চাঁদপুর। শুক্রবার ১ ডিসেম্বর ২০১৭। ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

বিজ্ঞাপন দিন

jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩২-সূরা আহযাব

৭৩ আয়াত, ৯ রুকু, ‘মক্কী’

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

০৩। আপনি আল্লাহর উপর ভরসা করুন। কার্যনির্বাহীরূপে আল্লাহই যথেষ্ট।

০৪। আল্লাহ্ কোনো মানুষের মধ্যে দুটি হৃদয় স্থাপন করেন নি। তোমাদের স্ত্রীগণ যাদের সাথে তোমরা যিহার কর, তাদেরকে তোমাদের জননী করেন নি এবং তোমাদের পোষ্যপুত্রদেরকে তোমাদের পুত্র করেন নি। এগুলো তোমাদের মুখের কথা মাত্র। আল্লাহ্ ন্যায় কথা বলেন এবং পথ প্রদর্শন করেন।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


চা খাদ্য নহে ইহা মাদক উত্তেজক গুণবিশিষ্ট।

-ডাঃ জন ফিসার।


মায়ের পদতলে সন্তানের বেহেস্ত।


ফটো গ্যালারি
তৃসিকা সাহা ডাক্তার হতে ইচ্ছুক
০১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


শিশুকণ্ঠ বিভাগের মুখোমুখি হয় চাঁদপুর উদয়ন শিশু বিদ্যালয়ের কেজি শ্রেণির ছাত্রী তৃসিকা সাহা। সে জানায় তার স্বপ্নের কথা। বললো, বড় হয়ে সে ডাক্তার হতে ইচ্ছুক। শিশুকণ্ঠে দেয়া তার সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো-



 



শিশুকণ্ঠ : কেমন আছো?



তৃসিকা : ভালো আছি।



শিশুকণ্ঠ : কোথায় পড়াশেনা করছো?



তৃসিকা : চাঁদপুর উদয়ন শিশু বিদ্যালয়ে।



শিশুকণ্ঠ : তোমার প্রিয় শিক্ষক কে এবং কেন?



তৃসিকা : মিলি আচার্যী ম্যাডাম। তিনি আমাদের মায়ের মতো স্নেহ করেন।



 



শিশুকণ্ঠ : বিকেলে খেলাধুলা করো? কী খেলো?



তৃসিকা : হ্যাঁ খেলাধুলা করি। লুকোচুরি খেলা করতে আমার ভালো লাগে।



শিশুকণ্ঠ : তোমার শখ কী? কী করতে ভালো লাগে?



তৃসিকা : সাজগোজ করা এবং ড্রইং করতে ভালো লাগে।



শিশুকণ্ঠ : তোমার প্রিয় খাবার কী?



তৃসিকা : বিরিয়ানী।



শিশুকণ্ঠ : বড় হয়ে তুমি কী হতে চাও?



তৃসিকা : ডাক্তার হতে চাই।



শিশুকণ্ঠ : তুমি পারো এমন একটি কবিতার নাম আমাদেরকে বলো।



তৃসিকা : 'আমাদের গ্রাম'।



শিশুকণ্ঠ : তুমি কি শিশুকণ্ঠ পড়ো?



তৃসিকা : হ্যাঁ পড়ি।



শিশুকণ্ঠ : তোমার বন্ধু কারা ? তাদের সম্পর্কে কিছু বলো।



তৃসিকা : আমার বন্ধু রুদ্র ও মদীনা। এরা আমার মতো বিরিয়ানী খেতে পছন্দ করে।



উল্লেখ্য, তৃসিকার বাবা সজল সাহা একজন ব্যবসায়ী এবং মা তিথী সাহা গৃহিণী। তারা চাঁদপুর শহরের বাসিন্দা।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৭৮৬২১
পুরোন সংখ্যা