চাঁদপুর, সোমবার ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২৯ মাঘ ১৪২৫, ৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৯-সূরা হুজুরাত


১৮ আয়াত, ২ রুকু, 'মাদানী


৩। যাহারা আল্লাহর রাসূলের সম্মুখে নিজেদের কণ্ঠস্বর নীচু করে, আল্লাহ তাহাদের অন্তরকে তাকওয়ার জন্য পরীক্ষা করিয়া লইয়াছেন। তাহাদের জন্য রহিয়াছে ক্ষমা ও মহাপুরস্কার।


 


 


 


assets/data_files/web

যে-লোক তার সুযোগ হারায় সে নিজেকে হারায়।      


-জি. মরু।


মানবতাই মানুষের শ্রেষ্ঠতম গুণ।













 


ফটো গ্যালারি
বিতর্ক কর্মশালা নিয়ে আমার ভাবনা ও অনুভূতি
কাজী রাজিয়া বেগম
১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


বিতর্ক এমন এক বাচিক শিল্প যে শিল্প মানুষকে সঠিক সুন্দর, মার্জিত ও শুদ্ধ উচ্চারণে কথা বলতে শিখায় এবং সুস্থ, সুন্দর ও গঠনমূলক চিন্তন দক্ষতা বৃদ্ধি করে। এ বিতর্ক চর্চার মাধ্যমে তৈরি হয় সুস্থ মানসিকতার, যা অশ্লীল ও খারাপ কাজ থেকে মানুষকে দূরে রাখে। চাঁদপুর কণ্ঠ-পাঞ্জেরী বিতর্ক প্রতিযোগিতার জন্ম ২০০৯ সালে। গত বছর এ প্রতিযোগিতার এক দশক পূর্ণ হলো। এ বছরে একাদশে তার যাত্রা। দীর্ঘ দশ বছর কম সময় নয়। যে শিশুটি ঐ বছর জন্মগ্রহণ করেছে সেও হয়ত এখন বিতর্কে অংশ নিচ্ছে। দীর্ঘ পথচলায় এ বিতর্কের কার্যক্রমটি প্রতিবছরই সুন্দরভাবে সম্পন্ন করে আসছে চাঁদপুর কণ্ঠ।



আমরা জানি যে কোন পেশাকে শাণিত ও ফলপ্রসূ করার জন্য দরকার প্রশিক্ষণ। সমাজে আমরা যে যেই পেশায় নিয়োজিত আছি সকল পেশার ক্ষেত্রেই কর্মদক্ষতা বৃদ্ধির জন্য প্রশিক্ষণ প্রয়োজন। সে কারণেই বিভিন্ন সময় সরকারি/বেসরকারি প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে হয়। প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই। এ প্রয়োজনীয়তাকে উপলব্ধি করেই চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের নিয়ে শুরু হলো বিতর্ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা। বিগত বছরগুলোতে বিভিন্ন উপজেলায় এ প্রশিক্ষণ শুরু করে তারা সফল হয়েছেন। বিগত দশ বছরে আমরা এ প্রশিক্ষণের কোনো উদ্যোগ গ্রহণ ও আয়োজন করতে পারিনি। আমাদের মাঝে কিছু চিন্তা চেতনার অভাব ছিলো বলেই হয়ত এ কাজটি করতে পারিনি।



এ বছর সিকেডিএফ উপজেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। নবগঠিত ২১ সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটির আমিও একজন সদস্য। সভাপতি নির্বাচিত করা হয় মেহের ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক জনাব কবিরুল ইসলাম মজুমদারকে। তিনি সভা আহ্বান করে বিতর্কের ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করে সবার সম্মতিতে প্রশিক্ষণ কর্মশালার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। স্কুল কলেজগুলোর সাথে যোগাযোগ করে আমরা প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করলাম। গত ৩১ জানুয়ারি, ২০১৯ তারিখে আমরা প্রশিক্ষণের আয়োজন করি উপজেলা অডিটোরিয়ামে। ঐ দিন বেলা ১০টায় স্কুল কলেজসহ মোট ১৬টি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করে। চাঁদপুর থেকে প্রশিক্ষক আসলেন চারজন। চাঁদপুর বিতর্ক একাডেমির অধ্যক্ষ ডাঃ পীযূষ কান্তি বড়ুয়া, উপাধ্যক্ষ রাসেল হাসান, চাঁদপুর সরকারি কলেজ ডিবেট ফোরামের সভাপতি, চ্যাম্পিয়ন বিতার্কিক ভিভিয়ান ঘোষ এবং সিকেডিএফ-এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাজন চন্দ্র দে। প্রথমেই মঞ্চে এলেন ডাঃ পীযূষ কান্তি বড়ুয়া। তিনি তার উপস্থাপনায় সহজ, সুন্দর ও সাবলীল ভাষায় বিতর্কের মৌলিক বিষয়গুলো তুলে ধরলেন। পেশাগত ব্যস্ততার কারণে তিনি সারাদিন সময় দিতে পারেননি। তাঁর আগমনে অনেক বেশি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি। পর পরই ভিভিয়ান ঘোষ প্রশিক্ষণের দায়িত্ব পালনে মঞ্চে এসে গঠনমূলক ও হাস্যরসাত্মক উপস্থাপনার মাধ্যমে বক্তব্য তুলে ধরেন, যা ছিল দিক নির্দেশনামূলক। পর্যায়ক্রমে আসা চাঁদপুরের চারজন প্রশিক্ষকের মধ্যে সর্বশেষ আগমন ঘটে বিতর্ক একাডেমির উপাধ্যক্ষ রাসেল হাসানের। তিনি অত্যন্ত সুন্দর সহজ ভাবে খুটিনাটি বিষয়গুলো বিতার্কিকদের মাঝে তুলে ধরেন। বিতর্কের এ প্রশিক্ষণ কর্মশালাকে তিনি প্রাণবন্ত ও উজ্জীবিত করে তোলেন। রাজন চন্দ্র দের সার্বক্ষণিক উপস্থিতি ও সুললিত কণ্ঠের সঞ্চালনা ও প্রশিক্ষণের বিষয়টি সবার মাঝে উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি করে। প্রশিক্ষণের এ কার্যক্রমটি একটানা দেড়টা পর্যন্ত চলে। এক ঘন্টা বিরতির পর বেলা আড়াইটায় সমাপনী অনুষ্ঠান ও সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠান শুরু হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আসন অলঙ্কৃত করেন শাহরাস্তি উপজেলার সুযোগ্য নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব হাবিব উল্লাহ মারুফ। তিনি এ ধরণের অনুষ্ঠান ও উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। এ আয়োজনে তিনি মুগ্ধ ও অভিভূত। তাঁর আন্তরিক সহযোগিতা না পেলে হয়ত আমাদের এ অনুষ্ঠান ও উদ্যোগকে সফল করতে কিছু বেগ পেতে হতো। আমরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে কৃতজ্ঞ। আশা রাখছি ভবিষ্যতে তিনি এ কাজে আরো সহযোগিতা করবেন। বিতর্কের এ প্রশিক্ষণে ছাত্র ও শিক্ষক সবাই উপকৃত হয়েছেন। সবার মাঝে একটা উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। আমি ব্যক্তিগতভাবে অনেক আনন্দিত। আমরা প্রথমবারের মত এ প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নিয়ে সফল হয়েছি। আশা করি আগামীতেও এ প্রশিক্ষণ অব্যাহত থাকবে।



অর্থনীতির ভাষায় যে কোনো কাজে সফল হতে হলে প্রয়োজন শ্রম, মূলধন ও সংগঠন। এ তিনের সমন্বয় ব্যতীত কর্মে সফলতা আসে না । আমাদের বিতর্ক কমিটি ও সংগঠনের সংগঠক এবং সভাপতি জনাব মোঃ কবিরুল ইসলাম মজুমদার, সিনিয়র সহ-সভাপতি জনাব ফারুক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মঈনুল ইসলাম কাজল, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুব আলম সহ সবার অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল আমাদের এ প্রশিক্ষণ কর্মশালা। আমি সবার সাফল্য কামনা করছি। আগামীদিনে আমরা সবাই সক্রিয় থেকে যেন এ ধরণের কর্মকা-কে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি সে কামনাই করছি।



সর্বশেষে যার কথা না বললে একরাশ অতৃপ্তি থেকে যায় তিনি হচ্ছেন বিতর্কের প্রাণপুরুষ, অনেক গুণের আধার, অনেক কাজের কাজী, সিকেডিএফ-এর উপদেষ্টা জনাব কাজী শাহাদাত। তাঁর আন্তরিক সহযোগিতা ও প্রশিক্ষক প্রেরণের ক্ষেত্রে যে ভূমিকা তা ছিল প্রশংসনীয়। সত্যি আমরা তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞ। সেজন্যে কাজী শাহাদাত ভাই সহ সিকেডিএফ-এর সকল সদস্যকে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ। দীর্ঘায়ুসহ অনেক অনেক শুভ কামনা থাকলো তাদের জন্যে।



লেখক : কাজী রাজিয়া বেগম, সিনিয়র শিক্ষিকা, শাহরাস্তি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় ও সিকেডিএফ উপজেলা কমিটির কার্যকরী সদস্য।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৯৩৫৯
পুরোন সংখ্যা