চাঁদপুর। মঙ্গলবার ২ অক্টোবর ২০১৮। ১৭ আশ্বিন ১৪২৫। ২১ মহররম ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫ নং রামপুর ইউনিয়নের দেবপুর বড়হুজুরের বাড়িতে ২ শিশুসন্তানসহ একই পরিবারের ৪জন মারা গেছেন। || চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫ নং রামপুর ইউনিয়নের দেবপুর বড়হুজুরের বাড়িতে ২ শিশুসন্তানসহ একই পরিবারের ৪জন মারা গেছেন। || চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫ নং রামপুর ইউনিয়নের দেবপুর বড়হুজুরের বাড়িতে ২ শিশুসন্তানসহ একই পরিবারের ৪জন মারা গেছেন। || চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫ নং রামপুর ইউনিয়নের দেবপুর বড়হুজুরের বাড়িতে ২ শিশুসন্তানসহ একই পরিবারের ৪জন মারা গেছেন।
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪২-সূরা শূরা


৫৪ আয়াত, ৫ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


১৪। তাদের নিকট তাওহীদের জ্ঞান আসার পরও শুধুমাত্র পারস্পরিক বাড়াবাড়ির কারণে তারা নিজেদের মধ্যে মতভেদ ঘটায়; এক নির্ধারিত কাল পর্যন্ত অবকাশ সম্পর্কে তোমার প্রতিপালকের পূর্ব সিদ্ধান্ত না থাকলে তাদের বিষয়ে ফয়সালা হয়ে যেতো। তাদের পর যারা কিতাবের উত্তরাধিকারী হয়েছে তারা বিভ্রান্তিকর সন্দেহে রয়েছে।


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 


 


 


নিজেকে কখনো অপরের চেয়ে ছোট মনে করো না। -জন কিপলিং।


 


 


পবিত্র হওয়াই ধর্মের অর্থ।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
শিশুদের স্কুল আগ্রহ বাড়াতে ফুলের বাগান!
কাদের পলাশ
০২ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুরের প্রায় প্রতিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশু শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি বাড়াতে সৌন্দর্য বর্ধনসহ চিত্তবিনোদনের জন্যে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বিশেষ করে স্কুল প্রাঙ্গণে ফুল বাগান, মিনি শিশুপার্ক, চিড়িয়াখানা, এ্যাকোরিয়াম এবং লুকিং গ্লাস স্থাপন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে প্রায় ৮০ ভাগ স্কুলে ফুলের বাগান করা হয়েছে। এতে অমনোযোগী শিশুরাও স্কুলমুখী হচ্ছে। শিক্ষক ও সংশ্লিষ্ট দপ্তর বলছে, এমন উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের স্কুলের প্রতি আগ্রহ বাড়ছে ও পড়ায় শিশুরা মনোযোগী হচ্ছে।



চাঁদপুর সদর উপজেলার মৈশাদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মনিহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর বালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বেশ কয়েকটি স্কুল ঘুরে দেখা যায়, স্কুল মাঠে চমৎকার ফুলের বাগান তৈরি করা হয়েছে। এসব বাগানে বিভিন্ন প্রজাতির ফুল রয়েছে। এরমধ্যে, রক্ত জবা, হাসনাহেনা, বেলি, গন্ধরাজ, পাতাবাহার গাছ, শিউলি ফুল, গেটফুলসহ আরো বাহারি প্রজাতির ফুল। এছাড়া বেশ কিছু স্কুলে রয়েছে মিনি চিড়িয়াখানা, এ্যাকুরিয়াম, মিনি শিশুপার্ক, এবং লুকিং গ্লাস। এতে স্কুলের প্রতি শিক্ষার্থীদের দিনদিন আগ্রহ বাড়ছে। বাড়ছে পড়ায় মনোযোগ।



 



শিক্ষার্থীরাও এমন পরিবশে পেয়ে বেজায় খুশি। সুমাইয়া, জান্নাত, মরিয়ামসহ আরো অনেক শিক্ষার্থী বলে, স্কুল থেকে বাড়ি যেতে ইচ্ছেই হয় না। স্কুলেই ভালো লাগে।



কয়েকজন অভিভাবক জানান, আগের চেয়ে শিশুদের স্কুলে যাওয়ার আগ্রহ অনেক বেড়েছে। কারণ তারা স্কুলে গিয়ে ভালো একটি পরিবেশ পাচ্ছে। স্কুলে ফুলের বাগান ও বিনোদনের জায়গা থাকার কারণে এ আগ্রহ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে তারা মনে করেন।



বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সহযোগিতা ও ম্যানেজিং কমিটির পরামর্শ নিয়ে এ উদ্যোগগুলো বাস্তাবায়ন করা হচ্ছে বলে জানান বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকরা।



চাঁদপুর সদর উপজেলার মৈশাদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুরঞ্জিত কর জানান, শিক্ষার মানোন্নয়ন, ঝরে পড়া রোধ, ক্লাসে শতভাগ উপস্থিতি নিশ্চিত করতে ফুলবাগান করাসহ আরো বেশ কিছু নির্দেশনা এসেছিলো। প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের উদ্যোগ ও পরামর্শে আমরা পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছি। অবশ্য এর সুফল পেতেও শুরু করেছি।



চাঁদপুর সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাজমা বেগম জানান, ইতোমধ্যে সদর উপজেলার প্রায় ৮০ ভাগ বিদ্যালয়ে ফুলের বাগান করা হয়েছে। শতভাগ স্কুলে লুকিং গ্লাস সাটানো হয়েছে। খুব দ্রুতই বাকি বিদ্যালয়ে বাগানসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা হবে। অন্যান্য বিষয়গুলো চিত্তবিনোদনের জন্যে হলেও লুকিং গ্লাস লাগানোর উদ্দেশ্য শিশুরা যেন পরিপাটি থাকতে পারে। অন্তত চুল এলেমেলো থাকলে যেনো দ্রুত তা ঠিক করতে পারে।



প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের তথ্য মতে, চাঁদপুরে মোট ১১শ' ৪৬টি স্কুলের মধ্যে এ গ্রেডে ৩৯৮, বি গ্রেডে ৬৫৪ এবং সি গ্রেডে ৯৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এসব স্কুলে সর্বশেষ সমাপণীতে পাসের হার ৯৯.১৭ ভাগ। পাসের হার শতভাগ করতে এমন উদ্যোগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে করেন সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৭০৩২৬
পুরোন সংখ্যা