চাঁদপুা। শনিবার ১০ নভেম্বর ২০১৮। ২৬ কার্তিক ১৪২৫। ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫০-সূরা কাফ্

৪৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৩৮। আমি আকাশম-লী ও পৃথিবী এবং উহাদের অন্তর্বর্তী সমস্ত কিছু সৃষ্টি করিয়াছি ছয় দিনে; আমাকে কোন ক্লান্তি স্পর্শ করে নাই।৩৯। অতএব উহারা যাহা বলে তাহাতে তুমি ধৈর্য ধারণ কর এবং তোমরা প্রতিপালকের সপ্রশংস পবিত্রতা ও মহিমা ঘোষণা কর সূর্যোদয়ের পূর্বে ও সূর্যাস্তের পূর্বে,


assets/data_files/web

প্রতিভাবান ব্যক্তিরাই ধৈর্য ধারণ করতে পারে। -ই. সি. স্টেডম্যান।


যে শিক্ষিত ব্যক্তিকে সম্মান করে, সে আমাকে সম্মান করে।


ফটো গ্যালারি
চাঁদপুর রামঠাকুর দোল মন্দিরে বাৎসরিক অন্নকূট উৎসব
স্টাফ রিপোর্টার
১০ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুরে সনাতন ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে এবং বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় বাৎসরিক অন্নকূট উৎসব পালিত হয়েছে। গত ৮ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দুপুরে চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজার বাতাসাপট্টির শ্রীশ্রী রামঠাকুর দোল মন্দির প্রাঙ্গণে এ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। উৎসব ঘিরে সহস্রাধিক ভক্তের সমাগম লক্ষ্য করা গেছে। চাঁদপুর জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং জেলা জন্মাষ্টমী পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি গোপাল চন্দ্র সাহা জানান, বছরের এদিনে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা রামঠাকুরকে ১০১ বা তারও বেশি পদের তরকারিসহ অন্নভোগ দিয়ে থাকে। তাই আমরা হিন্দু নেতৃবৃন্দ বছরের এদিনে প্রতিবারই শ্রী শ্রী রামঠাকুর দোল মন্দিরে অন্নকূট মহোৎসবের আয়োজন করে থাকি। দুপুরে ভোগআরতি করা শেষে মন্দিরে আগত ভক্তবৃন্দের মাঝে প্রসাদ বিতরণ করা হয়।



অন্নকূট উৎসব পরিদর্শন করেন ও প্রসাদ গ্রহণে অংশ নেন জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডঃ বিনয় ভূষণ মজুমদার, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ রনজিৎ রায় চৌধুরী, জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তমাল কুমার ঘোষ, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক লক্ষ্মণ চন্দ্র সূত্রধর, সদর উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ সভাপতি বাসুদেব মজুমদার, অ্যাডঃ পলাশ মজুমদার, চেম্বার পরিচালক শিমুল সাহা, ই-হক কোচিং সেন্টারের পরিচালক ডিকে মৃদুল প্রমুখ।



অন্নকূট উৎসবের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন শ্রীশ্রী রামঠাকুর দোল মন্দিরের সভাপতি জ্যোতিষ চন্দ্র রায়, সাধারণ সম্পাদক মধু মঙ্গল বণিক ও কোষাধ্যক্ষ গোপাল সাহা।



স্বেচ্ছাশ্রমে প্রায় চার সহস্রাধিক ভক্তের মাঝে সুশৃঙ্খলভাবে প্রসাদ বিতরণ করেন নেপাল সাহা, অনীল সাহা, মাধব রায়, মানিক নন্দী, কাশী সাহা, কানাই পোদ্দার, জীবন দত্ত, লক্ষ্মণ সাহা, শ্যাম সাহা, অমিত ঘোষ প্রমুখ। এ সময় নতুনবাজার ও পুরাণবাজারের বিভিন্ন মন্দির কমিটির নেতৃবৃন্দও প্রসাদ বিতরণ কার্যক্রমে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে অংশ নেন।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৫৫২৬১
পুরোন সংখ্যা