চাঁদপুর । বৃহস্পতিবার ১৯ জুলাই ২০১৮ । ৪ শ্রাবণ ১৪২৫ । ৫ জিলকদ ১৪৩৯
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩৯-সূরা আয্-যুমার

৭৫ আয়াত, ৮ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৫৫। তোমাদের প্রতি অবতীর্ণ উত্তম বিষয়ের অনুসরণ কর তোমাদের কাছে অতর্কিত ও অজ্ঞাতসারে আযাব আসার পূর্বে।

৫৬। যাতে কেউ না বলে, হায় হায়, আল্লাহ সকাশে আমি কর্তব্যে অবহেলা করেছি এবং  আমি ঠাট্টা-বিদ্রুপকারীদের অন্তর্ভূক্ত ছিলাম।

৫৭। অথবা না বলে, আল্লাহ যদি আমাকে পথপ্রদর্শন করতেন, তবে অবশ্যই আমি পরহেযগারদের একজন হতাম।  

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন





 


শাসন করা তারই সাজে সোহাগ করে যে গো।

 -রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।


নারী পুরুষের যমজ অর্ধাঙ্গিনী।

 


ফটো গ্যালারি
প্রাথমিক শিক্ষা পরিবার শোকে বিহ্বল
মতলবে রথযাত্রায় নিহত শিক্ষকের পরিবারে শোকের মাতম
রেদওয়ান আহমেদ জাকির
১৯ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


বড় অসময়ে সবাইকে কাঁদিয়ে রথযাত্রা উৎসব চলাকালে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে পরলোকে পাড়ি জমালেন মতলব দক্ষিণ প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের উদীয়মান সদস্য, মেধাবী শিক্ষক শিশির নন্দী। তিনি অনেক স্বপ্ন নিয়ে এ শিক্ষকতা পেশায় ২০১২ সালের আগস্ট মাসে যোগদান করেছিলেন। এবারকার রথযাত্রায় জীবনের পরিসমাপ্তি ঘটিয়ে পরিবার ও শিক্ষক সমাজকে শোকের সাগরে ভাসিয়ে না ফেরার দেশেই চলে গেলেন। এমনই আবেগ ও আর্তনাদের কণ্ঠে কথাগুলো বললেন নিহত শিক্ষক শিশিরের পরিবার ও সহকর্মী শিক্ষকবৃন্দ।



উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত ১৪ জুলাই মতলব উত্তর উপজেলার চরপাথালিয়ায় রথযাত্রা উৎসব চলাকালে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শিশির নন্দী মৃত্যুবরণ করেন। তিনি মতলব দক্ষিণ উপজেলার নায়েরগাঁও দক্ষিণ ইউনিয়নের বকচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। নারায়ণগঞ্জের তুলারাম কলেজ থেকে মাস্টার্স শেষ করে শিক্ষকতা পেশায় যোগদান করেছিলেন। শিক্ষকতাকে ভালোবেসে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের বকচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যোগদান করেই বিদ্যালয়ে শিক্ষার প্রাণচঞ্চল পরিবেশ তৈরিতে কাজ শুরু করেন। আর সেটা তিনি পেরেছিলেনও।



শিক্ষকতার পাশাপাশি সৃজনশীল কাজে শিশির নন্দী ছিলেন অত্যন্ত দক্ষ ও পরিশ্রমী। তাঁর সমবয়সী ও প্রবীণ শিক্ষকরা জানান, অল্প দিনেই শিশির শিক্ষকতার পাশাপাশি সৃজনশীল কাজে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। বিশেষ করে তাঁর চারু ও কারু শিল্প সকলের কাছে ছিলো অত্যন্ত প্রশংসনীয়।



নায়েরগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক হারাধন চন্দ্র নন্দীর ছোট ছেলে শিশির নন্দী। তিন ভাই এক বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন তৃতীয়। মাতা উজ্জ্বলা রাণী নন্দীর কাছে সকল সন্তানের চেয়ে শিশির ছিলো প্রিয়। গত ১৭ ডিসেম্বর শিশির লক্ষ্মীপুর জেলায় বিয়ে করেন। তবে প্রায় ৬ মাস পর উক্ত দুর্ঘটনায় অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী তৃণা রাণী নন্দীকে রেখেই চলে যেতে হলো পরপারে।



শিশির নন্দীর ক্লাস্টারের সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার জুলফিকার আলী জনি বলেন, শিশির নন্দী অত্যন্ত চটপটে ও মেধাবী শিক্ষক ছিলেন। বিদ্যালয় ও আমাদের উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষামূলক কাজে তাঁর কর্মকান্ড আমাদেরকে মুগ্ধ করতো। অথচ শিশিরকে অল্প দিনেই বিদায় দিতে হলো।



উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা একেএম শহিদুল হক মোল্লা বলেন, শিশির নন্দী খুব জনপ্রিয় একজন শিক্ষক ছিলেন। আমাদের সহপাঠক্রমিক কার্যক্রমে শিশিরের অংশগ্রহণ ছিলো লক্ষ্যণীয়।



উল্লেখ্য, গত ১৪ জুলাই মতলব উত্তরের সুলতানাবাদ ইউনিয়নের চরপাথালিয়া স্কুল মাঠে রথযাত্রা উৎসবে



শিশির নন্দী অংশগ্রহণ করেন। রথের চূড়ার ধাতব অংশটি এক পর্যায়ে বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে পড়লে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন শিশির। আহত শিশিরকে দ্রুত মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ েনিয়ে আসলে কর্মরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার সময় বেশ কয়েকজন ভক্তও গুরুতর আহত হন। আহতরা হলেন : সঞ্জয় (২৮), গোবিন্দ (২৯), কৃষ্ণ (২৬), গৌরাঙ্গ (৩২), রাধেশ্যাম (২৮), কাজল (২৪) প্রমুখ। তাদেরকে প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়েছে। পরে শিশিরের লাশ ময়না তদন্তের জন্য চাঁদপুর মর্গে প্রেরণ করা হয়। পরদিন ১৫ জুলাই নিহত শিক্ষক শিশিরকে পারিবারিকভাবে দাহ করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী শিক্ষা অফিসার জুলফিকার আলী জনি, সহকর্মী হাসান মামুন, সুমন সরকার, সাইফুর রহমান, মাহমুদুল হাসান, আওলাদ হোসেন, নূরে আলম সিদ্দিকী, সঞ্জিত দে, সঞ্জিত পাল, গৌতম দে, শাহজালাল প্রমুখ।



এদিকে শিক্ষক শিশির নন্দীর মৃত্যুর সংবাদ চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে মতলব দক্ষিণের শিক্ষক নেতৃবৃন্দ, বন্ধু মহল, আত্মীয়-স্বজন তাকে শেষবারের মতো মতলব সরকারি হাসপাতালে দেখতে যান। শিশির নন্দীর মৃত্যুতে বন্ধু মহল, শিক্ষকবৃন্দ, শিক্ষক নেতৃবৃন্দ, আত্মীয়-স্বজন গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৫৯৭৪
পুরোন সংখ্যা