চাঁদপুর । মঙ্গলবার ১৭ জুলাই ২০১৮ । ২ শ্রাবণ ১৪২৫ । ৩ জিলকদ ১৪৩৯
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • হাজীগঞ্জে আটককৃত বিএনপি'র ১৭ নেতাকর্মীকে জেলহাজতে প্রেরন
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩৯-সূরা আয্-যুমার

৭৫ আয়াত, ৮ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৫১। তাদের দুস্কর্ম তাদেরকে বিপদে ফেলেছে, এদের মধ্যেও যারা পাপী, তাদেরকেও অতি সত্বর তাদের দুস্কর্ম বিপদে ফেলবে। তারা তা প্রতিহত করতে সক্ষম হবে না।

৫২। তারা কি জানেনি, আল্লাহ যার জন্যে ইচ্ছা রিজিক বৃদ্ধি করেন এবং পরিমিত দেন। নিশ্চয় এতে বিশ^াসী সম্প্রদায়ের জন্যে নিদর্শনাবলি রয়েছে।  

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


আস্থা ছাড়া বন্ধুত্ব থাকতে পারে না।

 -ত্রপিকিউরাস।


যে পরনিন্দা গ্রহণ করে সে নিন্দুকের অন্যতম।



 


ফটো গ্যালারি
সমস্যায় জর্জরিত শাহতলী বাজার সুনাম ও ঐতিহ্য হারাতে বসেছে
সোহাঈদ খান জিয়া
১৭ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর সদরের ঐতিহ্যবাহী শাহতলী বাজারটি নানা সমস্যায় জর্জরিত। এক সময় মানুষের মুখে মুখে ছিলো ইটের জন্যে বিখ্যাত শাহতলী বাজার। এ বাজারের সেই সুনাম ও ঐতিহ্য এখন আর নেই বললেই চলে। দিন দিন বাজারটি তার সুনাম ও ঐতিহ্য হারিয়ে ফেলছে। ব্রিক ফিল্ড থাকার কারণে ইট তৈরির শ্রমিক, মাটি কাটার শ্রমিক ও ব্রিক ফিল্ডের বিভিন্ন কাজের শ্রমিক থাকার কারণে ৬ মাস যাবৎ বাজারে ক্রেতা সংখ্যা বেশি থাকে। অপর দিকে বাজারের আশপাশে রাস্তার পাশে দোকান গড়ে উঠায় সেখান থেকেই লোকজন বাজার করে থাকে। যার ফলে অনেক ক্রেতাই বাজারমুখী হতে চায় না। আবার ঐ সকল দোকানের নিকট মাদক, কেরাম ও জুয়ার আসর বসে থাকে। যেমন শাহতলী রেল স্টেশন এখন অপরাধের স্বর্গরাজ্য বলা চলে। এখানে মাদক সেবন ও বিক্রি হয়ে থাকে। বাজার কমিটি ও বাজার ব্যবসায়ীদের সঠিক তৎপরতার কারণে বাজারটির সুনাম কিছুটা অক্ষুণ্ন রয়েছে।



লক্ষ্য করা গেছে, বাজারে পাহারাদার থাকা সত্ত্বেও বাজারের দোকানগুলোতে চুরির ঘটনা ঘটে চলছে। এতে করে ব্যবসায়ীদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে। ঝাড়ুদার নিয়মিত দায়িত্ব পালন করে না। মাসে ১/২ বার আসলে কোনোরকম ঝাড়ু দিয়ে চলে যায়। বাজারের গলিতে ও বিভিন্ন দোকানের সামনে ময়লা-আবর্জনার স্তূপ পড়ে থাকতে দেখা যায়। ড্রেনগুলো অপরিষ্কার ও অপরিচ্ছন্ন থাকায় ড্রেন থেকে মশা-মাছি উড়ে খাদ্যসামগ্রীর উপর গিয়ে বসে। খাবার হোটেলগুলোতে নোংরা পরিবেশ বিরাজ করে। বাজারের মধ্য দিয়ে ইট, বালু, মাটি ও অন্যান্য পণ্যবাহী ট্রাক, ট্রাক্টর, পিকআপভ্যান ও ট্রলি দ্রুতগতিতে চলাচল করে থাকে। এতে করে ব্যবসায়ী, ক্রেতা-বিক্রেতা, স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসাগামী ছাত্র-ছাত্রীরা আতঙ্কে থাকে। বাজারের ভেতরে দ্রুত গতিতে গাড়ি চলাচল করার কারণে ব্যবসায়ীদের দোকান ক্ষতির শিকার হচ্ছে। সামান্য বৃষ্টি হলে গলিগুলো কর্দমাক্ত হয়ে পড়ে এবং ড্রেনগুলো পানিতে ডুবে গিয়ে বাজারে প্রায় হাঁটু পরিমাণ পানি জমে যায়। এতে মানুষের চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। এ সকল সমস্যার কারণে বাজারটি তার ঐতিহ্য হারিয়ে ফেলছে। এসব সমস্যার সমাধান করা না হলে বাজারটির ঐতিহ্য রক্ষা করা যাবে না। এসব সমস্যা সমাধানের ব্যাপারে বাজার ব্যবসায়ী ও সচেতন মহল স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ জনপ্রতিনিধিদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৬০২৯৭
পুরোন সংখ্যা