চাঁদপুর। মঙ্গলবার ২১ মার্চ ২০১৭। ৭ চৈত্র ১৪২৩। ২১ জমাদিউস সানি ১৪৩৮

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • --
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৭-সূরা নাম্ল 


৯৩ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৫৫। ‘তোমরা কি কামতৃপ্তির জন্য নারীকে ছাড়িয়ে পুরুষে উপগত হইবে? তোমরা তো এক অজ্ঞ সম্প্রদায়।’ 


৫৬। উত্তরে তাহার সম্প্রদায় শুধু বলিল, ‘লূত-পরিবারকে তোমাদের জনপদ হইতে বহিস্কৃত কর, ইহারা তো এমন লোক যাহারা পবিত্র সাজিতে চাহে।’  


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


কলমকে হৃদয়ের জিহ্বা বলা যায়।     -কারভেনটেস।

যে মুসলমান অবৈধ (হারাম) বস্তু হইতে দূরে থাকে ও ভিক্ষাবৃত্তি হইতে দূরে থাকে, যাহার শুধু একটি পরিবার (স্ত্রী), খোদাতায়ালা তাহাকেই ভালোবাসেন।   


ফটো গ্যালারি
ইন্টারনেটের তার পেঁচিয়ে ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে মাদ্রাসা ছাত্র আহত
বাদল মজুমদার
২১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চলন্ত ট্রেনের ছাদে ছিলো মাদ্রাসা ছাত্র মোস্তফা। এমন অবস্থায় উপর দিয়ে টানানো ইন্টারনেটের তারের সাথে পেচিয়ে ট্রেনের ছাদ থেকে নিচে পড়ে মোস্তফা গুরুতর আহত হয়। গতকাল সোমবার বেলা পৌনে ১টায় চাঁদপুর শহরের সাবেক ছায়াবাণী সিনেমা হলের নিকট রেলক্রসিং এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। চট্টগ্রাম থেকে আসা সাগারিকা ট্রেনের ছাদে ছিলো মোস্তফা। সে আশিকাটি ইউনিয়নস্থ হোসেনপুর মাদ্রাসার নবম শ্রেণীর ছাত্র। মোস্তফা হোসেনপুর গ্রামের খোকন সর্দারের ছেলে।



আহত মোস্তফার সাথে একই ট্রেনে থাকা শাহতলী হাফানিয়া এমএম নুরুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র সবুজ জানায়, মোস্তফাসহ তারা ৫ বন্ধু আফসান, রাসেল, সজিব ও সবুজ শাহতলী রেল স্টেশনে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা সাগরিকা ট্রেনের ছাদে চড়ে চাঁদপুর আসছিলো। ট্রেনটি চাঁদপুর শহরের ছায়াবাণী রেলক্রসিং এলাকায় আসলে উপর দিয়ে টানা ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের তারের সাথে পেচিয়ে ঝুলতে থাকে মোস্তফা। এক পর্যায়ে তার ছিড়ে নিচে রেললাইনের পাশে মাটিতে পড়ে যায় সে। চলন্ত ট্রেনটি কোর্ট রেলস্টেশন গিয়ে থামলে আমরা চার বন্ধু ট্রেন থেকে নেমে দৌড়ে ঘটনাস্থলে এসে মোস্তফাকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়।



হাসাপাতালের ডিউটিরত ডাক্তার নূরে আলম জানান, মোস্তফা আশঙ্কামুক্ত। তাকে কিছু পরীক্ষা দেয়া হয়েছে। ওই রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত কিছু বলা যাবে না।



এদিকে চাঁদপুর শহরে বিদ্যুৎ খুঁটিতে বিদ্যুৎ লাইনের নিচ দিয়ে অনুমোদন ছাড়া অবৈধভাবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তার, ক্যাবল টানা হয়েছে। এগুলো অনেকটা নিচু হওয়ায় নানা দুর্ঘটনা ঘটছে। এমনকি অনেক জায়গায় এসব তার ঝুলে থাকতে দেখা যায়। দেখা যাচ্ছে, পুরো শহরে বৈদ্যুতিক খুঁটির নিচ দিয়ে ডিস লাইনের তার, ব্রডব্র্যান্ড হিলশা ভিডি, এপিসিএল, বিটিসিএল, বাংলালিংক, গ্রামীণফোন, সিটিসেলসহ আরো বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তার, ক্যাবল টানা রয়েছে। যেগুলোর দ্বারা অনেক বিপজ্জনক ঘটনা ঘটে।



এ ব্যাপারে চাঁদপুর বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ও বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তফিজুর রহমান ও সহকারী প্রকৌশলী শাহাদাত হোসেন জানান, বিদ্যুৎ খুঁটিতে বিদ্যুতের তার ব্যতীত অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানের তার বা ক্যাবল টানা সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ। বিদ্যুৎ লাইনে অন্য তার থাকলে দুর্ঘটনার আশঙ্কা থেকেই যায়। এসব অবৈধ লাইন অপসারণ করতে গেলে আমাদের বিরুদ্ধে মিছিল মিটিং শুরু হয়ে যায়। যার কারণে অপসারণ করা যাচ্ছে না।



ব্রডব্র্যান্ড বিটিসিএল ইন্টারনেটের সাব-ডিলার জাহিদ ইমরান বলেন, সারা বাংলাদেশে বিদ্যুৎ খুঁটিতে আমাদের লাইন টানা আছে। বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন আছে কি না তা আমাদের কর্তৃপক্ষ বলতে পারবে।



এ বিষয়ে স্থানীয়রা জানান, ছায়াবাণী এলাকায় রেলক্রসিংয়ের উপরে বিদ্যুতের তারের নিচে যেভাবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তার ক্যাবল ঝুলে আছে এতে করে আরো বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। ইচ্ছায় হোক বা অনিচ্ছায় হোক শাহতলী ও মৈশাদীর স্কুল কলেজ পড়ুয়া ছাত্রদের ট্রেনের ছাদে ও দরজায় ঝুলে থাকতে দেখা যায়। এতে করে এ ধরনের দুর্ঘটনা ঘটছে। অন্যদিকে রেলপথের আশপাশে বিভিন্ন তার এবং গাছের ডালের সাথে ধাক্কা খেয়ে বিভিন্ন স্থানে দুর্ঘটনা ঘটছে। রেল কর্তৃপক্ষ যদি এসব সমস্যার সমাধান না করে পরবর্তীতে আরো বড় ধরনের দুর্ঘটনা হতে পারে।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৩৩৮২৬
পুরোন সংখ্যা