চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ৮ আগস্ট ২০১৯, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ৬ জিলহজ ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুরে স্কুল শিক্ষিকা জয়ন্তীর চাঞ্চল্যকর হত্যার রহস্য উদঘাটন * হত্যাকারী ডিস ব্যবসায়ী লাইনম্যান জামাল ও আনিসুর রহমান আটক
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৪-সূরা কামার


৬২ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


 


 


 


assets/data_files/web

একজন অল্প বয়স্ক মেয়ে স্ত্রী হিসেবে অথবা মা হিসেবে কোনোটাতেই ভালো নয়। -নজ এডামস।


 


 


নফস্কে দমন করাই সর্বপ্রথম জেহাদ।


 


 


ফটো গ্যালারি
কোরবানি
কাজী নাহিন
০৮ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


রমজানের বয়স মাত্র ১৯ বছর। রমজান পরিবারসহ শহরের একটি এলাকায় বসবাস করে। রমজানের পরিবারের সবাই ধার্মিক। সে ছোট বেলা থেকেই নামাজ পড়ে, আল্লাহকে ভয় পায় এবং ইসলামের সকল নিয়মকানুন মেনে চলতে ও নতুন নতুন ইসলামিক জ্ঞান সম্পর্কে ধারণা নিতে চেষ্টা করে।



তার বাসস্থান এলাকায় প্রতিবেশীরা সবাই মিলে একদিন ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করে। সেখানে রমজান উপস্থিত হয় এবং কোরবানির ঈদ সম্পর্কে হাদিস জানতে পারে। জানতে পারে আল্লাহতায়ালার আনুগত্য এবং তার সন্তুষ্টি অর্জনের কথা। আরো জানতে পারে কার উপর কোরবানি ওয়াজিব, কারা কোরবানি দিতে পারবে আর কারা দিতে পারবে না। আর কোরবানি দেওয়া ওয়াজিব না হলেও কিভাবে দিবে সে ব্যাপারে সে স্পষ্ট ধারণা নেয়। সে হিসেবে রমজানের এখনও কোরবানি ওয়াজিব হয় নি। কেননা কোরবানি দেওয়ার যে সামর্থ্য থাকা প্রয়োজন তা তার নেই। কোরবানি দেওয়ার জন্যে যে পরিমাণ সম্পদের মালিক হতে হয় তা তার ছিলো না। কোরবানি দেওয়ার জন্যে একটি নিসাব পরিমাণ সম্পদের মালিক হতে হয়। কিন্তু তারপরও আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য সে কোরবানি দিতে ইচ্ছে পোষণ করে। তারপর থেকে রমজান মনে মনে নিয়ত করে, নিসাব পরিমাণ সম্পদের মালিক না হয়েছে তো কি হয়েছে, আল্লাহর রাস্তায় আল্লাহর নৈকট্য ও সন্তুষ্টির জন্যে সে কোরবানি দিবে। তাই রমজান সারা বছর নিজের ব্যক্তিগত কিছু টাকা জমিয়ে রাখে এবং কোরবানি দিবে বলে বাবা-মাকে তার ইচ্ছের কথা পেশ করে। রমজানের বাবা-মা তা শুনে আনন্দে খুশিতে আত্মহারা হয়ে যায়। তাই তার বাবা তাকেসহ কোরবানির হাটে গিয়ে তার পছন্দ মতো তার জমানো অর্থ দিয়ে একটি ছাগল ক্রয় করে কোরবানি দেওয়ার জন্যে। এভাবেই রমজানের মতো শিশু, কিশোরদের ছোট বেলা থেকেই আল্লাহর রাস্তায় কোরবানি দেওয়ার নিয়ত করলে বড় হয়ে নিসাব পরিমাণ সম্পদের মালিক হলেই কোরবানি দিতে দ্বিধাবোধ করবে না। আমাদের সকলের উচিত ছোটবেলা থেকেই কোরবানি সম্পর্কে আল্লাহর রাস্তায় ত্যাগের কথা জানা ও বুঝা, এতে আখিরাতে অনেক সওয়াব হাছিল করা যাবে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৪৭১২৯
পুরোন সংখ্যা