চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫০-সূরা কাফ্

৪৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৩৮। আমি আকাশম-লী ও পৃথিবী এবং উহাদের অন্তর্বর্তী সমস্ত কিছু সৃষ্টি করিয়াছি ছয় দিনে; আমাকে কোন ক্লান্তি স্পর্শ করে নাই।৩৯। অতএব উহারা যাহা বলে তাহাতে তুমি ধৈর্য ধারণ কর এবং তোমরা প্রতিপালকের সপ্রশংস পবিত্রতা ও মহিমা ঘোষণা কর সূর্যোদয়ের পূর্বে ও সূর্যাস্তের পূর্বে,


assets/data_files/web

প্রতিভাবান ব্যক্তিরাই ধৈর্য ধারণ করতে পারে। -ই. সি. স্টেডম্যান।


যে শিক্ষিত ব্যক্তিকে সম্মান করে, সে আমাকে সম্মান করে।


ফটো গ্যালারি
গ্রাম আদালতের মামলার অগ্রগতি বিষয়ে ভিডিও কনফারেন্স
গ্রাম আদালতে সঠিক বিচারের মাধ্যমে থানা ও কোর্টের মামলার সংখ্যা কমিয়ে আনতে হবে
জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান
মিজানুর রহমান
২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


গ্রাম আদালতের মামলার অগ্রগতি বিষয়ে চাঁদপুরের ৫টি উপজেলার ৪৪টি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, সচিব ও গ্রাম আদালত সহকারীদের সাথে ভিডিও কনফারেন্স করেছেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান। গতকাল ২০ ফেব্রুয়ারি বুধবার বিকেলে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে 'গ্রাম আদালতের অগ্রগতি ও চ্যালেঞ্জ' বিষয়ক এ ভিডিও কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় সরকার বিভাগের বাংলাদেশ গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পের অধীন জেলা প্রশাসন, চাঁদপুর এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে মতলব উত্তর, মতলব দক্ষিণ, শাহরাস্তি, কচুয়া ও ফরিদগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাগণ সরাসরি জেলা প্রশাসকের সাথে ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত হন এবং গ্রাম আদালতকে কীভাবে আরো সক্রিয় করে মানুষের আস্থা বাড়ানো যায় এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান ও সচিবগণ তাদের মতামত তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন।



এ উপলক্ষে আয়োজিত কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান ও বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান। সভাপ্রধানের বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সহকারী পরিচালক ও চাঁদপুর ডিস্ট্রিক্ট ফ্যাসিলিটেটর নিকোলাস বিশ্বাস। উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নারায়ণ চন্দ্র পাল, নুশরাত শারমিন ও মোঃ মোরশেদুল ইসলাম।



চেয়ারম্যানদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মতলব উত্তর উপজেলার সাদুল্লাহপুর ইউপি চেয়ারম্যান লোকমান আহমেদ, মতলব দঃ উপজেলার ৩নং খাদেরগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ মন্জুর হোসেন রিপন মীর, নারায়ণপুর ইউপি চেয়ারম্যান জহিরুল মোস্তফা তালুকদার প্রমুখ। এছাড়া অন্যান্য চেয়ারম্যান, সচিব ও গ্রাম আদালতের সহকারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।



জেলা প্রশাসক তাঁর বক্তব্যে বলেন, মানুষের আস্থার সঙ্কট দূর করে সঠিক বিচারের মাধ্যমে গ্রাম আদালতের কার্যক্রমকে আরো এগিয়ে নিতে হবে। এলাকাকে মাদকমুক্ত এবং কোর্টে মামলা কমিয়ে আনতে হবে। মানুষ বিচারের জন্যে থানায় বা কোর্টে যায়। আপনারা যারা জনপ্রতিনিধি আছেন, মানুষ আপনাদের কাছে আসবে। গ্রামের সাধারণ মীমাংসার বিষয়গুলো গ্রাম আদালত বড় ভূমিকা রাখতে পারে।



তিনি গ্রাম আদালতকে সর্বোচ্চ ব্যবহারে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করতে ইউএনও, ইউপি চেয়ারম্যান, সচিব, ইউপি সদস্যগণ এবং গ্রামের গণ্যমাণ্য ব্যক্তিদের অনুরোধ করেন।



তিনি বলেন, বর্তমান সরকার রাষ্ট্র পরিচালনায় তৃণমূল পর্যায়েও ডিজিটাল সিস্টেম চালু করেছে। আমাদেরকে এ সিস্টেমে আসতে হবে। সরকারের গৃহীত কার্যক্রমকে বাস্তবায়ন করতে হলে ইউনিয়ন পরিষদ হবে এর মূল কেন্দ্রবিন্দু।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৫৭০২৪
পুরোন সংখ্যা