চাঁদপুর। মঙ্গলবার ১৮ জুলাই ২০১৭। ৩ শ্রাবণ ১৪২৪। ২৩ শাওয়াল ১৪৩৮

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • --
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৮-সূরা কাসাস 


৮৮ আয়াত, ৯ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৮৭। তোমার প্রতি আল্লাহর আয়াত অবতীর্ণ হওয়ার পর উহারা যেন তোমাকে কিছুতেই সেগুলি হইতে বিমুখ না করে। তুমি তোমার প্রতিপালকের দিকে আহ্বান কর এবং কিছুতেই মুশরিকদের অন্তর্ভুক্ত হইও না। ’


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 


বিয়ে করা ভালো কিন্তু প্রতিপালনে অক্ষম হলে না করাই ভালো।


                        -ডাব্লিউ জি বেনহাম।

যে ব্যক্তির স্বভাবে নম্রতা  নেই সে সর্বপ্রকার কল্যাণ হইতে বঞ্চিত।


ফটো গ্যালারি
চেক ফরিদগঞ্জের পরিবর্তে নারায়ণগঞ্জের বন্দর শাখায় নগদায়ন
১৫ দিনেও রেজিস্ট্রি চিঠি গ্রাহকের হাতে না পৌঁছলেও চিঠির ভেতর থাকা চেক ক্যাশের ঘটনায় গ্রাহকের মাথায় হাত
প্রবীর চক্রবর্তী
১৮ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


আমেরিকা থেকে পাঠানো ডাক বিভাগের রেজিস্ট্র্রি চিঠি গত ১৫ দিনেও গ্রাহকের হাতে না পেঁৗছলেও চিঠির মধ্যে থাকা ৫ লাখ টাকার চেক ক্যাশ করে নিয়ে গেছে একটি প্রতারক চক্র। বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ফরিদগঞ্জ শাখার নামে পাঠানো চেকটি গত ১২ জুলাই নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার কৃষি ব্যাংক বন্দর শাখা থেকে নগদায়ন হয়েছে।



চেকটির প্রকৃত মালিক ফরিদগঞ্জ উপজেলার মাহবুবুর রহমান মিলন নামে ফরিদগঞ্জ বাজারের এক ব্যবসায়ী। কৃষি ব্যাংকটি যে ভবনে অবস্থিত সেই ভবনের মালিকও তিনি। এ ব্যাপারে তিনি কৃষি ব্যাংক চাঁদপুর মুখ্য আঞ্চলিক কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক বরাবর প্রতিকার চেয়ে লিখিত আবেদন করার পর সোমবার ব্যাংকের একটি তদন্ত দল ফরিদগঞ্জ কৃষি ব্যাংক শাখায় এসে তদন্ত শুরু করেছেন।



মাহবুবুর রহমান মিলন জানায়, তার পিতাসহ তার পরিবারের বেশ কয়েকজন আমেরিকা প্রবাসী। সম্প্রতি বাড়ির নির্মাণ কাজের জন্য টাকার প্রয়োজন হলে তার ভাই মাসুদুর রহমান আমেরিকার জেকসন হাইট থেকে গত ১ জুলাই একটি রেজিস্ট্রি চিঠির সাথে ৫ লাখ টাকার একটি চেক (বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ফরিদগঞ্জ শাখা সঞ্চয়ী হিসাব নং-১৪৮০৭, চেক নং-৪৭৩৪৬৬৫) তার নামে প্রেরণ করেন। সাথে সাথে মাসুদুর রহমান বিষয়টি ই-মেইলযোগে তাকে নিশ্চিত করার পাশাপাশি কৃষি ব্যাংক ফরিদগঞ্জ শাখার এক কর্মকর্তাকে টেলিফোনে চেক প্রেরণের বিষয়টি জানান। এরপর থেকে তিনি নিয়মিত ফরিদগঞ্জ পোস্ট অফিসে খোঁজ নিলেও অদ্যাবধি চিঠিটি তার হাতে পেঁৗছেনি। কিন্তু এরই মধ্যে গত ১২ জুলাই নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার কৃষি ব্যাংক বন্দর শাখা থেকে চেকটি নগদায়ন হয় বলে কৃষি ব্যাংক ফরিদগঞ্জ অফিস তাকে নিশ্চিত করে।



এ ব্যাপারে তিনি গত ১৬ জুলাই বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক চাঁদপুর মুখ্য আঞ্চলিক কার্যালয়ে লিখিত আবেদন করেন। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে সোমবার দুপুরে ব্যাংকের মুখ্য আঞ্চলিক কর্মকর্তা মোঃ আলী আজগরের নেতৃত্বে দুই সদস্যের একটি তদন্ত দল তদন্ত শুরু করেছেন। তারা ফরিদগঞ্জ কৃষি ব্যাংক শাখা ও স্থানীয় পোস্ট অফিসে গিয়ে তাদের তদন্ত করেন। তিনি জানান, তারা তদন্ত শুরু করেছেন। তবে চেকটি (ঘঙঘ গওঈজ) সাধারণ চেক হওয়ায় ফরিদগঞ্জ শাখা ভিন্ন অন্য কোন শাখা থেকে নগদায়ন হওয়ার কথা নয়। কিভাবে তা সম্ভব হলো বা এর সাথে কারা জড়িত তা নিয়ে তদন্ত চলছে।



এদিকে ফরিদগঞ্জ উপজেলা পোস্ট অফিস সূত্র জানিয়েছে সোমবার পর্যন্ত ওই রেজিস্ট্রি চিঠিটি তাদের অফিসে আসেনি।



বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ফরিদগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক দেলোয়ার হোসেন জানান, চেকটি তার ব্যাংক থেকে চেকের প্রাপক উত্তোলন করার কথা। কিন্তু কিভাবে বন্দর শাখা থেকে ক্যাশ হলো তা বোধগম্য নয়। তাছাড়া সেই শাখা থেকে ক্যাশ হওয়ার পূর্বে এই শাখা থেকে ক্লিয়ারেন্স নেয়ার কথা থাকলেও তা করা হয়নি।



এদিকে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক বন্দর শাখার ব্যবস্থাপকের সাথে মুঠোফোনে কথা বললে ব্যাংকের প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সাথে কথার বলার জন্য বলেন।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৬৬৩০১
পুরোন সংখ্যা