চাঁদপুর। বৃহস্পতিবার ২৩ মার্চ ২০১৭। ৯ চৈত্র ১৪২৩। ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৩৮
ckdf

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • ***
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৭-সূরা নাম্ল 


৯৩ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৫৮। তাহাদের উপর ভয়ঙ্কর বৃষ্টি বর্ষণ করিয়াছিলাম, ভীতি প্রশিতদের জন্যে এই বর্ষণ ছিল কত নিকৃষ্ট।


৫৯। বল, ‘সকল প্রশংসা আল্লাহরই এবং শান্তি তাঁহার মনোনীত বান্দাদের প্রতি! শ্রেষ্ঠ কি আল্লাহ, না উহারা যাহাদিগকে শরীক করে তাহারা?


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন

তুমি যদি ভালো থাকতে ইচ্ছা কর তবে চেষ্টা করলেই তা পারবে।   -জেমস এ, গ্যারফিল্ড।


অভ্যাগত অতিথির যথাসাধ্য সম্মান করা প্রত্যেক মুসলমানের অবশ্য কর্তব্য।


ফটো গ্যালারি
ভূমিহীন কৃষক ছিদ্দিক ভাসমান পদ্ধতিতে সবজি চাষ করে স্বাবলম্বী
পাপ্পু মাহমুদ
২৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+

হাজীগঞ্জে ভাসমান পদ্ধতিতে সবজি চাষ করে ভূমিহীন কৃষক ছিদ্দিকুর রহমান মিজি এখন স্বাবলম্বী। গত ১৬ বছর ধরে তিনি সবজি চাষ করছেন। গত কয়েক বছর হলো সবজি চাষের ভাসমান সবজি চাষ করে তিনি জীবিকা নির্বাহ করেন।

ছিদ্দিকুর রহমানের স্ত্রীসহ পরিবারের ৬জন সদস্য রয়েছে। ছেলে-মেয়েদের পড়ালেখাও চালিয়ে যাচ্ছেন। বর্ষায় কচুরিপানা দিয়ে বেড তৈরি করে কয়েকধাপে ছিদ্দিকুর রহমান সবজি চাষ করেন। প্রথম ধাপে ভাসমান বেডে তিনি লালশাক ও কলমীশাক চাষ করেন। একই বেডে লাউ, কুমড়া, শসা ও খিরা চাষ করেন।

তিনি প্রথমে বর্ষার পানিতে আগাছা হিসেবে জন্মানো কচুরিপানা দিয়ে স্তুপ তৈরি করে ভাসমান পদ্ধতিতে সবজি চাষ করতেন। কিন্তু পরবর্তীতে কৃষক ছিদ্দিক কৃষি বিভাগের প্রশিক্ষণ এবং সহযোগিতা নিয়ে কচুরিপানা দিয়ে ভাসমান বেড তৈরি করে সবজি চাষ করছেন। ভাসমান বেড তৈরি করে সবজি চাষে লাউ কুমড়ার পাশাপাশি সাথি ফসল করা হয়। বেডের সবজি চাষ শেষে জৈব সার হিসেবে ব্যবহার করা যায়

ভূমিহীন কৃষক ছিদ্দিকুর রহমান মিজি ১৬ বছর আগে মাত্র ২১ শতাংশ জমিতে ভাসমান পদ্ধতিতে সবজি চাষ শুরু করেন। বর্তমানে ছিদ্দিকুর রহমান ১৮০ শতাংশ জমি বর্গা নিয়ে ভাসমান বেড তৈরি করে সবজি চাষ করছেন।

কৃষক ছিদ্দিকুর রহমান মিজি বলেন, আমি ভাসমান সবজি চাষ করেই আমার সংসার চালাই। ছেলেমেয়েদের পড়ালেখা করাচ্ছি। এ বছর প্রাকৃতিক দুযর্োগের কারণে ফলন একটু কম। তবে বাজারে সবজির দাম ভাল রয়েছে। আশা করি এ বছরেও ভাল লাভ করতে পারবো। উপজেলা কৃষি অফিস থেকে সব সময় সব ধরণের সহযোগিতা পেয়ে আসছি।

আজকের পাঠকসংখ্যা
৯২৩৭
পুরোন সংখ্যা