চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ১১ এপ্রিল ২০১৯, ২৮ চৈত্র ১৪২৫, ০৪ শাবান ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৮-সূরা ফাত্হ্

২৯ আয়াত, ৪ রুকু, মাদানী

২১। এবং আরও রহিয়াছে যাহা এখন ও তোমাদের অধিকারে আসে নাই, উহা তো আল্লাহ আয়ত্তে রাখিয়াছেন। আল্লাহ সর্ববিষয়ে সর্বশক্তিমান।


assets/data_files/web

প্রতিভাবান ব্যক্তিরাই ধৈর্য ধারণ করতে পারে। -ই. সি. স্টেডম্যান।


যে শিক্ষিত ব্যক্তিকে সম্মান করে, সে আমাকে সম্মান করে।


আলু উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে কম
কৃষিকণ্ঠ প্রতিবেদক
১১ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুরে এ বছর আলুর চাষাবাদ হয়েছে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে কম। শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের কৃষক আলমগীর জানান, আলু রোপণের সময় আবহাওয়া ভালো না থাকায় তিনি এ বছর প্রায় ১ হেক্টর জমিতে আলু চাষ করেছেন। প্রথমদিকে আলুর চারা সুন্দর ও তরতাজা ছিলো। কিন্তু এখন গাছে আলু আসার আগে এক ধরণের ছত্রাক আক্রমণ করায় গাছ মরে যাচ্ছে। এ কারণে আলুর আশানুরূপ ফলন নিয়ে তৈরি হয়েছে শঙ্কা। তিনি বলেন, এখন আমরা আলু কোল্ডস্টোরেজে রেখে বেশি দাম পাই না।



বিষ্ণুপুর গ্রামের কৃষক ওবায়দুল হক ও বুলবুল ইসলাম জানান, তিনি দেড় বিঘা ১৫ শতক জমিতে আলু চাষ করেছিলেন। কিন্তু আলু নিয়ে বিপাকে পড়ে যান বৃষ্টির কারণে। অপরদিকে কোল্ডস্টোরেজে রেখে তাদের পরতা পড়ে না। এসব কারণে এ বছর আলু উৎপাদন কম হয়েছে বলে কৃষকরা মনে করেন।



চাঁদপুরের বিভিন্ন উপজেলায় আগাম আলু ক্ষেত পরিচর্যাসহ উত্তোলন করা হলেও বিক্রি হচ্ছে কম দামে। কৃষকদের আশা ছিলো এ বছর আলু চাষে তারা ভালো মুনাফা অর্জন করতে পারবেন, কিন্তু সে সুুুযোগ হয়ে উঠেনি।



সরজমিনে চাঁদপুর সদর উপজেলার ৩নং কল্যাণপুর, ৭নং তরপুরচ-ী, ৪নং শাহমাহমুদপুর, ৬নং মৈশাদী ও ৯নং বালিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, আলু আবাদ গত ২ বছরের তুলনায় কম হয়েছে। শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের শাহআলম বলেন, তিনি এ বছর ৩০ শতক জমিতে গ্রেনুলা জাতের আলু লাগিয়েছেন। আর কিছুদিন পরে আলু উঠবে। বিষ্ণুদীর মুলাম খান ১৪০ শতক জমিতে আলু চাষ করেছেন। এছাড়া জেলার কচুয়া উপজেলায় আলু চাষ বেশি হয়েছে। আলু চাষে পিছিয়ে পড়েছে শাহরাস্তি উপজেলা। অন্যান্য উপজেলায় গত বছর থেকে এ বছর আলু চাষ কম হয়েছে। প্রতি বস্তা (৮৫ কেজি) আলু ৮৫০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে।



স্থানীয় হাট-বাজারগুলোতে প্রচুর আলু। প্রতি কেজি আলু (নতুন) ১২ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। চাঁদপুর কৃৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, আলুর আবাদ কম হয়েছে। ফলন তুলনামূলক বেশি হয়েছে। এ বছর আলুতে কৃৃৃৃষকের লোকসান গুণতে হয়েছে। কারণ পুরাণ আলু অনেক পরে নামানো হয়েছে। যার কারণে নতুন আলুর প্রভাবটা পড়েছে।



এ বছর চাঁদপুরে আলু চাষ হয়েছে ৬ হাজার ৮ মেট্রিক টন। গত বছর চাঁদপুরে ১২ হাজার ৬শ' ১৫ হেক্টর জমিতে আলু চাষ হয়েছে। উৎপাদন হয়েছে ২ লাখ ৪৫ হাজার মেট্রিক টন। আর এ বছর আলু উৎপাদন হয়েছে ১ লাখ ৪০ মেট্রিক টন।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৯৭৫৬২
পুরোন সংখ্যা