চাঁদপুর। বৃহস্পতিবার ১৩ এপ্রিল ২০১৭। ৩০ চৈত্র ১৪২৩। ১৫ রজব ১৪৩৮

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • উচ্চ মাধ্যমিকে পাস ৬৮.৯১ শতাংশ
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৭-সূরা নাম্ল 


৯৩ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৮৫। সীমালঙ্ঘন হেতু উহাদের উপর ঘেঘিত শাস্তি আসিয়া পড়িবে; ফলে উহারা কিছুই বলিতে পারিবে না।  


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন

বড় হতে হলে সর্বপ্রথম সময়ের মুল্য দিতে হবে।                                 -স্মাইলস। 


মানবতাই মানুষের শ্রেষ্টতম গুণ।  


কেন শিক্ষার্থীদের জন্যে খেলাধুলা প্রয়োজন?
শাহনাজ বেগম মুক্তা
১৩ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


"শিক্ষা একটি জীবনব্যাপী প্রক্রিয়া, বিকশিত জীবন এবং ব্যক্তির সুষম বিকাশই প্রকৃত শিক্ষা" আলফ্রেড হোয়াইট হেড সংক্ষেপে বলা যায়, ব্যক্তির শারীরিক-মানসিক, নৈতিক, সামাজিক ও আধ্যাত্মিক বিকাশই পরিপূর্ণ শিক্ষা। কিন্তু পুঁথিগত বিদ্যা কি ব্যক্তিকে পরিপূর্ণ মানুষ করতে পারে? অবশ্যই না, স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল। এই প্রবাদ কেউ অস্বীকার করতে পারে না। শিক্ষার্থীর জন্য ভালো খাবার, চিত্তবিনোদন, বিশ্রাম এবং সৃজনশীল কর্ম তৎপরতা একান্ত অপরিহার্য্য। ল্যাটিন ভাষায়, 'Mens Sana in Corpore Sano'-যার অর্থ A Sound Mind in a sound body. সুস্থ দেহে সুন্দর মন। শিক্ষণীয় বিষয়সমূহ আয়ত্ত্ব করা এবং অনুধাবন করার জন্য আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহকে উপযুক্ত পরিবেশ অর্থাৎ দেহ, মন এবং আত্মিক বিকাশের জন্য (Balance development of body, mind of soul)  পরিবেশ অক্ষুণ্ন রাখতে হবে।



প্রাচীন গ্রীক সভ্যতায় শিক্ষা ছিলো প্রকৃত অর্থেই শিশুর পূর্ণ বিকাশের অনুকূল। তাদের শিক্ষা সম্পর্কে বলা হয়--"It was grammatics for the mind and soul gymnastics for the body and oratory for rationalistic" অর্থাৎ মনের জন্য সৃজনধর্মী শিক্ষা আর দেহের জন্য ব্যায়াম এবং যুক্তিবাদী হবার জন্যে বাগ্মীতা অপরিহার্য। পরিমিত ব্যায়াম দেহের অস্থি, মাংস পেশি ও অন্যান্য অঙ্গের সুষম বৃদ্ধি ঘটায়। ইংরেজি প্রবাদ "All works no play make a dull jack boy" এমন শিক্ষা আমাদের কাম্য নয়।



জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ অনুসারে স্বাস্থ্য ও শারীরিক শিক্ষা এবং চারুকারু কলাকে পাঠ্যসূচির অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।



* প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষাস্তর চালুর মাধ্যমে আনন্দময় শিশুবান্ধব পরিবেশে খেলা ও কাজের মাধ্যমে শিশু শিক্ষার ভিত্তি রচিত হয়েছে।



* খেলার মাধ্যমে শিক্ষা Play way Method বা Learning by, playing and doing  কে শিক্ষার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। শিশুর পঞ্চ-ইন্দ্রিয় ব্যবহার করে অভিজ্ঞতা ও চাহিদার ভিত্তিতে আনন্দদায়ক পরিবেশে শিখবে। ছবি অঙ্কন করে সুকুমার বৃত্তিকে প্রতিফলন ঘটাবে।



সাম্প্রতিক সময়ে সমাজে যুবসমাজের পরিবর্তিত চাহিদার প্রেক্ষাপটে শিক্ষার কারিকুলাম ঢেলে সাজানো হয়েছে। শিক্ষার্থীদের শারীরিক, মানসিক বিকাশের পরিবেশ গড়ে তোলার জন্য সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাঠ, ক্রীড়া, খেলাধুলা ও শরীর চর্চার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।



শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি এবং মাদক দ্রব্য সম্পর্কে সতর্ক করার জন্য পাঠ্যপুস্তুকে বিষয়বস্তু সংযোজন করা হয়েছে।



বর্তমানকালে শরীরচর্চা ও খেলাধুলা শিক্ষার্থীর মন ও দেহকে সতেজ রাখা, দেহ মনে প্রফুল্লতা আনয়ন করা- সর্বোপরি চরিত্র গঠনে সহায়তা করার নিমিত্তে যেমন পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়, তেমনি বিদ্যালয়ে সহপাঠ্য ক্রমের অন্তর্ভুক্ত রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানকে দৈনিক ক্লাস শুরুর প্রাক্কালে হালকা পিটি-প্যারেড, জাতীয় সঙ্গীত ও শপথ পরিবেশনের নির্দেশ দেয়া আছে। জাতীয়ভাবে শীতকালীন ও গ্রীষ্মকালীন খেলাধুলা ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।



পৃথিবীর উন্নত দেশসমূহে শিক্ষার অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে শরীর চর্চা ও খেলাধুলাকে অগ্রাধিকার প্রদানের মাধ্যমে সকল উন্নত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জিমনেসিয়াম, ইনডোর গেমস এবং আউটডোর গেমস-এর ব্যবস্থাপনা করা হয়েছে। এ্যাথলেটিঙ্ সাঁতার, বাস্কেটবল, ভলিবল প্রভৃতি খেলায় রাশিয়া, আমেরিকা, কানাডা শীর্ষ স্থানে অবস্থান করছে।



রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। বিশ্ব ক্রীড়ায় একে একে বাংলাদেশের তরুণরা স্থান করে নিচ্ছে। এটা আমাদের আশা জাগায়। ক্রিকেট, ফুটবল, ভলিবল খেলা এবং এ্যাথলেটিঙ্ বাংলাদেশের পতাকাবাহী সোনার ছেলেরা বিজয়ের গৌরবে জাতিকে বিশ্ব মানচিত্রে তাৎপর্যসহ তুলছে। প্রকৃত পক্ষে শরীর, মন ও মেধার সমন্বয়ে মানুষের জীবন পূর্ণতা লাভ করে। খেলাধুলা, শরীর চর্চা, জিমনস্টিকস্ এখনকার সময়ে মর্যাদাপূর্ণ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি লাভ করেছে। আমাদের দেশেও ঢাকার সাভারে বাংলাদেশের একমাত্র ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান BKSP প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত প্রতিষ্ঠান শিক্ষা বোর্ডের অধীনে S.S.C, H.S.C এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে Degree সনদ প্রদান করে আসছে। জাতীয় শিক্ষানীতিতে ২০১০-এর প্রস্তাবনায় এটিকে পূর্ণাঙ্গ ক্রীড়া বিশ্ববিদ্যালয় করার পরিকল্পনা রছেছে। জেলা পর্যায়ে BKSP এর অধীনে জেলা পর্যায়ে ক্রীড়া শিক্ষা স্কুল/কলেজ প্রতিষ্ঠা করার সুপারিশ করা হয়েছে। বেসরকারি পর্যায়ে এ ধরনের প্রতিষ্ঠান অনুমোদন দেয়া হলে বাংলাদেশে ও মর্যাদাবান ক্রীড়াবিদ এবং খেলাধুলায় পারদর্শী পেশাদার জনসম্পদ সৃষ্টি হবে। নাগরিক জীবনে বিনোদন এবং অবসর সময় উপভোগ্য জনশক্তি সৃষ্টি হবে। আর Idle Brain is devils workshop না হয়ে যুবসমাজ মাদক ও অপরাধীমুক্ত দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠার সুযোগ পাবে। বর্তমানে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মহোদয়, সম্মানিত পুলিশ সুপার ও মেয়র স্যার সেই চেষ্টা করে যাচ্ছেন। ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য পাঠ্যপুস্তকে শিক্ষার্থীর সুস্থ দেহ এবং সজীব মন গঠন এবং দেশ বিদেশের বিচিত্র খেলাধুলা চর্চার ভেতর দিয়ে শিক্ষার্থীরা যেন কর্মক্ষম সুনাগরিক হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারে সেদিক বিবেচনায় রেখে পাঠ নির্বাচন করা হয়েছে।



শারীরিক শিক্ষার পাশাপাশি পাঠ্যবইতে স্কাউটিং গার্ল গাইড ও বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি কার্যক্রম পর্যালোচনা করা হয়েছে। প্রতিটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আরও একজন শরীরচর্চা শিক্ষকের পদসৃষ্টিসহ প্রত্যেক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১ জন শরীর চর্চা শিক্ষকের পদ সৃষ্টি করা দরকার। প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া সরঞ্জামাদির জন্য প্রতিবছর সরকারিভাবে অর্থ বরাদ্ধ করা দরকার। প্রতিটি স্কুলে নূ্যনতম ক্রীড়া অব কাঠামো, খেলার মাঠ এবং সাঁতারের জন্য একটি পুকুর থাকা আবশ্যক। ব্যায়ামাগার নির্মাণের জন্য সরকারি প্রচেষ্টা থাকতে হবে। এভাবেই তৃণমূল পর্যায় থেকে ক্রীড়া শিক্ষাদানও তা মূল্যায়নের ব্যবস্থা করলে খেলাধুলায় কাঙ্ক্ষিত মান অর্জিত হবে এবং দেশে কর্মক্ষম দক্ষ, মেধাবী জনশক্তি সৃষ্টি হবে। মানুষের গড় বয়স বর্তমান ৬৯ থেকে ১০০ তে উন্নীত হবে। আর্থসামাজিক প্রবৃদ্ধি লক্ষ্য মাত্রায় উন্নীত হবে।



শাহনাজ বেগম মুক্তা : চাঁদপুর রেসিডেন্সিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ, চাঁদপুর।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৫৪৩০৯
পুরোন সংখ্যা