ঢাকা। শনিবার ১৯ জানুয়ারি ২০১৯। ৬ মাঘ ১৪২৫। ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৮-সূরা মুজাদালা


২২ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


০২। তোমাদের মধ্যে যাহারা নিজেদের স্ত্রীগণের সহিত যিহার করে, তাহারা জানিয়া রাখুক- তাহাদের স্ত্রীগণ তাহাদের মতো নহে, যাহারা তাগাদিগকে জন্মদান করে কেবল তাহারাই তাহাদের মাতা; উহারা তো অসঙ্গত ও অসত্য কথাই বলে। নিশ্চয়ই আল্লাহ পাপ মোচনকারী ও ক্ষমাশীল।


 


 


 


assets/data_files/web

সহনশীলতা এমন একটা গুন যা থেকে সফলতা আসবেই।


-জুভেনাল।


 


 


পুরাতন কাপড় পরিধান করো, অর্ধপেট ভরিয়া পানাহার করো, ইহা নবীসুলভ কার্যের অংশ বিশেষ।


 


 


 


 


ফটো গ্যালারি
৩ দিনব্যাপী 'ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল মডেল ইউএন কনফারেন্স-২০১৯'
১৯ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ৩ দিনব্যাপী (১৭-১৯ জানুয়ারি) 'ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল মডেল ইউএন কনফারেন্স-২০১৯ (ড্যাফোডিলআইমুন'১৯)' আয়োজন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৭ জানুয়ারি) ইউনিভার্সিটির ৭১ মিলনায়তনে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত এম হুমায়ূন কবীর। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতিসংঘ ইনফরমেশন সেন্টারের ন্যাশনাল ইনফরমেশন অফিসার ড. মোঃ মনিরুজ্জামান এবং সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারীর দপ্তরের সিনিয়র কমিউনিকেশন এডভাইজার মিস্টার এরি গ্যানেটিজ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মোঃ সবুর খান। অন্যান্যের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এসএম মাহবুব উল হক মজুমদার, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. প্রকৌশলী একেএম ফজলুল হক, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল মডেল ইউএন অ্যাসোসিয়েশনের মডারেটর রাফি আল মাহমুদ ও প্রেসিডেন্ট শাফায়েতুল ইসলাম।



তিন দিনের এই সম্মেলনে দেশ-বিদেশের ২৫০জন শিক্ষার্থী অংশ নেন। তারা ৮টি কমিটিতে বিভক্ত হয়ে জাতিসংঘের পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনের আদলে সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন। কমিটিগুলো হচ্ছে ইউনাইটেড নেশনস সিকিউরিটি কাউন্সিল (ইউএনএসসি), ইউএনডিপি, ইউএনএইচসিআর, ইউনিসেফ, ইন্টারন্যাশনাল মনিটরি ফান্ড (আইএমএফ), এসসিবিএ, জেসিসি এবং ইউএনএনসি।



প্রধান অতিথির বক্তব্যে এম হুমায়ূন কবীর বলেন, তিনটি কারণে বর্তমান পৃথিবী ঝুঁকির মুখে পড়েছে। প্রথম কারণ মূল্যবোধের অবক্ষয়, দ্বিতীয় কারণ পরিবার প্রথা ভেঙে পড়া এবং তৃতীয় কারণ প্রযুক্তির দ্রুততম বিকাশ। এসব সমস্যা মোকাবেলা করে পৃথিবীকে শান্তিপূর্ণভাবে গড়ে তুলতে হলে তরুণদেরকে নেতৃত্ব গুণাগুণ, যোগাযোগ দক্ষতা, কূটনৈতিক জ্ঞান ইত্যাদি বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে হবে। মডেল ইউনাইটেড নেশনস কনফারেন্স এসব গুণাবলি অর্জন করতে তরুণদেরকে সহায়তা করবে বলে মন্তব্য করেন এম হুমায়ূন কবির।



তরুণদের উদ্দেশ্যে সাবেক এই রাষ্ট্রদূত বলেন, অন্যদের সম্মান করা শিখতে হবে, যোগাযোগ দক্ষতা বাড়াতে হবে এবং দলগতভাবে কাজ করার দক্ষতা বাড়াতে হবে। এসব গুণ ছাত্রজীবন থেকেই অর্জন করতে হবে। তা না হলে ভবিষ্যৎ জীবনে সফল হওয়া যাবে না বলে অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি।



সভাপতির বক্তব্যে ড. মোঃ সবুর খান বলেন, পৃথিবী খুব দ্রুত বদলে যাচ্ছে। আগে ক্যারিয়ার সম্পর্কে পূর্ব ধারণা করা যেত। কিন্তু এখন পূর্বানুমান করা যায় না। কারণ প্রযুক্তি চাকরির বাজারকে প্রতিদিন বদলে দিচ্ছে। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, রোবট ইত্যাদি মানুষের জায়গা দখল করে নিচ্ছে। এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করার জন্য তরুণদেরকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে ড. সবুর খান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের সহশিক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণের মাধ্যমে নিজের দক্ষতা উন্নয়ন করা যায়। এজন্য শিক্ষার্থীদেরকে ক্লাসের পড়ার ফাঁকে ফাঁকে সহশিক্ষা কার্যক্রমে অংশ নিতে হবে। ড. মো. সবুর খান শিক্ষার্থীদেরকে প্রতিদিন কিছু না কিছু শেখার আহ্বান জানান।



উল্লেখ্য, তিন দিনের এই সম্মেলন আয়োজন করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি মডেল ইউনাইটেড নেশন্স অ্যাসোসিয়েশন। এতে সহযোগী হিসেবে রয়েছে জাতিসংঘ, ট্র্যাটেজিক পার্টনার হিসেবে রয়েছে ইউএনওয়াইএসএবি (টঘণঝঅই) এবং নলেজ পার্টনার হিসেবে রয়েছে ইউএনআইসি, বাংলাদেশ (টঘওঈ)। আর মিডিয়া পার্টনার হিসেবে রয়েছে সময় টেলিভিশন ও দ্য ফিনান্সিয়াল এঙ্প্রেস।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৭১৬৫০০
পুরোন সংখ্যা