চাঁদপুর। শুক্রবার ২১ এপ্রিল ২০১৭। ৮ বৈশাখ ১৪২৪। ২৩ রজব ১৪৩৮

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • উচ্চ মাধ্যমিকে পাস ৬৮.৯১ শতাংশ
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৭-সূরা নাম্ল 


৯৩ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৯২। আমি আরও আদিষ্ট হইয়াছি, কুরআন তিলাওয়াত করিতে; অতএব যে ব্যক্তি সৎপথ অনুসরণ করে, সে সৎপথ অনুসুরণ করে নিজেরই কল্যাণের জন্যে। আর কেহ ভ্রান্ত পথ অবলম্বন করিলে তুমি বলিও, ‘আমি তো কেবল সতর্ককারীদের মধ্যে একজন।   


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 

একজন ভালো প্রশাসকই একজন ভালো রাজা হতে পারে।                      -মিচেল জিন। 


ধন দৌলত ফিরিয়া আসে এবং একটি শুধু কর্মই সঙ্গে থাকে।  


হাজীগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর খুনির গ্রাম থেকে ১২টি তাজা ককটেল উদ্ধার আতঙ্কিত এলাকাবাসী
কামরুজ্জামান টুটুল
২১ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


গতকাল বৃহস্পতিবার হাজীগঞ্জ থানা পুলিশ ১২টি তাজা ককটেল ও ককটেল তৈরির সরঞ্জামাদি উদ্ধার করেছে। এদিন দুপুরের কিছু পরে উপজেলার বড়কুল পূর্ব ইউনিয়নের সোনাইমুড়ি গ্রামের জাপানি দুলাল পাটওয়ারীর বাগান থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া ১২টি ককটেল ও ককটেল তৈরির সরঞ্জামাদি পুলিশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। এ গ্রামটি বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীর বাড়ি। স্থানীয় এক নারী পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি শপিং ব্যাগের মধ্যে এই ককটেলগুলোর সন্ধান পান। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ জাবেদুল ইসলামের নেতৃত্বে থানার সেকেন্ড অফিসার আল আমিন, উপ-পরিদর্শক শামছুজ্জামানসহ সঙ্গীয় ফোর্স ককটেল উদ্ধার অভিযানে অংশ নেন। একেবারে অজপাড়াগাঁয়ে জনমানবহীন একটি বাগান বাড়িতে ককটেল পাওয়ার ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।



স্থানীয় সোনাইমুড়ি মুন্সী বাড়ির আঃ কাদেরের স্ত্রী মমতাজ বেগম (৩৫) জানান, এদিন দুপুরের কিছু পরে তিনি বাড়ির পাশের ঐ বাগানে ছাগল চড়াতে যান। তখন তিনি বাগানের দক্ষিণ পশ্চিম কোণে ঢেঁকি শাক বাগানে দুটি ব্যাগ দেখতে পেয়ে এগিয়ে গিয়ে ব্যাগ দুটি খোলা জায়গায় নিয়ে আসেন। ব্যাগের ভেতর কী আছে এমন কৌতূহলে ভেতরের মালামাল খোলা স্থানে ঢেলে দেন। এরপরেই পাশের এলাকার অহিদ নামের এক মাদ্রাসা ছাত্রকে তা দেখার জন্যে ডেকে আনেন। তখন সেই আমাকে বলে এগুলো বোমা। এরপরেই মানুষজন ঘটনাস্থলে জড়ো হতে শুরু করে।



মমতাজ বেগম আরো জানান, ১২টির মধ্যে ৯টি স্কচটেপ প্যাচানো জর্দার কৌটা, ২টি স্কচটেপ ছাড়াই জর্দার কৌটা, আর যেখান থেকে ব্যাগ তুলে আনা হয় সেখানে পড়ে ছিলো আরেকটি কৌটা।



স্থানীয় আহসান হাবীব নামের একজন জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ককটেল ছাড়াও ককটেল তৈরির সরঞ্জামাদি বেস্নড ও কাঁচ ভাঙ্গা, আধা ইঞ্চি মাপের লোহার পেরেক, স্কচটেপ, বিদ্যুতের তার ও খালি তিনটি ড্যানিশ কনডেন্সড মিল্কের কৌটাসহ তিনটি শপিং ব্যাগ উদ্ধার করে।



স্থানীয় গ্রাম পুলিশ নিত্য সূত্রধর চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, আমি ককটেল পাওয়ার খবর শুনে ঘটনাস্থলে দ্রুত ছুটে যাই এবং বিষয়টি থানায় জানাই। একই সময় একই স্থান থেকে ককটেলের পাশে পরিত্যক্ত অবস্থায় ককটেল তৈরির সরঞ্জামাদিও উদ্ধার করা হয়।



স্থানীয় ষাটোর্ধ্ব লেয়াকত আলী খান জানান, ককটেল ও ককটেল তৈরির সরঞ্জামাদি উদ্ধারের ঘটনায় আমরা আতঙ্কে আছি। একটি নিরিবিলি গ্রামে কে বা কারা এই কাজটি করলো।



হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাবেদুল ইসলাম জানান, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে জর্দার কৌটায় তৈরি ১২টি ককটেল উদ্ধার করা হয়েছে। এগুলো পানিতে ভিজিয়ে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ঘটনায় কারা জড়িত থাকতে পারে তা খোঁজে বের করা হবে। আর উদ্ধারকৃত ককটেলগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে নিস্ক্রিয় করা হবে।



উল্লেখ্য, পরিত্যক্ত অবস্থায় ককটেল উদ্ধারের ঘটনাস্থলটি বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীর গ্রামের বাড়ি সোনাইমুড়ি গ্রামের একটি বাগান বাড়ি। জামায়াত-বিএনপি অধ্যুষিত গ্রাম হিসেবে পরিচিত এই সোনাইমুড়ি গ্রামের শান্তিপ্রিয় জনগণ এ ঘটনার নিন্দা জানান, আর প্রকৃত অপরাধীদের খুঁজে বের করার জন্যে প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানান।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৬৬৫৮২
পুরোন সংখ্যা