চাঁদপুর, বুধবার ১৩ জানুয়ারি ২০১৬। ৩০ পৌষ ১৪২২। ২ রবিউস সানি ১৪৩৭

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • ---------
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২২-হাজ্জ

৭৮ আয়াত, ১০ রুকূ, মাদানী

পরম করুণাাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।



১/ হে মানুষ! ভয় কর তোমাদের প্রতিপালককে; কিয়ামতের প্রকম্পন এক ভয়ংকর ব্যাপার!

২/ যে দিন তোমরা উহা প্রত্যক্ষ করিবে সেই দিন প্রত্যেক স্তন্যদাত্রী বিস্মৃত হইবে তাহার দুগ্ধপোষ্য শিশুকে এবং প্রত্যেক গর্ভবতী তাহার গর্ভপাত করিয়া ফেলিবে; মানুষকে দেখিবে নেশাগ্রস্ত সদৃশ, যদিও উহারা নেশাগ্রস্ত নহে। বস্তুত আল্লাহ্র শাস্তি কঠিন।  

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন

 


বিপদের বন্ধুই প্রকৃত বন্ধু।

              -ইংরেজি প্রবাদ।       

                            

 



 


যে ধনী বিখ্যাত হওয়ার জন্য দান করে সে প্রথমে দোজখে প্রবেশ করবে।

                   -হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)

 


এ কলেজের শিক্ষকরা আন্তরিকতার সাথে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করিয়ে থাকেন
মোঃ জহিরুল ইসলাম
১৩ জানুয়ারি, ২০১৬ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


জহিরুল ইসলাম। পড়াশোনা করছেন চাঁদপুর সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগে। পড়াশোনার পাশাপাশি জড়িত আছেন বিভিন্ন সামাজিক কর্মকা-েও। সম্প্রতি তার শিক্ষা জীবনের অভিজ্ঞতাসহ নানা বিষয়ে চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস প্রতিবেদকের সাথে কথা হয় জহিরুল ইসলামের। তার কিছু অংশ চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস পাঠকদের জন্য আজ উপস্থাপিত হলো_



 



চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস : কেমন আছেন? পড়াশোনা কেমন চলছে?



 



জহিরুল ইসলাম : আল্লাহর অশেষ রহমতে সকলের দোয়ায় বেশ ভালোই আছি। যথাসাধ্য চেষ্টা করছি ঠিকমত পড়াশোনা করতে।



 



চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস : চাঁদপুর সরকারি কলেজে ভর্তি হওয়ার প্রথম অনুভূতি কেমন ছিলো?



 



জহিরুল ইসলাম : চাঁদপুর সরকারি কলেজ আমার শিক্ষা জীবনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি প্লাটফর্ম। এ কলেজে ভর্তি হতে পেরে আমি আনন্দিত, অভিভূত। বিশাল ক্যাম্পাস, শিক্ষার্থী মুখরতায় পরিপূর্ণ দেখে কলেজটি এক লহমায় মনে স্থান করে নেয়। সেই সময়কার অনুভূতিই আলাদা। মাঝে মাঝে গর্ব করি আমি চাঁদপুর সরকারি কলেজের ছাত্র বলে।



 



চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস : হিসাব বিজ্ঞান বিভাগে আপনার প্রিয় শিক্ষক সম্পর্কে কিছু বলুন।



 



জহিরুল ইসলাম : আমাদের বিভাগের প্রতিটি শিক্ষকই শিক্ষার্থীর প্রতি আন্তরিক। সবাইকে বেশ আপন মনে হয়। তবে বিশেষ করে গোলাম মোস্তফা স্যারকে খুব ভালো লাগে। তিনি বর্তমানে অবসর গ্রহণ করেছেন। স্যার শুধু পাঠদান করেই ক্ষান্ত হতেন না বরং আনন্দ দানের মাধ্যমেই শিক্ষা দিতেন। স্যারের আরেকটি গুণও আমার কাছে অনুকরণীয় মনে হয়। স্যার কখনো অন্যায় সহ্য করেন না। তাঁর ছাত্র হতে পারা সৌভাগ্যের বিষয় বলে মনে করি। স্যার দীর্ঘজীবী হোক এটাই প্রত্যাশা করি।



 



চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস : চাঁদপুর সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের যে দিকটা ভালো লাগে_



 



জহিরুল ইসলাম : বাংলা বিভাগের যে দিকটা বেশ ভালো লাগে তা হলো : এ শিক্ষকরা খুবই আন্তরিকতার সাথে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করিয়ে থাকেন। এজন্যই বাংলা বিভাগের ফলাফল বরাবরই ভালো।



 



চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস : অবসর সময় কীভাবে কাটে?



 



জহিরুল ইসলাম : অবসর সময়ে বইগুলো পড়ি। বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেই। কখনো নাটক দেখি।



 



চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস : চাঁদপুর সরকারি কলেজের কোনো বেদনার স্মৃতি সম্পর্কে কিছু বলুন।



 



জহিরুল ইসলাম : উল্লেখ করার মতো তেমন বেদনায় স্মৃতি নেই।



চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস : পড়াশোনা শেষ করে কী হতে চান?



 



জহিরুল ইসলাম : আমি পড়াশোনা শেষ করে কর্মক্ষেত্রে একজন ভালো মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে চাই। মূলত ভালো মানুষ হওয়ার মধ্যেই প্রকৃত প্রশান্তি এবং সফলতা বিদ্যমান বলে আমি বিশ্বাস করি। কেননা একজন ভালো মানুষই পারে একটি দেশ, জাতি, সমাজকে ভালো কিছু উপহার দিতে।



 



চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস : শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে আপনার মন্তব্য কী?



 



জহিরুল ইসলাম : আমরা যারা শিক্ষার্থী আছি তারাই মূলত এ কলেজের প্রাণ। শিক্ষার্থীদের ফলাফল ও আচরণের উপর নির্ভর করেই কলেজের সামগ্রিক অবস্থা নিরূপন হয়। তাই বলব আমরা যারা শিক্ষার্থী আছি তারা নিয়মিত ক্লাস করব, পরিশ্রম ও সাধনা দিয়ে ভালো ফলাফল অর্জন করে কলেজের নাম উজ্জ্বল করবো।



 



চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস : মাঝে মাঝে যে কবিতাটি প্রায়ই পাঠ করা হয়_



 



জহিরুল ইসলাম : রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর আমার প্রিয় কবি। তাঁর সব কবিতাই ভালো লাগে। এখন 'গান গাওয়ালে আমায় তুমি' কবিতাটি বলছি।



গান গাওয়ালে আমায় তুমি



কতই ছলে যে,



কত সুখের খেলায়, কত



নয়নজলে হে।



ধরা দিয়ে দাও না ধরা,



এস কাছে, পালাও ত্বরা,



পরান কর ব্যথায় ভরা



পলে পলে হে।



গান গাওয়ালে এমনি করে



কতই ছলে যে।



কত তীব্র তারে, তোমার



বীণা সাজাও যে,



শত ছিদ্র করে জীবন



বাঁশি বাজাও হে।



তব সুরের লীলাতে মোর



জনম যদি হয়েছে ভোর,



চুপ করিয়ে রাখো এবার



চরণতলে হে,



গান গাওয়ালে চিরজীবন



কতই ছলে যে।



 



চাঁ.স.ক. ক্যাম্পাস : আপনার ভবিষ্যৎ জীবন সুন্দর ও শুভ হোক আপনার জন্য রইলো এই শুভ কামনা। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।



জহিরুল ইসলাম : আপনাকেও ধন্যবাদ।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৩২৬২৫
পুরোন সংখ্যা