চাঁদপুর, রবিবার ২১ জুন ২০১৫ | ৭ আষাঢ় ১৪২২ | ৩ রমজান ১৪৩৬
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ছেলেটির করোনা ভাইরাস নেগেটিভ পাওয়া গেছে। অর্থাৎ সে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী নয়। তথ্য সূত্র: আরএমও ডাঃ সুজাউদ্দৌলা রুবেল। || বৈদ্যনাথ সাহা ওরফে সনু সাহা করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যায় নি : সিভিল সার্জন
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২০-সূরা : তা-হা

১৩৫ আয়াত, ৮ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহ্র নামে শুরু করছ।ি



১। তা-হা, ২। তুমি ক্লশে পাইবে এইজন্য আমি তোমার প্রতি কুরআন অবর্তীণ করি নাই, ৩। বরং যে ভয় করে কবেল তাহার উপদর্শোথ।ে

দয়া করে এই অংশটুকু হফোজত করুন

 


বড়দের সম্মান কর, ছোটরা তোমাকে সম্মান করবে।

-হযরত আলী (রাঃ)।



 


নারী-পুরুষের যমজ অর্ধাঙ্গিণী।

  - হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)

 


ফটো গ্যালারি
ব্রয়লার মুরগি পালনে স্বাবলম্বী মসজিদের ইমাম জসিম উদ্দিন
নিজস্ব সংবাদদাতা
২১ জুন, ২০১৫ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের বিষ্ণুদী ঈমানিয়া জামে মসজিদের ইমাম মাওঃ মোঃ জসিম উদ্দিন ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে ব্রয়লার মুরগি পালন করে তার ভাগ্যের পরিবর্তনে সক্ষম হয়েছে। এক সময় কিছুই ছিলো না তার। আজ ব্রয়লার ও কক মুরগি পালন করে নিজের অবস্থান করতে সক্ষম হয়েছেন। পরিবার-পরিজন নিয়ে ভালোভাবেই দিন কাটাচ্ছেন। প্রায় ১লাখ টাকা খরচ করে ২ সেট মুরগি পালনের ঘর তৈরি করেন। নিজের কিছু জমানো টাকা ও আত্মীয়-স্বজন থেকে হাওলাত করা টাকা নিয়ে এ ব্যবসার কার্যক্রম শুরু করেন। বর্তমানে তার নিজের পরিচালনায় ৯ বছর যাবৎ চলে আসছে এ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। তার সাথে তার পরিবারের লোকজনকে দিনভর ঐ ফার্মে কাজ করতে দেখা যায়। তার ২ ফার্মের একটিতে ব্রয়লার ও অপরটিতে কক পালন করছেন। ইতোমধ্যে মাওঃ মোঃ জসিম উদ্দিনের ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে পাঁচশত। আর কয়েকদিন পর কক মুরগি বিক্রি করা হবে।



এ ব্যপারে কথা হয় মাওঃ মোঃ জসিম উদ্দিনের সাথে। তিনি জানান, ২০০৫ সালে চাঁদপুর জেলা ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে চট্টগ্রাম ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমীতে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করি। এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আওতায় ইমামগণকে সহীহ শুদ্ধরূপে কোরআন তেলাওয়াত, মাসয়ালা-মাসায়েল শিক্ষা দেওয়ার পাশাপাশি নিরক্ষরতা দূরীকরণ, প্রজনন স্বাস্থ্যসেবা তথা নিরাপদ মাতৃত্ব, মাতৃকল্যাণ ও শিশু স্বাস্থ্য পরিচর্যা, বাল্যবিবাহ, যৌতুক এবং তালাকের অপব্যবহার রোধ, নারীর অধিকার সংরক্ষণ, নিরাপদ ও বিশুদ্ধ পানির ব্যবহার, বিজ্ঞানসম্মত পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা, মাদকাসক্তি নিরোধ ও এইডস প্রতিরোধ, কৃষি ও বনায়ন তথা উন্নত পদ্ধতিতে চাষাবাদ, বনায়ন, পরিবেশ সংরক্ষণ, পশু-পাখি পালন, মৎস্য চাষ ও চিকিৎসা সেবা ছিলো। আর প্রশিক্ষণলব্দ জ্ঞান কাজে লাগিয়ে আমার এতুটুকু আসা। মূলত আমার অত টাকা ছিলো না। আমার নিকটতমদের কাছ থেকে টাকা হাওলাত করে একটি মুরগি খামার করি। পরে খামারের আয়ে আরো একটি ঘর তৈরি করি। ২টি সেটে এক হাজার ব্রয়লার ও কক মুরগি পালন করে আসছি।



জসিম উদ্দিনকে এ প্রতিনিধি মুরগির বাচ্চা ক্রয় ও বিক্রি করতে কোনো ধরনের অসুবিধা হয় কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ১ দিনের মুরগির বাচ্চা আমরা ডিলারের মাধ্যমে কিনে থাকি। আবার ডিলারের মাধ্যমেই বিক্রি করি। এতে তেমন কোনো বেগ পেতে হয় না। তাদের এই বিরাট সফলতা দেখে এলাকাবাসী উৎসাহিত হয়েছেন। জসিম উদ্দিনের বাবা মোঃ নূরুল হক গাজী একটু আক্ষেপ করে বলেন আমার ছেলে ফার্ম দিয়েছে, তাকে শুধু আপনারা সাংবাদিকরাই উৎসাহিত করলেন। কিন্তু অনেকে হিংসা-বিদ্ধেষ করে। আমার ছেলের এ কার্যক্রম সে নিজেই উপকৃত হন না, এতে এলাকাবাসী উপকৃত হয়। এলাকার মানুষ আমাদের বাড়ির থেকে সুলভ মূল্যে মুরগি ক্রয় করে নিয়ে তাদের চাহিদা মেটায়।



মসজিদে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি এ কাজ করতে কোনো ধরনের অসুবিধা হয় কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার বাড়ি তরপুরচণ্ডী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে গাজী বাড়ি। মসজিদ থেকে বাড়ির দূরত্ব প্রায় ২ কিলোমিটার। আমি ইমামতির দায়িত্বের পাশাপাশি মুরগি পালনে সময় ব্যয় করে আনন্দ উপভোগ করি। আমার পরিবারে আছে বাবা-মা, স্ত্রী, ২ছেলে ও ১ মেয়ে। বড় মেয়ে সুমাইয়া আক্তার (১০) ফাতেমাতুজ্জোহরা (রাঃ) মহিলা মাদ্রাসায় পড়ে। বড় ছেলে আবু ছালেহ মোঃ ত্বলহা (৮) চাঁদপুর দীনিয়া ক্যাডেট মাদ্রাসায় পড়াশুনা করে। ছোট ছেলে আবু নছর মোঃ হুসাইন (৩)। পরিশেষে জসিম উদ্দিন এ প্রতিনিধিকে আরো বলেন, আমি এবং আমার পরিবারের লোকজন কাজেই বিশ্বাসী। আমার বিশ্বাস আমি আমার খামারের মাধ্যমে বিপ্লব ঘটাতে পারবো ইনশাআল্লাহ।



 


খবরটি সর্বমোট 30 বার পড়া হয়েছে
আজকের পাঠকসংখ্যা
১০৭৪৩৩
পুরোন সংখ্যা