চাঁদপুর। সোমবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮। ৯ আশ্বিন ১৪২৫। ১৩ মহররম ১৪৪০
jibon dip
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪১-সূরা হা-মীম আস্সাজদাহ,

৫৪ আয়াত, ৬ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৪৯। মানুষ কল্যাণ (ধন-সম্পদ) প্রার্থনায় কোন ক্লান্তিবোধ করে না; কিন্তু যখন তাকে দুঃখ-কষ্ট স্পর্শ করে তখন সে অত্যন্ত নিরাশ ও হতাশ হয়ে পড়ে।

৫০। দুঃখ-কষ্ট স্পর্শ করবার পর যদি তাকে আমি অনুগ্রহের আস্বাদ দিই তখন সে বলেই থাকে : এটা আমার প্রাপ্য এবং আমি মনে করি না যে, কিয়ামত সংঘটিত হবে, আর আমি যদি আমার প্রতিপালকের নিকট প্রত্যাবর্তিত হইও তবে তাঁর নিকট তো আমার জন্যে কল্যাণই থাকবে। আমি কাফিরদেরকে তাদের কৃতকর্ম সম্বন্ধে অবশ্যই অবহিত করবো এবং তাদেরকে আস্বাদান করাবো কঠোর শাস্তি।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন



 


যে মানুষ রাস্তায় থাকে সে আকাশের তারার খোঁজ রাখে না।                    


-ইমারসন।


যারা সংসার থেকে চলে গেছে তাদের দোষ কীর্তন করো না।



 


ফটো গ্যালারি
আমাদের কথা
২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


মানুষের জীবনে ভাষা সাহিত্য ও সংস্কৃতির রয়েছে অপ্রতিরোধ্য প্রভাব। সে প্রভাব কখনো দ্রোহের আবার কখনো সুন্দরের। সভ্যতার সুন্দরতম ফসল হচ্ছে সংস্কৃতি, কর্মে ও চিন্তায় যার প্রতিফলনই একজন সংস্কৃতিকর্মীর মূল লক্ষ্য। 'সংস্কৃতি মানে প্রকৃতি সংসার ও মানব সংসারের মধ্যে অসংখ্য অনুভূতির শিকড় চারিয়ে দিয়ে বিচিত্র রস টেনে বাঁচা।'



মানুষের সংস্কৃতি আছে, এমন অন্য জীবের নেই। মানুষ হিসেবে পরিচয় হচ্ছে ব্যক্তির সংস্কৃতি। সংস্কৃতির জন্যও মরণপণ যুদ্ধ করতে হয়। আর নিজের সংস্কৃতিকে রক্ষাকল্পে আমাদের রয়েছে বিসর্জন এবং আন্দোলনের বর্ণাঢ্য ইতিহাস। সেই ধারাবাহিকতায় এগিয়ে চলছে সংস্কৃতিবানদের যাবতীয় কর্মকলা।



মেঘনা ডাকাতিয়া বিধৌত চাঁদপুর জাতীয় মাছ ইলিশের শহর। ইলিশকে ঘিরে এখানে আশা, হতাশা, উৎসাহ, উত্তেজনা কোনটিরই কমতি নেই। ইলিশের সাথে দেশ-বিদেশ, দুর-দূরান্তে পেঁৗছে যায় চাঁদপুরের মিঠা পানির গন্ধ। তাই ইলিশ চাঁদপুরবাসীর অহঙ্কারের অন্যতম অনুষঙ্গ।



জাটকা নিধন রোধ, মা ইলিশ রক্ষা, ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধি ও নদী দূষণ রোধসহ দেশের অর্থনীতিতে ইলিশের ইতিবাচকতা সম্পর্কে আনুষ্ঠানিকভাবে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে হারুন আল রশীদের পরিকল্পনায় ২০০৯ সাল থেকে চতুরঙ্গ সাংস্কৃতিক সংগঠন কর্তৃর্ক 'ইলিশ উৎসব' উদ্যাপিত হচ্ছে।



সিলেটের যেমন চা, রাজশাহীর আম, দিনাজপুরের লিচু, তেমনি চাঁদপুরের ইলিশ একইভাবে আজ দেশের সীমা ছাড়িয়ে বিদেশেও প্রচারিত হচ্ছে। পৃথিবীর অন্যতম সুস্বাদু মাছ ইলিশের নাম উচ্চারণ মাত্রই চলে আসে চাঁদপুরের নাম, এই গৌরবের ঝা-া উড়িয়ে মূলত প্রতি বছর 'ইলিশ উৎসব' উদ্যাপিত হচ্ছে। জেলার সভ্য-সাধারণ থেকে আরম্ভ করে জেলে-মেছু, নৌ-মালিক এবং কৃষক সমাজ পর্যন্ত এ উৎসবের মাধ্যমে পেঁৗছে যাচ্ছে ইলিশ সম্পদ রক্ষার প্রয়োজনীয় বার্তা।



জনমানুষের অংশগ্রহণ, দৈনিক পত্রিকা এবং অন্যান্য ইলেকট্রনিক সংবাদ মাধ্যমে দেশব্যাপী প্রতিবছর প্রচারিত হচ্ছে উৎসবের আনুষ্ঠানিক কর্মসূচি। তাই কখন 'ইলিশ উৎসব' চাঁদপুরের জাতীয় লোকজ উৎসব হিসেবে ঘোষিত হবে এ সংবাদ শুনতে চাঁদপুরবাসী অধীর আগ্রহে কান পেতে আছে। ১০ম বারের ৮ দিনব্যাপী এবারেও ৩য় বারের ন্যায় উৎসবের প্রধান পৃষ্ঠপোষক হয়ে 'প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ' আমাদের প্রণোদিত করেছে, তাদের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ। প্রতি বছরের ধারাবাহিকতায় এবারও উৎসবকে সামনে রেখে যারা ক্রমাগত উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছেন এবং যারা চিন্তনা, শ্রম এবং পরামর্শের মাধ্যমে আমাদের প্রেষিত করছে তাদের সবাইকে অশেষ ধন্যবাদ।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৮৭৭৪২
পুরোন সংখ্যা