চাঁদপুর। শনিবার ১৮ নভেম্বর ২০১৭। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৪। ২৮ সফর ১৪৩৯
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩২- সূরা সেজদাহ 


৩০ আয়াত, ৪ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৭। যিনি তাঁহার প্রত্যেকটি সৃষ্টিকে সৃজন করিয়াছেন উত্তমরূপে এবং কর্দম হইতে মানব সৃষ্টির সূচনা করিয়াছেন।


৮। অতঃপর তিনি তাহার বংশ উৎপন্ন করেন তুচ্ছ তরল পদার্থের নির্যাস হইতে।


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 

শিশুর ধারণ ক্ষমতা অনুযায়ী তাকে শিক্ষা দেয়া উচিত।                           



যে ব্যক্তির স্বভাবে নম্রতা নেই, সে সর্বপ্রকার কল্যাণ হতে বঞ্চিত। 


 

ফটো গ্যালারি
চাঁদপুরে যুবলীগের স্মরণকালের সেরা জমায়েত
জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ আজ বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ
ডাঃ দীপু মনি এমপি
মিজানুর রহমান
১৮ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী এবং ইউনেস্কো কর্তৃক বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ বিশ্ব ঐতিহ্যের অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় আনন্দ র‌্যালী ও আলোচনা সভা করেছে চাঁদপুর পৌর ও সদর উপজেলা যুবলীগ। এটি ছিলো চাঁদপুরে যুবলীগের স্মরণকালের সেরা জমায়েত। গতকাল শুক্রবার (১৭ নভেম্বর) বিকেলে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় সম্মুখ থেকে বিশাল র‌্যালিটি বের হয়ে শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সামনে এসে শেষ হয়। পরে সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি।



তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, আজ বাংলাদেশ সকল কিছুতেই এগিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষা ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থাসহ অন্যান্য সকল ক্ষেত্রে দেশে অভূতপূর্ব উন্নতি হয়েছে। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবার ক্ষেত্রে আমাদের যুবলীগ ও ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতা-কর্মীর ভূমিকা রয়েছে। তিনি বলেন, যে বক্তব্যের মধ্য দিয়ে আমরা মুক্তিযুদ্ধ করে স্বাধীনতা এনেছি, সেই ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ আজ বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ। বঙ্গবন্ধুর সেই ভাষণ আজ আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পেয়েছে। তিনি বলেন, জাতির পিতা যুদ্ধ বিধ্বস্ত এ দেশটিকে এগিয়ে নিতে যখন কাজ করছিলেন, তখন তাঁকে হত্যার মধ্য দিয়ে আবার দেশটিকে পিছিয়ে দিতে চেয়েছিলো স্বাধীনতা বিরোধী কুচক্রীরা। সেদিন দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্রকারীরা শুধু একজন রাষ্ট্র প্রধানকে হত্যা করেনি, তারা আমাদের আদর্শ ও স্বাধীনতাকে হত্যা করেছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে এ দেশটিকে স্বাধীনতা বিরোধীরা পাকিস্তানী কায়দায় নিয়ে যেতে চেয়েছে। তাদের সে স্বপ্ন ভঙ্গ হয়েছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন ঘুরে দাঁড়িয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চে ১৮ মিনিটের ১১শ' ৫ শব্দের ভাষণ এখন বিশ্ব ঐতিহ্যের অন্তর্ভুক্ত হয়ে বিশ্ব দরবারে স্বীকৃতি পেয়েছে। কিন্তু জিয়াউর রহমান ও বিএনপি-জামায়াত এ ভাষণ দেশবাসীকে শুনতে দেয়নি, জয় বাংলার শ্লোগান দিতে দেয়নি। ৭ মার্চের বক্তৃতা বিশ্ব ঐতিহ্যের সেরা ঐতিহ্য।



আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ ইউসুফ গাজী, বিশিষ্ট চিকিৎসক ও আওয়ামী লীগ নেতা ডাঃ জেআর ওয়াদুদ টিপু, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ জহিরুল ইসলাম, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডঃ মজিবুর রহমান ভূঁইয়া। উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শামছুল হক মন্টু পাটওয়ারী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নূরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডঃ বিনয় ভূষণ মজুমদার, মুক্তিযোদ্ধা আবু তাহের পাটওয়ারী, অ্যাডঃ রনজিত রায় চৌধুরী, মাসুদ আলম মিল্টন, জিল্লুর রহমান জুয়েল, অ্যাডঃ জাহিদুল ইসলাম রোমানসহ নেতৃবৃন্দ।



চাঁদপুর পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক আঃ মালেক শেখের সভাপ্রধানে এবং সদর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক হুমায়ন কবির সুমন, পৌর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সফিকুল ইসলাম ও ইকবাল হোসেন বাবু পাটওয়ারীর পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী অধ্যাপিকা মাসুদা নূর খান, পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাধা গোবিন্দ ঘোষ, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী আরশ্বাদ মিয়াজী, পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বাবুল, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুল, ঝন্টু দাস, আব্দুল হান্নান সবুজ, সদর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শাহিদা বেগম, সদর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক তাজুল ইসলাম মিয়াজী, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতাউর রহমান পারভেজ, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবিএম রেজওয়ান প্রমুখ।



ডাঃ দীপু মনি এমপি তাঁর নির্বাচনী এলাকার জনগণের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনার যা যা উন্নয়ন চেয়েছেন আমি আমার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছি। আমি আমার যত মেধা, যোগ্যতা, দক্ষতা আছে তা সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতা দিয়ে চেষ্টা করেছি আপনাদের আশা আকাঙ্ক্ষা পূরণ করবার জন্যে। তিনি সকলের কাছে প্রশ্ন রেখে বলেন, আপনাদের প্রতিনিধি নির্বাচিত হবার পর গত ৯ বছরে আমার কোনো কাজ, কথা, আচরণ বা অন্য কোনো কিছুর কারণে আপনাদের সম্মান কোথাও ক্ষুণ্ন হয়েছে কি না, আমার কারণে কারো কোনো ক্ষতি হয়েছে কি না, এলাকার উন্নয়নে যে প্রতিশ্রুতি আমি আপনাদের দিয়েছি তা করতে পেরেছি কি না, আপনাদের প্রতিনিধি হিসেবে আমি আমার সততা ও নিষ্ঠা দিয়ে কাজ করতে পেরেছি কি না তা ভেভে দেখবেন। যদি আপনারা এসব বিষয় ইতিবাচক মনে করেন তাহলে আপনাদের কাছে আমার বিনীত অনুরোধ, একজন রাজনৈতিক মানুষ হিসেবে, এমপি হিসেবে সর্বোপরি আপনাদের সন্তান, আপনাদের বোন, আপনাদের মেয়ে হিসেবে আগামী নির্বাচনে আবারও আমি আপনাদের সেবা করবার সুযোগ চাই। আমাকে যদি দল থেকে আবারো নৌকা নিয়ে পাঠানো হয় তাহলে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করার জন্যে আমি সকলের সহযোগিতা চাই। ডাঃ দীপু মনি যুবলীগের উদ্দেশ্যে বলেন, মানুষের জন্যে, দেশের জন্যে যুবলীগের প্রতিটি নেতা-কর্মীকে নিজের দায়িত্বকর্তব্য মনে করে কাজ করতে হবে। যাতে কেউ যেনো আন্দোলন-সংগ্রামের নামে কোনো রকম সন্ত্রাস, নাশকতা, দেশবিরোধী কোনো কর্মকা- করতে না পারে সে দিকে খেয়াল রাখার আহ্বান জানিয়ে তিনি আগামী নির্বাচনে সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, মনে রাখতে হবে আমাদের নেত্রী হচ্ছেন শেখ হাসিনা, আর আমাদের আদর্শ হচ্ছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।



এ দিন বিকেল তিনটার পর থেকে চাঁদপুর পৌর এলাকার ১৫টি ওয়ার্ড এবং সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নসহ যুবলীগের মোট ২৯টি সাংগঠনিক ইউনিট পৃথক পৃথক ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে মিছিল সহকারে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সম্মুখে সমবেত হয়। পরে এখান থেকে আনন্দ র‌্যালীটির নেতৃত্ব দেন ডাঃ দীপু মনি এমপি। তাঁর সাথে ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। যুবলীগের নেতা-কর্মীদের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতিতে আনন্দ র‌্যালীটি ডাঃ দীপু মনির বিশাল শো-ডাউনে পরিণত হয়।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৭১৭৯৮
পুরোন সংখ্যা