চাঁদপুর। বুধবার ২৪ মে ২০১৭। ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪। ২৭ শাবান ১৪৩৮

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৮-সূরা কাসাস 


৮৮ আয়াত, ৯ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৩৩। মূসা বলিল, ‘হে আমার প্রতিপালক! আমি তো উহাদের একজনকে হত্যা করিয়াছি। ফলে আমি আশংকা করিতেছি উহারা আমাকে হত্যা করিবে। 


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 


নম্রতা-ভদ্রতা গুন দু’টি মানুষের জীবনের পুরাতন ঐশ্বর্য।          -জন স্টুয়ার্ড মিল।


 


 

ধন থাকিলেই ধনী হয় না। ওই ব্যাক্তিই প্রকৃত ধনী যাহার হৃদয় প্রশস্ত।


বিতর্ক সংগঠক সাক্ষাৎকার-৭
বাংলাদেশে প্রথম বৃত্তি প্রবর্তকের বাড়ি মতলব উত্তরে বলে আমরা গর্বিত
মাহবুব আলম লাভলু
বিতর্কায়ন প্রতিবেদন
২৪ মে, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


অনেক সমস্যা ও প্রতিকূলতাকে জয় করে মতলব উত্তর উপজেলায় বিতর্ক আন্দোলন সৃষ্টির অগ্রনায়ক হচ্ছেন মাহবুব আলম লাভলু। তিনি মতলব উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি, সিকেডিএফের সাধারণ সম্পাদক এবং দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠের মতলব ব্যুরো ইনচার্জ। বিতর্কায়নের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেছেন আশা জাগানিয়া কিছু কথা। নিম্নে তা পত্রস্থ করা হলো :-



বিতর্কায়ন : বাংলাদেশে বিতর্কে প্রথম বৃত্তি প্রবর্তক আপনাদের মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মনজুর আহমদ। এ ব্যাপারে আপনার অনুভূতি কী?



মাহবুব আলম লাভলু : আদর্শবান রাজনীতিবিদ, শিক্ষানুরাগী, সমাজ সেবক, ক্রীড়াবিদ ও ক্রীড়া সংগঠক, বিতার্কিকদের পৃষ্ঠপোষক মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মনজুর আহমদ। তিনি বাংলাদেশে বিতর্কে প্রথম বৃত্তি প্রবর্তক। তার বাড়ি মতলব উত্তরে। এ নিয়ে আমরা গর্বিত। তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞ। বিতর্ক আয়োজনে প্রতিটি পদক্ষেপে তিনি উৎসাহিত করেছেন। পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কন্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করার কারণেই তিনি বাংলাদেশে বিতর্কে প্রথম বৃত্তি প্রবর্তক হয়েছেন।



বিতর্কায়ন : আপনার উপজেলায় পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতার প্রান্তিক পর্ব আয়োজনে আপনি প্রধানত কী কী সমস্যা মোকাবেলা করেন ? এ প্রতিযোগিতার কোনো সুফল কি আপনি প্রত্যক্ষ করেছেন বা করছেন?



মাহবুব আলম লাভলু : আয়োজনের প্রথম দিকে কিছু সমস্যা হলেও চূড়ান্ত পর্যায়ে সফলতা পাই। এ উপজেলাটি নদী বেষ্টিত। মূল কেন্দ্র থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর দূরত্ব অনেক বেশি। তাই যোগাযোগ রক্ষা করাটা একটু কষ্টকর। বিতর্কে প্রয়োজনীয় পত্রাদি হাতে পেতে ও তা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পেঁৗছাতে সমস্যা হয়। যদিও ডিজিটাল বাংলাদেশে যোগাযোগ মাধ্যমটি এখন সহজ হচ্ছে। বিতর্কে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটি, প্রতিষ্ঠান প্রধান, দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক, অভিভাবক ও বিতার্কিকদের মধ্যে সমন্বয় সাধন করা একটি বড় সমস্যা। পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কন্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতার সুফল আমি পেয়েছি ও পাচ্ছি। এ প্রতিযোগিতা আমাকে একটি ব্যতিক্রমধর্মী পরিচিতি এনে দিয়েছে। সাংবাদিক হিসেবে ব্যাপক পরিচিতি পেলেও তিন শ্রেণীর লোকের কাছে ছিল কম। বিতর্কের সংগঠক হিসেবে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কাছে রয়েছে পরিচিতি। পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কন্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতার কারণে স্থানীয় পত্রিকার নাম আসলে চাঁদপুর কণ্ঠ সামনে চলে আসে। এখানকার বিতার্কিকরা পরীক্ষায় ভাল ফলাফল করছে। লুধুয়া হাই স্কুল এন্ড কলেজের হয়ে চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বিতার্কিক পহেলী ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট কলেজের বিতর্ক দলের সদস্য।



 



বিতর্কায়ন : আপনার উপজেলায় প্রান্তিক পর্বে বিজয়ী দলগুলো জেলা পর্যায়ে অভিযাত্রা পর্বসহ অন্যান্য পর্বে আসতে চায় না। এটা কেন ?



মাহবুব আলম লাভলু : এ উপজেলা থেকে জেলা সদর অনেকটা দূরে। অনেক সময় ম্যানেজিং কমিটি থেকে খরচ পাওয়ার আশ্বাস না পাওয়া, অভিভাবকরা সন্তানদের না পাঠানো। অভিভাবকরা মনে করেন, এতে তাদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার ব্যাঘাত ঘটবে। দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকরা প্রতিষ্ঠান থেকে সিদ্ধান্ত না পাওয়াও একটি কারণ। এ সব কারণে কোনো কোনো স্কুল অভিযাত্রা পর্বসহ অন্যান্য পর্বে অংশ নেয় না।



বিতর্কায়ন : আপনার উপজেলার কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কন্ঠ বিতর্কে চ্যাম্পিয়ন হোক এটা কি আপনি মনেপ্রাণে চান? যদি চান তাহলে কী কী করা দরকার ?



মাহবুব আলম লাভলু : পাঞ্জেরী- চাঁদপুর কন্ঠ বিতর্কে চ্যাম্পিয়ান হোক এটা আমি মনেপ্রাণে অবশ্যই চাই। সেই কাঙ্ক্ষিত দিনের অপেক্ষায় আছি। আমাদের চেষ্টা অব্যাহত থাকবে। এ জন্যে আমাদের কিছু পদক্ষেপ নিতে হবে। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মনজুর আহমদ ইতিমধ্যে কিছু পদক্ষেপ গ্রহণের কথা বলেছেন। এর মধ্যে অন্যতম প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা এবং প্রতিটি বিদ্যালয়ে কয়েকটি বিতর্ক টিম তৈরি করে প্রতি সপ্তাহে প্রশিক্ষণ দেয়া।



বিতর্কায়ন : উপরোক্ত প্রশ্নমালার বাইরে আপনার কোনো বক্তব্য থাকলে উল্লেখ করুন।



মাহবুব আলম লাভলু : আমরা মেঘনা-ধনাগোদা নদী দ্বারা বেষ্টিত উপজেলার বাসিন্দা। বাংলাদেশে বিতর্কে প্রথম বৃত্তি প্রবর্তক এ এলাকার সন্তান। পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কন্ঠ বিতর্ক আমাদের ছাড়তে চাইলেও আমরা সঙ্গেই থাকবো। যার আদর্শে আমি সামনে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি, সেই কাজী শাহাদাতের বিতর্ক আন্দোলন এগিয়ে যাবে-আমি থাকবো সঙ্গে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৫৫২৫৮
পুরোন সংখ্যা