চাঁদপুর, বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১১ ফাল্গুন ১৪২৭, ১১ রজব ১৪৪২
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
চাঁদপুর সরকারি কলেজ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি
২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


মেঘনাপাড়ের বাতিঘর বলে খ্যাত চাঁদপুর সরকারি কলেজে যথাযোগ্য মর্যাদায় ২১ ফেব্রুয়ারি রোববার 'মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস' উদ্যাপন করা হয়েছে। রাত বারোটা এক মিনিটে কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর অসিত বরণ দাশের নেতৃত্বে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পাঁচজন শিক্ষক কর্মকর্তা চাঁদপুরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করার মধ্য দিয়ে গৌরবান্বিত দিবসটির কর্মসূচির শুভসূচনা করেন। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও অর্ধনমিত রাখা হয়। সকাল দশটায় প্রফেসর অসিত বরণ দাশ, বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানগণ শিক্ষকবৃন্দকে নিয়ে শিক্ষক পরিষদের উদ্যোগে কলেজ শহীদ মিনার এবং হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।



সকাল সাড়ে দশটায় কলেজ শিক্ষক মিলনায়তনে শুরু হয় আলোচনা সভা। বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর আজিম উদ্দিনের সভাপ্রধানে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর অসিত বরণ দাশ এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কিউএম হাসান শাহরিয়ার। শিক্ষক পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক মোঃ সাইদুজ্জামানের সঞ্চালনায় মহান একুশে ফেব্রুয়ারির গুরুত্ব তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন রসায়ন বিভাগের প্রভাষক মোঃ রেজাউল করিম, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন বাহার, প্রাণিবিদ্যা বিভাগীয় প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক শওকত ইকবাল ফারুকী, সমাজকর্ম বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর মোঃ আলাউদ্দিন এবং অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. মোঃ জসিম উদ্দিন। মাহবুব-উল-আলম চৌধুরী রচিত 'কাঁদতে আসিনি, ফাঁসির দাবি নিয়ে এসেছি' মহান একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম কবিতাটি আবৃত্তি করেন হিসাববিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মহসিন শরীফ।



প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর অসিত বরণ দাশ গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন বায়ান্নার ভাষা আন্দোলনে আত্মদানকারী ভাষা শহীদদের, ভাষাবীর এমএ ওয়াদুদ, ভাষাসৈনিক আব্দুল মতিন, গাজীউল হক, আহমদ রফিক প্রমুখকে। গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ ও আহত সকল মুক্তিযোদ্ধাকে। তিনি বলেন, বায়ান্নর ২১ ফেব্রুয়ারি না হলে ৭১ সৃষ্টি হতো না। '৫২-এর ২১ ফেব্রুয়ারি ছিলো আমাদের স্বাধীনতা-সংগ্রামের বীজ বপন। ২১ ফেব্রুয়ারি মায়ের ভাষার জন্যে বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়ে বাঙালি জাতি যে বীজ বুনেছিলো, ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয়ের মাধ্যমে তার ফল ঘরে তুলে আনে।



তিনি আরও বলেন, আমাদের সকলকে সতর্ক থাকতে হবে। আমাদের মায়ের ভাষার উপর, মহান মুক্তিযুদ্ধের উপর বারবার আঘাত এসেছে, এখনও আসছে। পরাজিত শক্তির প্রেতাত্মারা বারবার আক্রমণ করেছে আমাদের ভাষা, স্বাধীনতা-মুক্তিযুদ্ধের চেতনার উপর।



আলোচনা সভা শেষে কবিতা আবৃত্তি এবং রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। বাদ জোহর কলেজ কেন্দ্রীয় মসজিদে ভাষা শহীদদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত ও তবররুক বিতরণ করা হয়।



 



 


হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৯৬-সূরা 'আলাক


১৯ আয়াত, ১ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


১৮। আমিও আহ্বান করিব জাহান্নামের প্রহরীদিগকে।


১৯। সাবধান! তুমি উহার অনুসরণ করিও না এবং সিজদা কর ও আমার নিকটবর্তী হও।


 


 


 


আমার জিহ্বা যদিও আমার আত্মা নয়, তবুও তার ইচ্ছা আছে।


-শেঙ্পিয়র।


 


 


 


 


নফস্কে দম করাই সর্বপ্রথম জিহাদ।


 


 


ফটো গ্যালারি
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৬,৪৪,৪৩৯ ১৩,২১,৯৪,৪৪৭
সুস্থ ৫,৫৫,৪১৪ ১০,৬৪,২৬,৮২২
মৃত্যু ৯,৩১৮ ২৮,৬৯,৩৬৯
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৩৭৩৩৫৩
পুরোন সংখ্যা