চাঁদপুর। শুক্রবার ১৯ জানুয়ারি ২০১৮। ৬ মাঘ ১৪২৪। ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯
kzai
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩৪-সূরা সাবা

৫৪ আয়াত, ৬ রুকু, মাক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

১৪। সাবাব অধিবাসীদের জন্যে তাদের বাসভূমিতে ছিল এক নিদর্শন-দুটি উদ্যান, একটি ডানদিকে, একটি বামদিকে। তোমরা তোমাদের পালনকর্তার রিযিক খাও এবং তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর। স্বাস্থ্যকর শহর এবং ক্ষমাশীল পালনকর্তা।

১৫। যখন আমি সোলায়মানের মৃত্যু ঘটলাম, তখন ঘুণ পোকাই জিনদেরকে তাঁর মৃত্যু সম্পর্কে অবহিত করল। সোলায়মানের লাঠি খেয়ে যাচ্ছিল। যখন তিনি মাটিতে পড়ে গেলেন, তখন জিনেরা বুঝতে পারল যে, অদৃশ্য বিষয়ের জ্ঞান থাকলে তারা এই লাঞ্ছনাপূর্ণ শাস্তিতে আবদ্ধ থাকতো না।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


স্বপ্ন সেটা নয় যেটা মানুষ, ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে দেখে; স্বপ্ন সেটাই যেটা পূরণের প্রত্যাশা, মানুষকে ঘুমাতে দেয় না।  

                -এপিজে আব্দুল কালাম।


ইহা খোদার আদেশ যে, তোমরা নারী জাতিকে সম্মান করবে। কারণ, তারাই তোমাদের জননী, ভগ্নি ও ফুফু।


ফটো গ্যালারি
মতলব উত্তরে আগুন নিয়ে খেলা!
১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৮:৫২:১৫
প্রিন্টঅ-অ+


মতলব উত্তর উপজেলাধীন ফরাজিকান্দি ইউনিয়নের রামদাসপুর গ্রামে গত বুধবার সংঘটিত অগ্নিকা-ের পর স্থানীয় লোকজন ভয়ঙ্কর তথ্য উপস্থাপন করেছেন। তারা জানান, এই গ্রামটিতে গত ক’মাস ধরে বেশ ক’টি বসতঘর, খড়ের স্তূপসহ অনেক কিছুতে আগুন লাগেনি, বরং আগুন লাগানো হয়েছে। এ ব্যাপারে ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বারসহ স্থানীয় গণ্যমান্যদের জানানো হয়েছে। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে তারা অনুসন্ধানী মানসিকতা পোষণ না করায় এবং প্রতিকারে উদ্যোগী না হওয়ায় অগ্নিকা-ের ঘটনা বেড়ে চলছে। স্থানীয় লোকজন উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, দু-একবার আগুন লাগলে ভাবতাম, নিছক দুর্ঘটনা। কিন্তু ১০ থেকে ১২ বার একই এলাকায় আগুন লাগার বিষয়টি দুর্ঘটনা হতে পারে না। কেউ না কেউ অত্র এলাকায় আগুন নিয়ে খেলার কাজটি পর্দার আড়ালে থেকে নিখুঁতভাবে সম্পাদন করে চলছে। এ ব্যাপারে ব্যাপক অনুসন্ধান চালিয়ে আগুন নিয়ে যারা জঘন্য তৎপরতায় লিপ্ত, তাদেরকে চিহ্নিত করতে অবিলম্বে স্থানীয় উপজেলা ও থানা প্রশাসনের প্রয়োজনীয় সকল উদ্যোগ গ্রহণ করা দরকার।

    আমরা মনে করি, রামদাসপুর গ্রামের যারা সচেতন ব্যক্তি তারা গভীর পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে আগুন নিয়ে জঘন্য খেলায় কারো লিপ্ত থাকার বিষয়টি আঁচ করতে পেরেছেন। চলমান শীত মৌসুমে আগুন লাগিয়ে কাউকে গৃহহীন ও বিপন্ন করার ঘৃণ্য প্রয়াসে যারা উৎকট আনন্দ খুঁজে পায়, তারা নিঃসন্দেহে মানব সমাজের জঘন্য কীট। এই কীটদের খুঁজে বের করা আমাদের দেশের গোয়েন্দা সংস্থাসমূহের মেধাবী, বুদ্ধিদীপ্ত জনবলের জন্যে খুবই কঠিন কাজ নয়। অতএব, এ ব্যাপারে ঔদাসীন্য কাম্য নয়। আমরা মনে করি, রামদাসপুর গ্রামে সংঘটিত অগ্নিকা-সমূহকে গুরুত্বহীনভাবে দেখার অবকাশ নেই।


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৭১৭২৭
পুরোন সংখ্যা