চাঁদপুর। বুধবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭। ৫ আশ্বিন ১৪২৪। ২৮ জ‌িলহজ ১৪৩৮
kzai
muslim-boys

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৯-সূরা আনকাবূত


৬৯ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৬৩। যদি তুমি উহাদিগকে জিজ্ঞাসা কর, আকাশ হইতে বারি বর্ষণ করিয়া কে ভূমিকে সঞ্জীবিত করেন। উহার মৃত্যুর পর উহারা অবশ্যই বলিবে, ‘আল্লাহ’। বল, ‘সমস্ত প্রশংসা আল্লাহরই’। কিন্তু উহাদের অধিকাংশই ইহা অনুধাবন করে না। 


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 

গৃহের শান্তি স্বর্গের শান্তির চেয়ে কম নয়।                       -গোল্ড স্মিথ।


যার মধ্যে বিনয় ও দয়া নেই সে সকল ভালো গুণাবলী হতে বঞ্চিত।


ফটো গ্যালারি
সড়কের মান উন্নয়ন ও প্রশস্তকরণ প্রকল্প
চাঁদপুর-কুমিল্লা মহাসড়কে শতায়ু বছরের গাছ কেটে ফেলা হবে! এমনকি তাল গাছও
কামরুজ্জামান টুটুল
২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কে সড়কের মান ও প্রশস্তসহ উন্নতকরণের লক্ষ্যে কাজ শুরু হবে অচিরেই। আর এই কাজ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে উক্ত সড়কের দু'পাশে থাকা সকল ধরনের গাছ কেটে ফেলা হবে বলে সওজ ও বন বিভাগ সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এই গাছ কাটা তালিকা থেকে বাদ যাচ্ছে না শতায়ু বছরের বহু রেইনট্রি গাছ। এমনকি সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী যেখানে ঘোষণা দিয়েছেন সম্ভাব্য সকল স্থানে তাল গাছ লাগাতে হবে, সেখানে উক্ত সড়কের সকল বয়সী তালগাছ বিক্রির জন্যে মার্কিং বঙ্ করা হয়েছে।



কুমিল্লা সামাজিক বন বিভাগ, বিভাগীয় বন কর্মকর্তার কার্যালয়, কুমিল্লার ২০৫৬ কার্যালয়ের স্মারকের সূত্রে জানা যায়, সড়ক ও জনপথ বিভাগের আওতায় গুরুত্বপূর্ণ আঞ্চলিক মহাসড়কের মান উন্নয়ন ও প্রশস্তকরণ প্রকল্প (কুমিল্লা জোন) বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন সড়কের পাশে অবস্থিত গাছ, স্থাপনা-ইনফিলিটি অতি সত্বর অপসারণ করতে হবে।



২০৫৬ স্মারকের সূত্রে আরো জানা যায়, কুমিল্লা-লালমাই, চাঁদপুর-লক্ষ্মীপুর-বেগমগঞ্জ সড়ক (আর আর ১৪০), ইব্রাহিমপুর-হরিণা-চাঁদপুর (ভাটিয়ালপুর) সড়ক (আর ৮৬০), ওয়্যারলেস বাজার মোড়-ইলিশ চত্বর সড়ক (আর ১৪৬) সমূহ প্রশস্তকরণের কাজে সড়কের পাশে রোপিত গাছ কর্তন ও অপসারণ করার জন্যে নির্বাহী প্রকৌশলী সওজ, সড়ক বিভাগ, চাঁদপুর কর্তৃক নির্বাহী বৃক্ষপালনবিদ, সওজ (অপারেশন বিভাগ), পাইকপাড়া, মিরপুর, ঢাকাকে অনুরোধ করা হয়েছে।



উপরোক্ত স্মারকে আরো বলা হয়েছে, উক্ত সড়কসমূহে থাকা প্রকৃত গাছের মালিকানা নির্ধারণ শেষে বন বিভাগ কর্তৃক রোপিত গাছ মার্কিং করে তালিকা নোট বহিসহ সংশ্লিষ্ট সহকারী বন সংরক্ষকের মাধ্যমে অত্র দপ্তরে পাঠানোর নির্দেশনা প্রদান করা হলো।



ইতোমধ্যে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার পূর্ব অংশের প্রায় ৩ কিলোমিটার গাছ কেটে ফেলা হয়েছে। হাজীগঞ্জ পশ্চিম বাজার থেকে শুরু করে বাবুরহাট পর্যন্ত সড়কের দুপাশের সকল ধরনের গাছে মার্কিং বঙ্ করা হয়েছে। বঙ্ কাটা গাছসমূহের মধ্যে বেশ কিছু রেইনট্রি গাছ রয়েছে, যার বয়স শত বছর অতিক্রম করেছে বলে সংশ্লিষ্ট এলাকার মুরবি্বরা চাঁদপুর কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন। একই সাথে সকল ধরনের তাল গাছ মার্কিং বঙ্ করা হয়েছে।



চাঁদপুর সদর উপজেলার মহামায়া বাজার এলাকার বেশ কজন মুরুবি্ব চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, আমাদের দেখা মতে যতবারই সড়কের কাজ করা হয়েছে, এভাবে গড়ে কোনো গাছ কাটা হয়নি। আমাদের বিদ্যালয়ের পাশে একটি বড় বট গাছ রয়েছে সেটিতেও মার্কিং বঙ্ করা হয়েছে। তাছাড়া সকল তালগাছও মার্কিং বঙ্ করা হয়েছে বিক্রির জন্যে।



ঘোষেরহাট (মিয়ার বাজার) এলাকার সুমন, সবুজ, রিয়াদসহ বেশ কজন যুবক জানান, সড়ক প্রশস্ত করবে এটা আমরা জানি, এটা ভালো উদ্যোগ। কিন্তু প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে দেশের মানুষকে বাঁচাতে যেখানে প্রধানমন্ত্রী নিজে ঘোষণা দিয়েছেন সকলকে তাল গাছ লাগানোর জন্যে, সেখানে সওজ তালগাছগুলোকে বিক্রির জন্যে নাম্বারিং বঙ্ করলো কীভাবে এটা আমাদের বোধগম্য নয়।



চাঁদপুর-কুমিল্লা মহাসড়কের পাশে বাড়ি এমন একজন হচ্ছেন হাজীগঞ্জের বাকিলা এলাকার প্রখ্যাত জমিদার বংশের সন্তান ও অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক রনজিৎ রায় চৌধুরী (৭৯)। এ বিষয়ে এই সর্বজনগ্রাহ্য সম্মানিত ব্যক্তি চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, সেই ছোট বেলা থেকে আমাদের বাড়ির সামনে মহাসড়কের পাশে বড় বড় রেইনট্রি গাছগুলো দেখে আসছি। সেই সময় এই গাছগুলোকে যেমন দেখে আসছি এখনো তেমনই দেখছি। আর এ থেকে ধারণা করা যায় সড়কের পাশের এই রেইট্রি গাছের বয়স অবশ্যই শত বছরের উপরে হবে।



চাঁদপুর সামাজিক বনায়ন ও বন ট্রেনিং সেন্টারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, সওজের জায়গার মধ্যে আমাদের বনায়ন রয়েছে ৩৫ কিলোমিটার। নির্দিষ্ট দপ্তর থেকে চিঠি পেয়ে আমরা গাছগুলোতে বঙ্ কেটেছি মার্কিং করার জন্যে। মার্কিং শেষে তালিকা পাঠানো হবে। তবে কোন্ গাছ রাখা হবে কোন্টা কাটা হবে এ বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।



অপর এক প্রশ্নে এই কর্মকর্তা বলেন, আমার জানা মতে উক্ত প্রকল্পের মধ্যে সড়কের দু'পাশে ৮ ফুট করে মোট ১৬ ফুট প্রশস্ত করা হবে। এই ১৬ ফুটের মধ্যে ৩ ফুট করে উভয় পাশে ৬ ফুট পাকাকরণ হবে আর বাকি ৫ ফুট করে ১০ ফুট মাটির কাজ করে সড়কের বর্ধিতকরণ করা হবে।



নির্বাহী বৃক্ষপালনবিদ (কুমিল্লা সওজ)-এর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী জহিরুল ইসলাম মুঠোফোনে চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, সড়কের মানোন্নয়নে এবং নির্দিষ্ট মাপের মধ্যে যে সকল গাছ কাটা লাগবে তা তো কাটতেই হবে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৭৫৪০৪
পুরোন সংখ্যা