চাঁদপুর। বুধবার ১৭ অক্টোবর ২০১৮। ২ কার্তিক ১৪২৫। ৬ সফর ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪২-সূরা শূরা

৫৪ আয়াত, ৫ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৪৮। তারা যদি মুখ ফিরিয়ে নেয়, তবে তোমাকে তো আমি তাদের রক্ষক করে পাঠাইনি। তোমার দায়িত্ব তো শুধু প্রচার করে যাওয়া। আমি মানুষকে যখন আমার রহমত আস্বাদন করাই তখন সে এতে উৎফুল্ল হয় এবং যখন তাদের কৃতকর্মের জন্য তাদের বিপদ-আপদ ঘটে তখন মানুষ হয়ে যায় অকৃতজ্ঞ।

৪৯। আকাশম-লী ও পৃথিবীর কর্তৃত্ব আল্লাহরই। তিনি যা ইচ্ছা তা-ই সৃষ্টি করেন। তিনি যাকে ইচ্ছা কন্যা সন্তান দান করেন এবং যাকে ইচ্ছা পুত্র সন্তান দান করেন।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন



 


অস্থির মানসিকতা স্বাস্থ্য এবং শান্তি দুটোতেই বিঘœ সৃষ্টি করে।               


-মার্ক টোয়াইন।


আল্লাহ যদি তোমাদের অর্থ-সম্পদ দান করেন তবে তাহা নিজের ও পরিবারের পক্ষ হইতে বন্টন শুরু করো।





 


ফটো গ্যালারি
মনোহরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও অভিভাবক সমাবেশ
মৌলবাদ ও সন্ত্রাসমুক্ত প্রগতিশীল দেশ গঠনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বের বিকল্প নেই
সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি
রাকিবুল হাসান ও মোহাম্মদ মহিউদ্দিন
১৭ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


কচুয়ার মনোহরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৪ তলা বিশিষ্ট নতুন একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত সোমবার বিকেলে কড়ইয়া ইউনিয়নস্থ ঐতিহ্যবাহী মনোহরপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।



বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে ও যুবলীগ নেতা মনির হোসেনের পরিচালনায় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, মৌলবাদ ও সন্ত্রাসমুক্ত সত্যিকারের প্রগতিশীল দেশ গঠনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বের বিকল্প নেই। দেশ গড়ার ডাক জননেত্রী শেখ হাসিনা দিয়েছেন। বিদ্যালয়ের শিক্ষাকে জ্ঞানভিত্তিক প্রযুক্তিমুখী করার জন্যে ইতিমধ্যে সরকার ব্যাপক পদক্ষেপ নিয়েছে। আপনারা শুনে অভিভূত হবেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যে কচুয়াবাসীর উন্নয়নের জন্য ১শ' ৬ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রদান করেছেন। এতো বড় বরাদ্দ এর আগে কচুয়ায় আর কোনোদিন আসেনি। এ বিপুল পরিমাণ অর্থ যথাযথভাবে ব্যবহার করে কচুয়াবাসীর ভাগ্য উন্নয়নে প্রয়োগ করবো। কচুয়া-ঢাকা মহাসড়ক স্থাপনের সাথে সাথে ঢাকা-চট্টগ্রাম এঙ্প্রেস কচুয়া থেকে বরুড়া ভায়া লাকসাম হয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সংযুক্ত হবে। এ দুটি প্রকল্প যথাযথভাবে বাস্তাবয়ন হলে আমরা মহাসড়কগুলোর দু'পাশের মানুষ উন্নয়নের মহাসড়কে নিজেদের নাম প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হবো। আমাদের এলাকা তখন আর গ্রামীণ এলাকায় থাকবে না। আমাদের এলাকা ধীরে ধীরে গ্রামীণ এলাকা থেকে শিল্প এলাকায় উন্নীত হয়ে আপনাদের ভাগ্যের পরিবর্তন করবে। এ পদক্ষেপ দ্রুত বাস্তাবায়নের লক্ষ্যে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে দেশের নেতৃত্বে অধিষ্ঠিত রাখার আহ্বান জানান তিনি।



বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন চৌধুরী সোহাগ, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আকতার হোসেন সোহেল ভঁূইয়া, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন প্রমুখ।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৬৩১৭৫
পুরোন সংখ্যা