চাঁদপুর । বৃহস্পতিবার ১৯ জুলাই ২০১৮ । ৪ শ্রাবণ ১৪২৫ । ৫ জিলকদ ১৪৩৯
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • ফরিদগঞ্জের মনতলা হাজী বাড়ির মোতাহের হোসেনের ছেলে ফাহিম মাহমুদ (৩) নিজ বাড়ির পুকুরে ডুবে মারা গেছেন। ||  শনিবার সকালে ফাহিমের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক। || 
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩৯-সূরা আয্-যুমার

৭৫ আয়াত, ৮ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৫৫। তোমাদের প্রতি অবতীর্ণ উত্তম বিষয়ের অনুসরণ কর তোমাদের কাছে অতর্কিত ও অজ্ঞাতসারে আযাব আসার পূর্বে।

৫৬। যাতে কেউ না বলে, হায় হায়, আল্লাহ সকাশে আমি কর্তব্যে অবহেলা করেছি এবং  আমি ঠাট্টা-বিদ্রুপকারীদের অন্তর্ভূক্ত ছিলাম।

৫৭। অথবা না বলে, আল্লাহ যদি আমাকে পথপ্রদর্শন করতেন, তবে অবশ্যই আমি পরহেযগারদের একজন হতাম।  

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন





 


শাসন করা তারই সাজে সোহাগ করে যে গো।

 -রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।


নারী পুরুষের যমজ অর্ধাঙ্গিনী।

 


ফটো গ্যালারি
চাঁদপুর জজ আদালতে অ্যাডঃ জহিরের জামিন শুনানি ২৯ জুলাই
স্টাফ রিপোর্টার
১৯ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর শহরের ষোলঘর পাকা মসজিদ এলাকার আলোচিত অধ্যক্ষ শাহিন সুলতানা ফেন্সি হত্যাকান্ডে আটক তার স্বামী অ্যাডঃ মোঃ জহিরুল ইসলামের পক্ষে আইনজীবীরা মিসকেইসের মাধ্যমে জেলা ও দায়রা জজ বরাবর জামিনের আবেদন করেছেন। জামিন আবেদনের শুনানি আগামী ২৯ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে।



গত ৪ জুন চাঁদপুর শহরের ষোলঘর পাকা মসজিদ এলাকায় অ্যাডঃ জহিরুল ইসলামের নিজ বাসায় তার প্রথমা স্ত্রী ফরিদগঞ্জ গল্লাক আদর্শ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ শাহীন সুলতানা ফেন্সি খুন হন। ওই খুনের ঘটনায় পুলিশ সন্দেহভাজন হিসেবে অ্যাডঃ জহিরুল ইসলামকে আটক করে। একই হত্যাকা-ে অ্যাডঃ জহিরুল ইসলামের দ্বিতীয় স্ত্রী জুলেখা বেগম, তার ভগি্নপতি ওয়াচকুরুনি ও জুুলেখার চাচাতো ভাই রাকিবুল হাসানকে আটক করা হয়। এদেরকে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালতে আবেদন করে একাধিকবার রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। গতকাল বুধবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মহিউদ্দিন অ্যাডঃ জহিরুল ইসলামকে পুনরায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ কায়সার মোশাররফ ইউসুফের আদালতে ৩ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। গত কয়েকদিন পূর্বে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও সিআইডি পুলিশ যৌথভাবে জুলেখা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। বিজ্ঞ বিচারক জুলেখা বেগমের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। জুলেখা বেগম ও অ্যাডঃ জহিরুল ইসলামকে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্যই গতকাল অ্যাডঃ জহিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে ৩ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। ওইদিন অ্যাডঃ জহিরুল ইসলাম, জুলেখা বেগম, ওয়াচকুরুনি ও রাকিবুল হাসানকে আদালতে আনার নির্ধারিত তারিখ ছিল। কিন্তু অ্যাডঃ জহিরুল ইসলামের জামিনের আবেদন করায় মামলার কাগজপত্র জেলা জজ আদালতে থাকায় তাদেরকে ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে উপস্থাপন করা হয়নি। আগামী ২৪ জুলাই অ্যাডঃ জহিরুল ইসলামের পুনরায় রিমান্ডের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৭২০১৪
পুরোন সংখ্যা