চাঁদপুর। শনিবার ১৮ নভেম্বর ২০১৭। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৪। ২৮ সফর ১৪৩৯

বিজ্ঞাপন দিন

jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩২- সূরা সেজদাহ 


৩০ আয়াত, ৪ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৭। যিনি তাঁহার প্রত্যেকটি সৃষ্টিকে সৃজন করিয়াছেন উত্তমরূপে এবং কর্দম হইতে মানব সৃষ্টির সূচনা করিয়াছেন।


৮। অতঃপর তিনি তাহার বংশ উৎপন্ন করেন তুচ্ছ তরল পদার্থের নির্যাস হইতে।


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 

শিশুর ধারণ ক্ষমতা অনুযায়ী তাকে শিক্ষা দেয়া উচিত।                           



যে ব্যক্তির স্বভাবে নম্রতা নেই, সে সর্বপ্রকার কল্যাণ হতে বঞ্চিত। 


 

ফটো গ্যালারি
অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধার পাশে দাঁড়ালেন এমপি মুক্তা
১৮ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


দৈনিক জনকণ্ঠে সংবাদ প্রকাশের পর রাস্তায় পড়ে থাকা অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়েরের (৬৭) পাশে দাঁড়িয়েছেন সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট নূরজাহান বেগম মুক্তা। দেশের জন্য লড়াই করা বীর মুক্তিযোদ্ধার চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়ে নিজেই হাসপাতলে ভর্তি করেন। শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ভর্তি এই মুক্তিযোদ্ধার সার্বক্ষণিক খোঁজ খবরও রাখছেন। মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়েরের চিকিৎসায় বিত্তবানদের এগিয়ে আসারও আহ্বান জানান তিনি।



গত ১৫ নভেম্বর দৈনিক জনকণ্ঠে 'অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়েরকে রাস্তায় ফেলে গেছে স্বজনরা' শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। জনকণ্ঠের খবরে বলা হয়, অসহায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়েরকে কে বা কারা সাভারের রাস্তায় ফেলে গেছে। স্থানীয় কয়েক যুবক তাকে সাভারের চাপাইনের পক্ষাঘাতগ্রস্তদের পুনর্বাসন কেন্দ্রে (সিআরপিতে) ভর্তি করেন। কিন্তু সিআরপির চিকিৎসকরা বলছেন, তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন। তার এ রোগের জন্য সিআরপিতে নয়, ঢাকায় চিকিৎসা দরকার। কিন্তু কে নেবে তার দায়িত্ব? কে তাকে ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা করাবেন?



প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, এক কালের এলাকার মেধাবী ছাত্র আবুল খায়ের দেশ মাতৃকার টানে স্বাধীনতা যুদ্ধে যোগ দিয়েছিলেন। শত্রুর মোকাবেলায় ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন গেরিলা যুদ্ধে। যুদ্ধকালে সিলেট ও চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলা এলাকায় ছিলেন যোদ্ধাদের কমান্ডার। ২নং সেক্টরে অধিনায়ক খালেদ মোশাররফের নেতৃত্বে বীরদর্পে শত্রুর মোকাবেলা করেছেন। তিনি 'উল্কা খায়ের' নামে এলাকায় সমধিক পরিচিত।



শুক্রবার রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে অবস্থিত শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়েরকে দেখতে যান সংসদ সদস্য নূরজাহান বেগম মুক্তা। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমার বাবা মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। ওনারা জীবনবাজি রেখে যুদ্ধ করেছেন। আজ তাঁদের অসুস্থতায় আমরা বসে থাকতে পারি না। তাঁদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের দায়িত্ব। সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর মোঃ মাঈনুদ্দিনের কন্যা মুক্তা বলেন, ফেসবুকে একটা স্ট্যাটাসের মাধ্যমে বিষয়টি নজরে আসলে তাঁকে দ্রুত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতের চেষ্টা করি। পরে হৃদরোগে আক্তান্ত আবুল খায়েরের হাতে ৫০ হাজার টাকা তুলে দেন তিনি। একই সঙ্গে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে যথাযথ চিকিৎসা নিশ্চিতের জন্য অনুরোধ করেন। তথ্যসূত্র : দৈনিক জনকণ্ঠ।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৫০০১৬
পুরোন সংখ্যা