চাঁদপুর। শুক্রবার ১৯ অক্টোবর ২০১৮। ৪ কার্তিক ১৪২৫। ৮ সফর ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪২-সূরা শূরা

৫৪ আয়াত, ৫ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৫৩। ঐ আল্লাহর পথ, যাঁর আধিপত্বে রয়েছে আকাশম-লী ও পৃথিবীতে যা কিছু আছে। সাবধান! সকল বিষয় আল্লাহরই দিকে প্রত্যাবর্তন করে।  

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন



 


প্রচারণায় যে বিশ্বাসী নয় নিঃসন্দেহে সে কাজে বিশ্বাসী ।                      -পিথাগোর।


মায়ের পদতলে সন্তানদের বেহেশত।

 


ফটো গ্যালারি
পুলিশ সুপার প্রেসব্রিফিংয়ে যা বললেন
চাঁদপুর কণ্ঠ রিপোর্ট
১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


হাজীগঞ্জে একটি হত্যার ঘটনায় চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মোঃ জিহাদুল কবির পিপিএম প্রেসব্রিফিং করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এ প্রেসব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার সাংবাদিকদের কাছে হাজীগঞ্জে নাসরিন আক্তার রিভা হত্যার মূল ঘটনাটি তুলে ধরেন।



তিনি বলেন, সম্প্রতি জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় হাজীগঞ্জের এ হত্যাকান্ডটি নিয়ে রহস্যজনক সংবাদ প্রকাশ হয়। এরপর থেকেই আমরা এ ঘটনাটির মূল রহস্য উদ্ঘটানে নেমে পড়ি। তখন মেয়ের বাবা আব্দুর রহিম বাদী একটি মামলা দায়ের করেন। উক্ত মামলায় এসআই আব্দুল ফারুককে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়। সে দায়িত্ব পাওয়ার পর ভিকটিমের স্বামী হযরত আলীকে বাকিলা এলাকা হতে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে থানায় নিয়ে আসে। পরবর্তীতে বুধবার হযরত আলী বিজ্ঞ আদালতে দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি প্রদান করে। আর এতেই হত্যাকান্ডের মূল রহস্য বেরিয়ে আসে।



স্বামী হযরত আলী জানায়, তার স্ত্রী রিভার ছোট বোন আইরিনের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক হয়। এক পর্যায়ে এ সম্পর্ক শারীরিক সম্পর্কে রূপ নেয়। আইরিনই তাকে ফোন করে বিদেশ থেকে দেশে এনে তাকে বিয়ের জন্যে চাপ প্রয়োগ করে। তখন সে আইরিনকে বলে, তোমার বোন আমার ঘরে রয়েছে, আমি কীভাবে তোমাকে বিয়ে করি। আইরিন বলে, তুমি দেশে আসো, আমি ব্যবস্থা করবো। সে অনুযায়ী হযরত আলী কাউকে না জানিয়ে দেশে এসে আইরিনের সাথে যোগাযোগ করে তার পরিকল্পনা অনুযায়ী ৯ অক্টোবর রাতে ঘরে প্রবেশ করে রিভাকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করে সে সুকৌশলে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে এ হত্যাকান্ডকে অন্যদিকে প্রবাহিত করার জন্যে আইরিন অজ্ঞানের ভান ধরে ঘরে পড়ে থাকে। আইরিনকেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে আটক করে বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির করা হয়।



প্রেসব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হাজীগঞ্জ সার্কেল) আফজাল হোসেন, হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ফারুক এবং স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৮৭৪৯১
পুরোন সংখ্যা