অমানবিক ঘটনার পেছনে কখনো কখনো কাজ করছে ধর্মীয় উন্মাদনা, গুজব, মিথ্যাচার, অপপ্রচার, কুসংস্কার ও কুরুচিপূর্ণ মনোভাব ইত্যাদি। বিষয়গুলো স্পষ্ট করার জন্য সংঘটিত কিছু কিছু ঘটনার উদ্ধৃতি না দিলেই নয়।



এক. লালমনিরহাট। ২৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার। এই জেলার পাটগ্রাম বুড়িমারীতে স্থলবন্দর কেন্দ্রীয় মসজিদ সংলগ্ন এলাকা। এখানে কুরআন অবমাননার অভিযোগে এক যুবককে প্রকাশ্য দিবালোকে পিটিয়ে হত্যা করে এবং পরে তার মৃতদেহ জ্বালিয়ে দেয়। প্রথমে তার পরিচয় জানা না গেলেও পরে তার পরিচয় পাওয়া যায়। জ্বালিয়ে দেয়া এই ব্যক্তির নাম ছিল জুয়েল। জুয়েল-এর শ্যালক মিলন হক তালুকদার গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকা-। তার বক্তব্য অনুযায়ী তার ভগি্নপতি কোনো অপরাধ করলে তাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তুলে দিতে পারতো। তা না করে তাকে নিষ্ঠুরভাবে পিটিয়ে হত্যা করে। পরে তার লাশ পুড়িয়ে দেয়া হয়। একটি সভ্য সমাজে কোনোভাবেই এটি সমর্থনযোগ্য নয়। যদি সে কোরআন অবমাননা করেও থাকে, তাহলে এ অজুহাতে যারা তাকে মেরে পোড়ানো লোকরা কি আসলেই মুসলমান? বরং বিভিন্ন সংস্থার তদন্তে বের হয়ে আসছে এই ঘটনায় ধর্মীয় উন্মাদনাকে কাজে লাগিয়ে এবং গুজব রটিয়ে জলজ্যান্ত মানুষটাকে হত্যার পর পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে।



দুই. মাদক নিরাময় কেন্দ্র। যার নাম 'মাইন্ড এইড সাইক্রিয়াট্রি এন্ড ডি-অ্যাডিকটেড' রাজধানীর আদাবরে এটি অবস্থিত। এ হাসপাতালে মাদক নিরাময় ও মানসিক রোগীর চিকিৎসার নামে দীর্ঘদিন চলতো রোগীদের ওপর অমানুষিক নির্যাতন। মাইন্ড এইডের একটি সাউন্ড প্রুফ কক্ষেই নিয়মিত শারীরিক নির্যাতন চলতো রোগীদের ওপর।



সর্বশেষ এএসপি আনিসুল করিমকে এমনিভাবে নির্যাতনের পর তার মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতালে ভিতরের চিত্র ও রহস্য উন্মোচিত হয়। এ ঘটনায় বিগত দিনের ভয়ঙ্কর চিত্র উঠে না আসলেও ওয়ার্ডবয় ও বাবুর্চিরা মিলে এএসপি আনিসুল করিমকে যে কায়দায় বেধড়ক পিটিয়ে হত্যা করেছে, তাতে তাদের অমানবিকতাই সেখানে স্পষ্টভাবে ফুটে উঠেছে।



তিন. রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দীর মর্গ। এখানে ঘটেছে এদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর লোমহর্ষক ও জঘন্যতম হৃদয় বিদারক ঘটনা। আত্মহত্যার ঘটনায় আনা কিশোরীদের লাশের সঙ্গে এখানে ঘটেছে বিকৃত যৌনাচারের চাঞ্চল্যকর ঘটনা। মুন্না ভক্ত (২০) নামের এক নরপিচাশ ঘটিয়েছে এমন সব ঘটনা। গত বছরের ২৯ মার্চ থেকে চলতি বছরের ২৩ আগস্ট পর্যন্ত রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গে আনা কিশোরীদের লাশের সঙ্গে ঘটেছে এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনাগুলো। মেডিকেলের মর্গে আনা কিশোরীদের লাশের শরীরে ছিলো না কোনো আঘাতের চিহ্ন ও ধর্ষণের আলামত। সুরতহাল প্রতিবেদনে এমনটাই উল্লেখ ছিলো। অথচ ময়নাতদন্তের পর সিআইডি ল্যাবরেটরীতে চিকিৎসককে পাঠানো প্রতিটি মরদেহে মেলে পুরুষের শুক্রাণুর উপস্থিতি। এমন ঘটনায় লাশের সাথে বিকৃত যৌনাচারের বিষয়টি সামনে আসে। এ ঘটনায় একদিকে যেমন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দায়িত্বহীনতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে, অন্যদিকে ঘটনার সাথে জড়িত মুন্না ভক্তের বিকৃত মানসিকতা ও অমানবিকতার বিষয়টিও প্রকাশ পেয়েছে। ২১ নভেম্বর শনিবার একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত এই ঘটনা পড়ে রীতিমত গা শিউরে উঠে।



চার. ২১ নভেম্বর শনিবার। একটি জাতীয় দৈনিকে 'বৃদ্ধকে দোররা মেরে শিশুর সঙ্গে বিয়ে' এমন শিরোনামে প্রকাশিত একটি সংবাদ পড়ে বিস্মিত না হয়ে পারলাম না। মানুষ যে কতটুক অমানবিক হতে পারে এটি তার আরেকটি উদাহরণ। জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ চরআমখাওয়া ইউনিয়নের বায়রা পাড়া গ্রামে ৮৫ বছর বয়সের বৃদ্ধ মহিরউদ্দিন-এর সঙ্গে ১২ বছরের এক শিশুর বিয়ে দেয় গ্রামের মাতব্বররা। গত ১৮ নভেম্বরের ঘটনা এটি। বৃদ্ধের নাতি শাহিন (১৮)-এর অপরাধের ভার দাদা মহিরউদ্দিনের উপর চাপাতে গিয়ে তাকে ১০ দোররা মেরে শিশুটিকে বিয়ে দেয় তার সাথে। অথচ বৃদ্ধ নিজেই শারীরিকভাবে অচল প্রায়। মেয়েটি ছিল স্থানীয় কওমি মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী। মহিরউদ্দিনের নাতি শাহিন শিশু মেয়েটির সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করে। আর নাতির অপরাধের দায় চাপাতে এই এলাকার মাতাব্বর দাদা মহিরউদ্দিনের সাথে শিশু মেয়েটিকে বিয়ে দেয়। ৮৫ বছর বয়সী একজন বৃদ্ধ লোকের সাথে এভাবে একটি শিশুকে বিয়ে দেওয়া অমানবিকতার বহিঃপ্রকাশ।



পাঁচ. মায়ের কোল থেকে মাত্র ২৯ দিনের শিশুকে কেড়ে নিয়ে আছড়ে হত্যা করলো এক ঘাতক বাবা। এমনি ঘটনাটি ঘটেছে নারায়ণগঞ্জ। শিশুটির মায়ের বক্তব্য অনুসারে মেয়ে শিশু জন্ম হওয়ার দিন থেকেই সে ক্ষুব্ধ ছিল। নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের এ ঘটনা যেন সেই জাহেলী যুগকে মনে করিয়ে দেয়। যে সময়ে কন্যা সন্তানকে জীবিত মাটিতে পুঁতে ফেলা হতো। ২১ নভেম্বর শনিবারের ঘটনা এটি। শিশু মীম কান্নার সময় বিরক্ত হয়ে মা খাদিজা বেগম থেকে টেনে হেঁচড়ে নিয়ে হত্যা করে ঘাতক বাবা কামাল হোসেন।



ছয়. বাঘেরহাটের ঘটনা এটি। গত ১৮ নভেম্বর শনিবার। অন্য কেউ নয়, স্বয়ং গর্ভধারিণী মা মাত্র ১৭ দিন বয়সী কন্যাশিশু সোহানাকে হত্যা করলো। সোহানাকে হত্যার বর্ণনা ও তার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেয় মা শান্তা ইসলাম।



এ ঘটনাগুলো বিশ্লেষণ করলে এটাই স্বাভাবিকভাবে প্রতীয়মান হয়, মানুষের মধ্য থেকে ক্রমান্বয়ে হারিয়ে যাচ্ছে মানবিক শব্দটি। আমাদের সমাজে হত্যা, খুন, জখম ও ধর্ষণ সবকিছুই তো কোনো না কোনো মানুষই করছে। বন-জঙ্গল থেকে আসা কোনো জীবজন্তু এসে এই ধরনের অপরাধ গুলো করছে না। তার মানে কিছু মানুষের মধ্যে মানবিকতার অভাব রয়েছে বলেই এমন লোমহর্ষক ঘটনা গুলো প্রতিনিয়ত ঘটছে। এ সকল ঘটনায় মাঝে মাঝে নিজের মধ্যেই প্রশ্নের উদয় হয়, সৃষ্টিকর্তা মানুষকে কেন আরো সভ্য ও মানবিক করে পরিপূর্ণ মানুষ হিসেবে পাঠালেন না।



মানুষের মধ্যে বোধশক্তি জাগ্রত হোক। পৃথিবীর সব মানুষ মানবিক হোক। সৃষ্টিকর্তার নিকট এমন প্রার্থনাই করছি।



লেখক : সাংবাদিক, চারুশিল্পী ও শিক্ষক।



 


হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৮৩-সূরা মুতাফ্ফিফীন


৩৬ আয়াত, ১ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


২১। যাহারা আল্লাহর সান্নিধ্যপ্রাপ্ত তাহারা উহা দেখে।


২২। পুণ্যবানগণ তো থাকিবে পরম স্বাচ্ছন্দ্যে,


২৩। তাহারা সুসজ্জিত আসনে বসিয়া অবলোকন করিবে।


২৪। তুমি তাহাদের মুখম-লে স্বাচ্ছন্দ্যের দীপ্তি দেখিতে পাইবে,


 


শিক্ষা হচ্ছে ধনাগার এবং সংস্কৃতি মৃত্যুহীন।


-হেনরি অ্যাডামস।


 


 


 


 


 


যে পরনিন্দা করে সে নিন্দুকের অন্যতম।


 


ফটো গ্যালারি
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৫,১২,৪৯৬ ৮,২৪,৩৫,৪৮২
সুস্থ ৪,৫৬,০৭০ ৫,৮৪,৪৩,৫১৫
মৃত্যু ৭,৫৩১ ১৭,৯৯,২৯৪
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৭৫৯০৯
পুরোন সংখ্যা