চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০
jibon dip
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৩-সূরা নাজম


৬২ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৩২। উহারাই বিরত থাকে গুরুতর পাপ ও অশ্লীল কার্য হইতে, ছোটখাট অপরাধ করিলেও। তোমার প্রতিপালকের ক্ষমা অপরিসীম ; আল্লাহ তোমাদের সম্পর্কে সম্যক অবগত, যখন তিনি তোমাদিগকে সৃষ্টি করিয়াছিলেন মৃত্তিকা হইতে এবং যখন তোমরা মাতৃগর্ভে ভ্রূণরূপে ছিলে। অতএব তোমরা আত্ম-প্রশংসা করিও না, তিনিই সম্যক জানেন মুত্তাকী কে।


 


assets/data_files/web

মনের যাতনা দেহের যাতনার চেয়ে বেশি। -উইলিয়াম হ্যাজলিট।


 


ন্যায়পরায়ণ বিজ্ঞ নরপতি আল্লাহর শ্রেষ্ঠ দান এবং অসৎ মূর্খ নরপতি তার নিকৃষ্ট দান।


 


ফটো গ্যালারি
মেঘনায় যাত্রীবাহী দুটি লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষ আহত ৩০ ইমাম হাসান লঞ্চের ব্যাপক ক্ষতি
শওকত আলী
২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


মেঘনা নদীর মুন্সিগঞ্জ এলাকায় ভোলা থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী যাত্রীবাহী লঞ্চ এমভি কর্ণফুলী-১৪ ও ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা চাঁদপুরগামী ইমাম হাসান লঞ্চের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বুধবার সকাল পৌনে ৮টায়। নদীতে ঘন কুয়াশার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষের সময় ৪ শতাধিক যাত্রী নিয়ে ইমাম হাসান লঞ্চটি হেলতে-দুলতে একদিকে কাত হয়ে ডুবে যাওয়ার উপক্রম হয়ে পড়েছিল বলে যাত্রীরা জানান। এতে করে অল্পের জন্যে ৪ শতাধিক যাত্রী প্রাণে রক্ষো পায়। যাত্রীরা আরো জানান, গভীর নদীতে এ ঘটনাটি ঘটলে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা ছিলো। সংঘর্ষের ঘটনায় ইমাম হাসান লঞ্চের কমপক্ষে ৩০ যাত্রী মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে। এ ঘটনায় ইমাম হাসান লঞ্চের সামনের অংশে ও পাশে ধুমড়ে মুচড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।



জানা যায়, ইমাম হাসান লঞ্চটি সকাল ৭টায় ঢাকা সদরঘাট নৌ-টার্মিনাল থেকে ৪ শতাধিক যাত্রী নিয়ে চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। মুন্সিগঞ্জের দীঘিরচর নামক স্থানে আসলে অপরদিক থেকে আসা যাত্রীবাহী লঞ্চ এমভি কর্ণফুলী-১৪ এসে সজোরে ইমাম হাসান লঞ্চের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটায়। এতে ইমাম হাসান লঞ্চটি কাত হয়ে ডুবে যাওয়ার উপক্রম হয়। লঞ্চে থাকা যাত্রীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। এ ঘটনায় অনেক যাত্রী আহত হয় বলে যাত্রী রুহুল আমিন জানান।



এমভি ইমাম হাসান লঞ্চের সুপারভাইজর মোঃ হারিস জানান, সকাল থেকেই নদীতে ঘন কুয়াশা ছিল। ঘটনাস্থলে আসলে বরিশাল ভোলা থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী এমভি কর্নফুলী-১৪ নামক লঞ্চটি খামখেয়ালীভাবে দ্রুতগতিতে আসার কারণে নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে আমাদের লঞ্চ ইমাম হাসানের সাথে সজোরে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটায়। কর্নফুলী লঞ্চটি বড় হওয়ার কারণে সেটির কোনো ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। কিন্তু ইমাম হাসান লঞ্চটির বড় ধরনের ক্ষতি হয়েছে এবং যাত্রীদের মধ্যে লঞ্চের ভেতরে ছোটাছুটি করতে পড়ে গিয়ে ও লোহার আঘাতে অনেকেই মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন। পরবর্তীতে লঞ্চটি ঘন্টাব্যাপী ওই স্থানে অবস্থানের পর যাত্রীদের অনুরোধে চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। আহতদের মধ্যে কমপক্ষে ৩০ জন যাত্রী প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে বলে যাত্রী ও লঞ্চ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।



লঞ্চটি সিডিউল টাইমে সকাল সাড়ে ৯টায় চাঁদপুর নৌ-টার্মিনালে পেঁৗছার কথা। দুর্ঘটনার কারণে দেরি করে দুুপুর ১২টায় চাঁদপুর লঞ্চঘাটে এসে পেঁৗছে।



চাঁদপুর নৌ-থানার অফিসার ইনচার্জ জানান, ঘটনাটি ঘটেছে মুন্সিগঞ্জ এলাকায়। এতে ইমাম হাসান লঞ্চের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। যাত্রীরাও অনেকে আহত হয়েছে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৩৬৪৭৩
পুরোন সংখ্যা