চাঁদপুর। শুক্রবার ১০ মার্চ ২০১৭। ২৬ ফাল্গুন ১৪২৩। ১০ জমাদিউস সানি ১৪৩৮
ckdf

সর্বশেষ খবর :

  • ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় মোড়া, চাঁদপুরে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৭-সূরা নাম্ল 


৯৩ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৪৩। আল্লাহ্র পরিবর্তে সে যাহার পূজা করিত তাহাই তাহাকে সত্য হইতে নিবৃত্ত করিয়াছে, সে ছিল কাফির সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত।


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন

নম্রতা-ভ্রদ্রতা গুণ দুটো মানুষের জীবনের পুরাতন ঐশ্বর্য।               -জন স্টুয়ার্ট মিল।


যে মুসলমান অবৈধ (হারাম) বস্তু হইতে দূরে থাকে ও ভিক্ষাবৃত্তি হইতে দূরে থাকে, যাহার শুধু একটি পরিবার (স্ত্রী), খোদাতায়ালা তাহাকেই ভালোবাসেন।   


প্রিয় শিক্ষক মোর্শেদ আলম
মোঃ ফরিদ শেখ
১০ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+

পৃথিবীতে মানুষ আসে ক্ষণকালের জন্য। কিছুকাল বসবাস করে আবার চলে যায় না ফেরার দেশে অনাদিকালের জন্য। এই আসা-যাওয়ার মধ্যে কেউবা তার সফল কর্মকা-ের জন্য চিরকালেই জাগরুক হয়ে থাকে আপামর মানুষের মাঝে আবার, কারো নাম কখনেই উচ্চারিত হয় না কর্মহীনতার জন্য। সারা জীবনের শত দুঃখ গ্লানি, হতাশা-ব্যর্থতা ও তাদের সুকীর্তিসমূহ সম্পাদন করে রেখে যান সমাজের বুকে। ঘুরে ঘুরে কাল মহাকাল তাদের স্মরণ করে, অকাতরে। তেমনিই একজন হলেন বহরিয়া নূরুল ইসলাম উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোর্শেদ আলম স্যার তার সবচে' বড় পরিচয় তিনি সর্বজন শ্রদ্ধেয় একজন সৎ, নিষ্ঠাবান ও দায়িত্বশীল মানুষ। তিনি আমাদের সকলের শ্রদ্ধেয় প্রাণ প্রিয় শিক্ষক। শিক্ষকের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে মধ্যযুগের এক কবি বলেছিলেন। শিক্ষক তাকে দ্বিতীয় জন্মদান করেছেন। সুন্দর এই পৃথিবীতে পিতামাতার বদৌলতে সন্তান জন্মলাভ করে ঠিকই, কিন্তু সেই সন্তানের জীবনকে সার্থক এবং সফল করে তোলার পেছনে যার অবদান সবচেয়ে বেশি তিনি হলেন শিক্ষক। শিক্ষকের পদপ্রান্তে বসে আমরা করি জীবনের মূল্যবান পাঠ। জ্ঞানের পৃথিবীতে তিনি আমাদের দ্বিতীয়বার দান করেন। প্রত্যেকের জীবনে প্রিয় বলে কেউ না কেউ থাকেন। ঠিক তেমনিই আমাদের সবচেয়ে পছন্দের সে মানুষটি তিনি হলেন মোর্শেদ আলম স্যার। তিনি শুধু প্রিয় শিক্ষকই নন বরং আমাদের জীবনে প্রতিটি ক্ষেত্রে এক অনুপম পথ প্রদর্শক। স্যার একজন সাদা মনের মানুষ। এক কথায় ভালো মানুষ বলতে যা বোঝায় প্রায় সবগুণ তার মধ্যে বিরাজমান আছে। যার চুল পরিমাণ বিন্দু পর্যন্ত মন্দ দিক মানুষের চোখে আজো ধরা পড়েনি। বহরিয়া নূরুল ইসলাম উচ্চ বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে স্যার সততা, নিষ্ঠা ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। তার হাত ধরেই সাফল্যের পথে এগিয়ে চলছে বহরিয়া হাই স্কুলটি। শ্রেণীকক্ষে পাঠদানের দক্ষতা ও নৈপূণ্যের মুগ্ধতায় অসংখ্য শিক্ষার্থীর প্রিয় এই শিক্ষক। আমার ক্ষুদ্র উপলব্ধি দ্বারা বলতে চাই, মোর্শেদ স্যার ছিলেন স্নেহে পিতার ন্যায়, বিপদে বন্ধু। অসংখ্য মানবীয় গুণে গুণান্বিত এবং বিদ্যাদানে আতিশয় দক্ষতাসম্পন্ন। তিনি সবসময় হাসিমুখে কথা বলতেন। তিনি একজন ভালো শিক্ষকই নন, একজন ভালো মানুষও বটে। যতোদিন এ পৃথিবীতে বেঁচে থাকবো, ততোদিন তিনি থাকবেন আমাদের সকলের হৃদয়ে আদর্শ ব্যক্তিত্ব হয়ে।

আজকের পাঠকসংখ্যা
৬২৩৬৫৯
পুরোন সংখ্যা