চাঁদপুর । বৃহস্পতিবার ০২ অাগস্ট ২০১৮ । ১৮ শ্রাবণ ১৪২৫ । ১৯ জিলকদ ১৪৩৯
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুরে স্কুল শিক্ষিকা জয়ন্তীর চাঞ্চল্যকর হত্যার রহস্য উদঘাটন * হত্যাকারী ডিস ব্যবসায়ী লাইনম্যান জামাল ও আনিসুর রহমান আটক
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪০-সূরা আল মু’মিন

৮৫ আয়াত, ৯ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

১৫। তিনিই সুউচ্চ মর্যাদার অধিকারী, আরশের মালিক, তাঁর বান্দাদের মধ্যে যার প্রতি ইচ্ছা তত্ত্বপূর্ণ বিষয়াদি নাযিল করেন, যাতে সে সাক্ষাতের দিন সম্পর্কে সকলকে সতর্ক করে।

১৬। যেদিন তারা বের হয়ে পড়বে, আল্লাহর কাছে তাদের কিছুই গোপন থাকবে না। আজ রাজস্ব কার? এক প্রবল পরাক্রান্ত আল্লাহর।

১৭। আজ প্রত্যেকেই তার কৃতকর্মের প্রতিদান পাবে। আজ যুলুম নেই। নিশ্চয় আল্লাহ দ্রুত হিসাব গ্রহণকারী।  

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন

 


যে দীর্ঘ সময় ঘুমাতে পারে, সেই সবচেয়ে সুখী।

 -এ.ই. হাউসম্যান।     


পরিচ্ছন্নতার উপর ইসলামের ভিত্তি স্থাপিত হইয়াছে।  

                    


ফটো গ্যালারি
আড়াই শতাংশ সুদে ঋণ পাবেন পাট চাষি ও ব্যবসায়ীরা
কৃষিকণ্ঠ প্রতিবেদক
০২ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+

পাট শিল্পের উন্নয়নের জন্যে তহবিল গঠনের উদ্দেশ্যে নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে। ১০ হাজার কোটি টাকার এ তহবিল থেকে সুদ ভর্তুকির পর আড়াই শতাংশ হারে ঋণ পাবেন পাট চাষি থেকে শুরু করে ব্যবসায়ীরা। গঠিত নীতিমালা বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় পাট শিল্পের উন্নয়নের জন্যে ২ শতাংশ সুদে ১০ হাজার কোটি টাকার তহবিল গঠনের জন্যে বিজেএমসি চেয়ারম্যান ড. মোঃ মাহমুদুল হাসানকে আহ্বায়ক করে ছয় সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি চারটি সভার মাধ্যমে এ নীতিমালা প্রণয়ন করে।

নীতিমালায় বলা হয়েছে, যেহেতু এটি একটি বিশেষ তহবিল এবং প্রায় সঙ্কটাপন্ন পাট খাতকে এগিয়ে নেয়ার জন্যে এটি প্রণয়ন করা হচ্ছে, সেহেতু বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালন ব্যয় ২ শতাংশ এবং তফসিলি ব্যাংকের পরিচালন ব্যয় ৩ শতাংশসহ মোট সুদ ৫ শতাংশ সুদ হবে। তবে এর অর্ধেক সুদ ভর্তুকি হিসেবে সরকারি তহবিল থেকে গ্রাহক পর্যায়ে পরিশোধ করা হবে। অর্থাৎ বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালনা ব্যয়ের ১ শতাংশ এবং তফসিলি ব্যাংকের পরিচালনা ব্যয়ের ১ দশমিক ৫ শতাংশ সরকারি তহবিল থেকে সুদ ভর্তুকি হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংক ও তফসিলি ব্যাংকগুলোকে প্রদান করা হবে। ফলে গ্রাহক পর্যায়ে আড়াই শতাংশ ঋণগ্রহীতা পরিশোধ করবে।

নীতিমালায় আরও বলা হয়, ঋণগ্রহীতা নির্ধারিত সময়ে ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ হলে অনাদায়ী পরিমাণের জন্যে অতিরিক্ত ৫ শতাংশ হারে সুদ আরোপ হবে। অতিরিক্ত অর্জিত এ সুদ বাংলাদেশ ব্যাংক ও তফসিলি ব্যাংকের মধ্যে যথাক্রমে ২ এবং ৩ শতাংশ হারে বণ্টন হবে।

আজকের পাঠকসংখ্যা
২৮০৫৪৪
পুরোন সংখ্যা