চাঁদপুর। মঙ্গলবার ১৪ নভেম্বর ২০১৭। ৩০ কার্তিক ১৪২৪। ২৪ সফর ১৪৩৯

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • ---------
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩১-সূরা লোকমান


৩৪ আয়াত, ৪ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৩৪। কিয়ামতের জ্ঞান কেবল আল্লাহর নিকট রহিয়াছে, তিনি বৃষ্টি বর্ষণ করেন এবং তিনি জানেন যাহা গর্ভাশয়ে আছে। কেহ জানে না আগামীকাল সে কি অর্জন করিবে এবং কেহ জানে না কোন স্থানে তাহার মৃত্যু ঘটিবে। নিশ্চয়ই আল্লাহ্ সর্বজ্ঞ, সর্ববিষয়ে অবহিত।


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 

অতিরিক্ত ঔষধ রোগ বৃদ্ধি করে।  -ভার্জিল।


মায়ের পদতলে সন্তানদের বেহেশত।


এমন বিশৃঙ্খলা শক্ত হাতে দমন করা হোক
১৪ নভেম্বর, ২০১৭ ১৯:৫৮:১৪
প্রিন্টঅ-অ+
কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড ও দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) থেকে প্রত্যেকটি বিদ্যালয়ে চিঠি পাঠিয়ে স্পষ্ট নির্দেশনা দেয়া হয়েছে যে, নির্বাচনী পরীক্ষায় অকৃতকার্য কাউকে এসএসসি পরীক্ষায় ফরম পূরণের সুযোগ দেয়া যাবে না। এর ব্যত্যয় ঘটলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ও ব্যবস্থাপনা কমিটির বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ কারণে সচেতন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অকৃতকার্য কাউকে এবার ফরম পূরণের সুযোগ দিচ্ছে না। জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ কিংবা প্রভাবশালী অন্য কাউকে দিয়ে ফোন করিয়েও এবার বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষককে দিয়ে কোনো অকৃতকার্য পরীক্ষার্থীকে ফরম পূরণ করার সুযোগ দেয়া যাচ্ছে না। মোটা অংকের অবৈধ লেনদেনের অফার দিয়েও এবার পরীক্ষার ফরম পূরণ করার সুযোগ মিলছে না বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। এতেই অনেক অকৃতকার্য পরীক্ষার্থী তাদের প্রভাবশালী অভিভাবক, আত্মীয় ও শুভাকাক্সক্ষীরা ভীষণ নাখোশ এবং বিক্ষুব্ধ। তারা তাদের ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটাচ্ছে বিদ্যালয়ে ভাংচুর চালিয়ে কিংবা প্রধান শিক্ষকসহ শিক্ষকদের অবরুদ্ধ রেখে। এ সংক্রান্ত ঘটনাই সাম্প্রতিক সময়ে চাঁদপুর কণ্ঠসহ অন্যান্য পত্রিকায় সংবাদ শিরোনাম হয়ে চলছে।

সুদূর অতীত বা নিকট অতীতের বাস্তবচিত্র ছিলো এমন যে, অধিকাংশ বিদ্যালয়ে নির্বাচনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা সহজে এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের সুযোগ পেতো আর অনুত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা জরিমানা গুণে, সিকিউরিটি মানি  জমা দিয়ে, বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে উপঢৌকনে সন্তুষ্ট করে কিংবা প্রভাবশালী কাউকে দিয়ে ফোন করিয়ে ফরম পূরণের সুযোগ পেতো। এজন্যে অমনোযোগী, ফাঁকিবাজ শিক্ষার্থীরা নির্বাচনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবার বিষয়টিকে আমলে নিতো না। এবার বোর্ড ও দুদকের নির্দেশনা সে সুযোগে বাধ সেজেছে।

সরকার সকল ক্ষেত্রে অনিয়ম বর্জন করে শুদ্ধাচার কৌশল অবলম্বনের ওপর অতীতের চেয়ে অনেক বেশি গুরুত্বারোপ করেছেন। তারই অংশ হচ্ছে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় ফরম পূরণের ক্ষেত্রে নির্বাচনী পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণদের কোনোভাবেই সুযোগ না দিতে শিক্ষা বোর্ড ও দুদকের নির্দেশনা। পরীক্ষায় ফরম পূরণ সংক্রান্ত অনিয়ম আমাদের আশিভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ওপর দীর্ঘকাল যাবৎ জগদ্দল পাথরের ন্যায় চেপে বসে আছে। সেজন্যে উক্ত নির্দেশনা কার্যকর করতে গিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে অনেক বড় ধকল সামলাতে হচ্ছে বলে স্পষ্ট ধারণা করা যায়। সেজন্যে তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে স্থানীয় প্রশাসন, 

 

শিক্ষা প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। এদের সমন্বিত সহযোগিতায় পরীক্ষার ফরম পূরণ সংক্রান্ত যাবতীয় বিশৃঙ্খলা কঠোর হস্তে দমন করতে হবে। অন্যথায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো যে ক্ষতির সম্মুখীন হবে তা অপূরণীয় থেকে নূতন সমস্যার জন্ম দেবে। আমরা আগামী বছর নির্বাচনী পরীক্ষা শুরুর ২/৩ মাস আগে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদেরকে ডেকে শিক্ষা বোর্ড ও দুদকের উপরোক্ত নির্দেশনা সম্পর্কে অবহিতকরণ ও সতর্ক করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণের জন্যে জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসন ও শিক্ষা প্রশাসনকে পদক্ষেপ গ্রহণের অনুরোধ জানাচ্ছি।

এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫২২৭৭০
পুরোন সংখ্যা