চাঁদপুর। বুধবার ৩১ অক্টোবর ২০১৮। ১৬ কার্তিক ১৪২৫। ২০ সফর ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৩-সূরা যূখরুফ

৮৯ আয়াত, ৭ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৩৩। (সত্য অস্বীকারে) মানুষ যদি এক উম্মতে পরিণত হয়ে পড়বে, এই আশঙ্কা না থাকলে দয়াময় আল্লাহকে যারা অস্বীকার করে, তাদেরকে আমি দিতাম তাদের গৃহের জন্যে রৌপ্য নির্মিত ছাদ ও সিঁড়ি, যাতে তারা আরোহণ করে।

৩৪। এবং তাদের গৃহের জন্যে দিতাম দরজা, (বিশ্রামের জন্যে) পালঙ্ক, যাতে তারা হেলান দিয়ে বসতো।   

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন



 


যে ব্যক্তি প্রথম সালাম দেয়, সে অহঙ্কারমুক্ত।                   

 -আল হাদিস।


দাতার হাত ভিক্ষুকের হাত অপেক্ষা উত্তম। যে ব্যক্তি স্বাবলম্বী ও তৃপ্ত হতে চায়, আল্লাহ তাকে স্বাবলম্বন ও তৃপ্তি দান করেন।



 


ফটো গ্যালারি
ছাদে বাগান করার বিজ্ঞান সম্মত পদ্ধতি ও পরিচর্যা করার উপায়
কৃষিকণ্ঠ প্রতিবেদক
৩১ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমানে বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৫৪ শতাংশ নগরে বসবাস করে। ১৯৫০ সালে এর হার ছিলো মাত্র ৩০ শতাংশ। ভবিষ্যতে নগরমুখী মানুষের স্রোত আরো বেগবান হবে। ২০৫০ সালে পৃথিবীর প্রায় ৬৬ শতাংশ লোক নগরে বসবাস করবে। ততদিনে আরও অনেক শহর ও মেগা শহর গড়ে উঠবে। তাই বর্তমান নগরগুলোর উন্নয়ন ঘটাতে হবে। অতিরিক্ত মানুষের বসবাসের উপযোগী রাখতে নগর উন্নয়নে যুগোপযোগী উদ্যোগ নিতে হবে। পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি নগরায়ণ হচ্ছে উত্তর আমেরিকায়। সেখানে বর্তমানে ৮২ শতাংশ মানুষ নগরে বসবাস করে। এর পরের অবস্থানে রয়েছে লাতিন আমেরিকা ও ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জ। সেখানে ৮০ শতাংশ লোক নগরে বাস করে। সেই তুলনায় আফ্রিকা ও এশিয়ায় নগরে বসবাসকারী মানুষের সংখ্যা কম, যথাক্রম ৪০ ও ৪৮ শতাংশ। বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় পাঁচ কোটি লোক নগরে বসবাস করে। ২০২০ সালে শতকরা ৫০ ভাগ অর্থাৎ সাড়ে আট কোটি লোক নগরে বাস করবে এবং ২০৫০ সালে ১০০% অথাৎ ২৭ কোটি লোক নগরে বসবাস করবে। তখন গ্রাম ও নগর মিলেমিশে একাকার হয়ে যাবে। এমন প্রেক্ষাপটে নগরকে পরিকল্পিত আকারে গড়ে তুলতে হবে। আর তাই ছাদে বাগান অত্যাবশ্যক হয়ে পড়েছে।



ছাদে বাগান করার বিজ্ঞান সম্মত পদ্ধতি ও পরিচর্যা করার প্রয়োজনীয় উপকরণ :



* একটি খালি ছাদ;



* হাফ ড্রাম, সিমেন্ট বা মাটির টব, স্টিল বা প্লাস্টিক ট্রে;



* ছাদের সুবিধা মত স্থানে স্থায়ী বেড (ছাদ ও বেডের মাঝে ফাঁকা রাখতে হবে);



* সিকেচার, কোদাল, কাচি, ঝরণা, বালতি, করাত, খুরপি, স্প্রে মেশিন ইত্যাদি;



* দো-অাঁশ মাটি, পচা শুকনা গোবর ও কম্পোস্ট, বালু ও ইটের খোয়া ইত্যাদি;



* গাছের চারা/কলম বা বীজ ।



ছাদে চাষ উপযোগী গাছ :



* আম : বারি আম-৩ (আম্রপালি), বাউ আম-২ (সিন্দুরী)



* পেঁপে, কলা



* পেয়ারা : বারি পেয়ারা-২, ইপসা পেয়ারা-১



* কুল : বাউ কুল-১, ইপসা কুল-১ (আপেল কুল), থাই কুল-২



* লেবু : বারি লেবু -২ ও ৩, বাউ কাগজি লেবু-১



* আমড়া : বারি আমড়া-১, বাউ আমড়া-১



* করমচা : থাই করমচা



* ডালিম (দেশী উন্নত)



* কমলা ও মাল্টা : বারি কমলা-১, বারি মাল্টা ১



* জামরুল : বাউ জামরুল-১ (নাসপাতি জামরুল), বাউ জামরুল-২ (আপেল জামরুল) ইত্যাদি।



* সবজি : লাল শাক, পালং শাক, মুলা শাক, ডাটা শাক, কলমী শাক, পুঁইশাক, লেটুস, বেগুন, টমেটো, মরিচ ইত্যাদি।



পদ্ধতি :



* হাফ ড্রামের তলদেশে অতিরিক্ত পানি নিষ্কাশনের জন্য ১ ইঞ্চি ব্যাসের ৫ / ৬ টি ছিদ্র রাখতে হবে।



* ছিদ্র গুলোর উপর মাটির টবের ভাঙ্গা টুকরো বসিয়ে দিতে হবে।



* ড্রামের তলদেশে ১ ইঞ্চি পরিমাণ ইটের খোয়া বিছিয়ে তার উপর বালি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে।



* সমপরিমাণ দোঅাঁশ মাটি ও পচা গোবরের মিশ্রণ দিয়ে ড্রামটির দুই তৃতীয়াংশ ভরার পর হাফ ড্রাম অনুযায়ী ড্রাম প্রতি মিশ্র সার আনুমানিক ৫০-১০০ গ্রাম প্রয়োগ করে মাটির সাথে ভাল ভাবে মিশিয়ে দিতে হবে এবং সম্পূর্ণ ড্রামটি মাটি দিয়ে ভর্তি করে নিতে হবে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৫২৮১৫৯
পুরোন সংখ্যা