চাঁদপুর। রোববার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮। ৮ আশ্বিন ১৪২৫। ১২ মহররম ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫ নং রামপুর ইউনিয়নের দেবপুর বড়হুজুরের বাড়িতে ২ শিশুসন্তানসহ একই পরিবারের ৪জন মারা গেছেন। || চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫ নং রামপুর ইউনিয়নের দেবপুর বড়হুজুরের বাড়িতে ২ শিশুসন্তানসহ একই পরিবারের ৪জন মারা গেছেন। || চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫ নং রামপুর ইউনিয়নের দেবপুর বড়হুজুরের বাড়িতে ২ শিশুসন্তানসহ একই পরিবারের ৪জন মারা গেছেন। || চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫ নং রামপুর ইউনিয়নের দেবপুর বড়হুজুরের বাড়িতে ২ শিশুসন্তানসহ একই পরিবারের ৪জন মারা গেছেন।
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস











৪১-সূরা হা-মীম আস্সাজদাহ,

৫৪ আয়াত, ৬ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৪৭। কিয়ামতের জ্ঞান আল্লাহর দিকেই প্রবর্তিত, তাঁর অজ্ঞাতসারে কোন ফল আবরণী হতে বের হয় না, কোন নারী গর্ভধারণ করে না এবং সন্তানও প্রসব করে না, যেদিন আল্লাহ তাদেরকে (মুশরিকদেরকে) ডেকে বলবেন : আমরা আপনাকে বলে দিয়েছি যে, এই ব্যাপারে আমাদের কেউ সাক্ষী নেই।

৪৮। পূর্বে তারা যাদেরকে আহ্বান করতো তারা অদৃশ্য হয়ে যাবে এবং অংশীবাদীরা উপলব্ধি করবে যে, তাদের মুক্তির কোন উপায় নেই।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন









 


জাতিকে সঠিক পথে চালনার দিশারী হল বই।

 -আজহারুল হক।


পিতার আনন্দে খোদার আনন্দ এবং পিতার অসন্তুষ্টিতে খোদার অসন্তুষ্টি।





 


ফটো গ্যালারি
বিএম মুসলেহ উদ্দিন জিলানী চাঁদপুর সদর উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত
২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর সদর উপজেলার ৭৬নং উত্তর বালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিএম মুসলেহ উদ্দিন জিলানী জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা পদক-২০১৮-এ উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক ক্যাটাগরিতে চাঁদপুর সদর উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছেন। এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি তার কৃতিত্বের জন্যে মহান আল্লাহর দরবারে অশেষ শুকরিয়া জ্ঞাপন করেছেন তাছাড়া তিনি উপজেলা পর্যায়ে প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের সকল কর্মকর্তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।



উল্লেখ্য, বিএম মুসলেহ উদ্দিন জিলানী ২০০৬ সালের ৪ এপ্রিল চাঁদপুর সদর উপজেলার ১নং কানুদী মনোহরখাদী স্কুলে তাঁর কর্মজীবন শুরু করেট ন। তিনি কর্মস্থলে সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে তার ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি লেখাপড়ার পাশাপাশি বিজ্ঞানের প্রতি আগ্রহী ছিলেন এবং সবসময়ই প্রযুক্তি নির্ভর বিভিন্ন বিষয়ের প্রতি তার কৌতূহল ছিলো। চাঁদপুর জেলায় অনুষ্ঠিত বিজ্ঞান মেলায় বিজ্ঞানের ওপর শিক্ষণীয় এবং আকর্ষণীয় প্রজেক্ট উপস্থাপন করে তিনি ১২ বার পুরস্কৃত হয়েছিলেন। এভাবে ২০০১ সালে জেলা পর্যায়ে সব ক্যাটাগরিতে সম্মিলিতভাবে বিজ্ঞানের প্রজেক্ট প্রদর্শন করে প্রথম স্থান অর্জন করেন। এর ফলে জাতীয় পর্যায়ে সিনিয়র গ্রুপে চাঁদপুর জেলায় প্রতিনিধিত্ব করে ঢাকায় অনুষ্ঠিত জাতীয় বিজ্ঞান মেলায় পুরস্কৃত হয়েছেন। এভাবে বিজ্ঞান মেলায় বিভিন্ন প্রজেক্ট প্রদর্শন করায় ১৯৯৯ ও ২০০৩ সালে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর সিনিয়র গ্রুপে তরুণ ও অপেশাদার বিজ্ঞানী হিসেবে তাকে বৃত্তি প্রদান করে। বিজ্ঞানের পাশাপাশি তিনি প্রবন্ধ, কবিতা আবৃত্তি, রচনা প্রতিযোগিতা, উপস্থিত বক্তৃতায় বহুবার জেলা ও জাতীয়ভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন। ২০০৩ সালে টিআইবি আয়োজিত রচনা প্রতিযোগিতা 'গ' গ্রুপে জাতীয় পর্যায়ে ৩য় স্থান, ২০০৫ সালে দিন কনজ্যুমার ট্রাস্ট আয়োজিত রচনা প্রতিযোগিতায় 'খ' গ্রুপে ১ম স্থান এবং বিশ্ব পরিবেশ দিবসে চট্টগ্রাম বিভাগে ২য় স্থান অর্জন করে কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত বিজ্ঞান বিষয়ক রচনা প্রতিযোগিতায় 'গ' গ্রুপে ২য় স্থান অর্জন করেন। বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট স্থাডিজ আয়োজিত জাতীয় পর্যায়ের গবেষণাধর্মী প্রবন্ধ রচনা প্রতিযোগিতায় বিশেষ পুরস্কার অর্জন করেন বিএসবি ফাউন্ডেশন অ্যাওয়ার্ড-২০১০।



উল্লেখ্য, বিএম মুসলেহ উদ্দিন চাঁদপুর শহরের মমিন পাড়াস্থ নাছির ভূঁইঞা বাড়িতে ১৯৭৮ সালের ৮ নভেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। তিনির ১৯৯৪ সালে আল-আমিন একাডেমি থেকে এসএসসি, ১৯৯৬ সালে চাঁদপুর সরকারি কলেজ থেকে বিজ্ঞানে এইচএসসি এবং একই কলেজ থেকে ২০০১ সালে রসায়ন বিজ্ঞানে অনার্স, ২০০৩ সালে মাস্টার্স সমাপ্ত করেন। ২ ভাই ১ বোনের মধ্যে তিনি তৃতীয়।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৭৭৮০৮
পুরোন সংখ্যা