চাঁদপুর। শুক্রবার ১০ আগস্ট ২০১৮। ২৬ শ্রাবণ ১৪২৫। ২৭ জিলকদ ১৪৩৯
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • এক কিংবদন্তীর প্রস্থান চাঁদপুরবাসী শোকাহত
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪০-সূরা আল মু’মিন

৮৫ আয়াত, ৯ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৩৪। ইতিপূর্বে তোমাদের কাছে ইউসুফ সুস্পষ্ট প্রমাণাদিসহ আগমন করেছিলো, অতঃপর তোমরা তার আনীত বিষয়ে সন্দেহই পোষণ করতে। অবশেষে যখন সে মারা গেলো, তখন তোমরা বলতে শুরু করলে, আল্লাহ ইউসুফের পরে আর কাউকে রসূলরূপে পাঠাবেন না। এমনিভাবে আল্লাহ সীমালঙ্গনকারী, সংশয়ী ব্যক্তিকে পথভ্রষ্ট করেন।

৩৫। যারা নিজেদের কাছে আগত কোনো দলিল ছাড়াই আল্লাহর আয়াত সম্পর্কে বিতর্ক করে, তাদের একজন আল্লাহ ও মুমিনদের কাছে খুবই অসন্তোষজনক। এমনিভাবে আল্লাহ প্রত্যেক অহঙ্কারী-স্বৈরাচারী ব্যক্তির অন্তরে মোহর এঁটে দেন।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


উপন্যাস মানুষকে জীবন সম্পর্কে সচেতন করে তোলে।

 -রবার্ট হেনরিক।


কাউকে অভিশাপ দেওয়া সত্যপরায়ণ ব্যক্তির উচিত নয়।



 


ফটো গ্যালারি
বই দেয়া নেয়া
সিন্থিয়া শারমিন
১০ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+

বই পড়ার অভ্যেসটা ছোটবেলায় গড়ে উঠেছে। অনেকের কাছে আপনি বইপোকা। এই পড়া থেকে বই সংগ্রহ করার অভ্যাসটাও গড়ে উঠেছে আপনার ভেতর। জানি, সবসময় বই কিনে পড়া সম্ভব হয় না। ফলে কাছের মানুষ থেকে বই চেয়ে পড়তে হয় ফেরত দেয়ার শর্তে। আপনার ব্যক্তিগত সংগ্রহ থেকেও বই নেয় অনেকে। এই বই দেয়া-নেওয়া সাধারণ ব্যাপার। কিন্তু অদ্ভুত হলেও সত্য, বই পড়তে নিয়ে অনেকেই তা আর ফেরত দেন না। কেউ কেউ ফেরত দিলেও তার দফারফা এক করে ছাড়েন। অনেকে আবার হারিয়েও বসেন। বই ধার নেয়াটা স্বাভাবিক। তবে এটা মাথায় রাখতে হবে যে, ধার নেয়া বই মানেই দায়িত্ববোধ জাগিয়ে রেখে তা পড়ে ফেরত দেয়া। চলুন, বই ধার দেয়া-নেওয়ার বুদ্ধি জেনে নিই-

টুকে রাখা : বই যার কাছ থেকে নেবেন কিংবা যাকে ধার দেবেন তার নাম-ঠিকানা জানা থাকলেও তা টুকে রাখুন। ফেরত দেয়া বা নেয়ার সময়ও উল্লেখ করুন তাতে। পারলে লেখাটা তাকে দেখিয়ে লিখুন। এতে দু'জনের ভেতরই ঘটনাটা জেগে থাকবে। তা না হলে ভেঙে যেতে পারে সম্পর্কও।

আগেই বলে নিন : বই নেয়ার আগেই কথা দিয়ে নিন। আর বই নেয়ার সময় যেই তারিখে তা ফেরত দেয়ার কথা দেবেন সেই তারিখেই তা বুঝিয়ে দিন। কোনো কারণে নির্দিষ্ট তারিখে ফেরত দিতে না পারলে নিজ থেকে যোগাযোগ করে সময় বাড়িয়ে নিন। তা না করে যদি যোগাযোগ বন্ধ করে দেন তবে পরে আর বই নাও পেতে পারেন।

নিজের মনে করে কাটাকুটি : অন্যের বইকে নিজের বই মনে করে কখনও কলম বা পেন্সিল দিয়ে কাটাকুটি করবেন না। বইয়ের পৃষ্ঠা ভাঁজও করবেন না। যেভাবে বই নেবেন ঠিক সেভাবেই ফেরত দেয়ার চেষ্টা করুন। যার কাছ থেকে বই এনেছেন তারা এই কাটাকুটি আর পৃষ্ঠার ভাঁজ পছন্দ না করাটাই স্বাভাবিক।

খাবার টেবিলে সতর্কতা : খাবার টেবিলে বই রাখবেন না। এ ছাড়া খাওয়ার সময়ও বই কাছে রাখবেন না। বইয়ের পাতায় ঝোল বা পানি লাগলে বইয়ের পাতা নষ্ট হয়ে যায়। মনে রাখবেন, বই কিন্তু অন্যের!

একাধিকে না : একসঙ্গে একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে একাধিক বই ধার নেবেন না। একটি বই পড়ে আরেকটি বই নিতে পারেন। এ ছাড়া বইয়ের পাতা উল্টানোর সময় থুতু ব্যবহার করবেন না। পারলে বুকমার্ক ব্যবহার করুন।

ধারের ওপর ধার : কারও কাছ থেকে বই ধার নিয়ে সে বইয়ের মালিকের অনুমতি ছাড়া অন্য কাউকে একই বই পড়তে দেবেন না। সেই ব্যক্তি আপনার যত কাছেরই হোক না কেন।

পুরনোর বদলে নতুন : অন্যের কাছ থেকে ধার করা বই পড়তে গিয়ে নষ্ট হলে কিংবা হারিয়ে গেলে বইয়ের মালিককে নতুন বই কিনে দেয়ার চেষ্টা করুন। বই ফেরত দেয়ার সময় বইয়ের মালিকের সঙ্গে বইয়ের কাহিনী নিয়ে আলাপ করুন। কাহিনী ভালো লাগলে এই বইয়ের কাছাকাছি অন্য কোনো বই তার কাছে থাকলে তা পড়ার আগ্রহের কথা জানাতে পারেন। তিনিও তা আনন্দের সঙ্গে আপনার হাতে তুলে দেবেন।

আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৫৬০৭৫
পুরোন সংখ্যা