চাঁদপুর। সোমবার ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৭। ২৭ ভাদ্র ১৪২৪। ১৯ জিলহজ ১৪৩৮
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • ফরিদগঞ্জের চান্দ্রার খাড়খাদিয়ায় ট্রাক চাপায় সাইফুল ইসলাম (১২) নামের ৭ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী ও সদর উপজেলার দাসাদি এলাকায় পিকআপ ভ্যান চাপায় কৃষক ফেরদৌস খান নিহত,বিল্লাল নামে অপর এক কৃষক আহত হয়েছে।
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৯-সূরা আনকাবূত


৬৯ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৫৩। উহারা তোমাকে শাস্তি ত্বরান্বিত করিতে বলে। যদি নির্ধারিত কাল না থাকিত তবে শাস্তি তাহাদের উপর অবশ্যই আসিত। নিশ্চয়ই উহাদের উপর শাস্তি আসিবে আকস্মিকভাবে, উহাদের অজ্ঞাতসারে।


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


সুকর্ম কখনো হারিয়ে যায় না।


-রেসিল।

নীরবতাই শ্রেষ্ঠতম এবাদত। 


ফটো গ্যালারি
বাণী
১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুরে আমি কেবল রাজনৈতিক কর্মকা-ের সাথেই জড়িত নই, আমার পরম শ্রদ্ধেয় মরহুম পিতার পদাঙ্ক অনুসরণে বহুবিধ সামাজিক-সাংস্কৃতিক কর্মকা-ের সাথেও দীর্ঘদিন ধরে জড়িত। আমার পর্যবেক্ষণে আমি দেখেছি, সমাজের জন্যে কল্যাণকর অধিকাংশ কাজের ধারাবাহিকতা রক্ষা করা যায় না অর্থ সঙ্কট, উদ্যোক্তা সঙ্কটসহ অনিবার্য কিছু কারণে। এমন গতানুগতিকতার মধ্যেও চাঁদপুরের সংস্কৃতি অঙ্গনে বছরের পর বছর ধারাবাহিকভাবে চলছে একটি মহতী উদ্যোগ, আর সেটি হচ্ছে বিতর্ক প্রতিযোগিতা। পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্সের টাইটেল স্পন্সরে ও চাঁদপুর কণ্ঠের আয়োজনে নয় বছর ধরে চলমান এই প্রতিযোগিতা মুগ্ধ করেছে প্রায় সকলকে। আমি নিজেও মুগ্ধ এই আয়োজনে। আমি প্রধান অতিথি হয়ে এই প্রতিযোগিতার বহু পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে গিয়েছি এবং ব্যক্তিগতভাবে নিজের ভালো লাগা থেকে স্বতঃস্ফূর্তভাবে আমার সামর্থ্যের আওতায় সর্বাত্মক সহযোগিতার হাত প্রসারিত করেছি।



আমি মনে করি, বিতর্ক চর্চার মাধ্যমে যে সকল শিক্ষার্থী তৈরি হয়েছে বা হচ্ছে, এরা বাচিক শিল্পে উৎকর্ষতার গুণে ব্যক্তিজীবনে যেমন সাফল্যের দেখা পাবে এবং সমাজও তাদের দ্বারা উপকৃত হবে। সমাজে শান্তি-স্থিতিশীলতার প্রশ্নে অনিবার্য অনুষঙ্গের অন্যতম পরমতসহিষ্ণুতা। বিতর্ক চর্চায় কোনো ব্যক্তির মধ্যে এই পরমতসহিষ্ণুতা অত্যন্ত জোরালোভাবে স্থান করে নেয়। এজন্যে বিতর্ক চর্চার গুরুত্ব অপরিসীম।



পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতার কারণে চাঁদপুর দেশের বিতর্ক অঙ্গনে অত্যন্ত সুপরিচিত নাম। এ নামকে আরো ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দিতে উক্ত প্রতিযোগিতার ধারাবাহিকতা রক্ষা অতীব প্রয়োজন। আমি আশা করবো, চাঁদপুরের শিক্ষার্থীদের স্বার্থে এই ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে এবং সেজন্যে জেলা পরিষদও পাশে থাকবে।



আমি বিতর্ক প্রতিযোগিতার উদ্যোক্তা, আয়োজক, পৃষ্ঠপোষক সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানাই। চাঁদপুরে বিতর্ক চর্চা দীর্ঘস্থায়ী হোক।



 



জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।



বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।



 



আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী



চেয়ারম্যান,



জেলা পরিষদ, চাঁদপুর।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১১৪৮৩১১
পুরোন সংখ্যা