চাঁদপুর, রোববার ২৪ মার্চ ২০১৯, ১০ চৈত্র ১৪২৫, ১৬ রজব ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৭-সূরা মুহাম্মাদ

৩৮ আয়াত, ৪ রুকু, মাদানী

৩৮। দেখ, তোমরাই তো তাহারা যাহাদিগকে আল্লাহর পথে ব্যয় করিতে বলা হইতেছে অথচ তোমাদের অনেকে কৃপণতা করিতেছে। যাহারা কার্পণ্য করে তাহারা তো কার্পণ্য করে নিজেদেরই প্রতি। আল্লাহ অভাবমুক্ত এবং তোমরা অভাবগ্রস্ত। যদি তোমরা বিমুখ হও, তিনি অন্য জাতিকে তোমাদের স্থলবর্তী করিবেন, তাহারা তোমাদের মত হইবে না।


assets/data_files/web

অপ্রয়োজনে প্রকৃতি কিছুই সৃষ্টি করে না। -শংকর।


 


 


কবর এবং গোসলখানা ব্যতীত সমগ্র দুনিয়াই নামাজের স্থান।


 


 


 


 


ফটো গ্যালারি
একাদশ পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতা
অগ্রযাত্রা থেকে জয়যাত্রায় মাধ্যমিকের সেরা আটটি দল
স্টাফ রিপোর্টার
২৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


শেষ হলো একাদশ পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতার অগ্রযাত্রা পর্ব। অগ্রযাত্রার এগিয়ে যাবার দিনে নম্বরের ভিত্তিতে এগিয়ে গেলো সেরা আটটি দল। মাধ্যমিক পর্যায়ে আট উপজেলার মধ্যে বিদায় নিয়েছে চার উপজেলার সকল প্রতিষ্ঠান। জয়যাত্রা পর্বে পা রেখেছে চার উপজেলার সেরা ৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে চাঁদপুর সদরের ৪টি, ফরিদগঞ্জের ২টি এবং হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তির রয়েছে ১টি করে বিতর্ক দল।



গতকাল ২৩ মার্চ শনিবার সকাল ৯টায় চাঁদপুর রোটারী ভবনের ডাঃ নূরুর রহমান কনফারেন্স হলে আয়োজিত হয় একাদশ পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতার মাধ্যমিক পর্যায়ের অগ্রযাত্রা পর্ব। ১০টি বিতর্ক দলের ৫টি বিতর্কই ছিলো উপভোগ্য, তথ্য ও যুক্তিনির্ভর। চাঁদপুরের বিতর্কের মান পরীক্ষা করার জন্যে এখন আর কোনো টুর্নামেন্টের ফাইনাল পর্যন্ত অপেক্ষা করার প্রয়োজন নেই। টুর্নামেন্টের প্রতিটি পর্বই যেন এক একটি ফাইনাল! বিতার্কিকদের শাণিত বক্তব্য, শ্রুতিমধুর কণ্ঠস্বর তা প্রমাণ করে।



৫টি বিতর্ক শেষে দুপুর সাড়ে ১২টায় শুরু হয় ফলাফল ঘোষণা পূর্ববর্তী আলোচনা অনুষ্ঠান। চাঁদপুর বিতর্ক একাডেমির উপাধ্যক্ষ রাসেল হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক ফাউন্ডেশনের সভাপতি ও চাঁদপুর বিতর্ক একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা কাজী শাহাদাত। অনুষ্ঠানে বিশেষ আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিকেডিএফ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ও চাঁদপুর বিতর্ক একাডেমির প্রশিক্ষক সামীম আহমেদ খান এবং সিকেডিএফ চাঁদপুর সদর উপজেলা কমিটির সভাপতি মোঃ মাসুদুর রহমান।



প্রধান আলোচক তাঁর আলোচনায় বলেন, পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতা এখন ১১ বছরের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন একটি প্রতিযোগিতা। এ প্রতিযোগিতা থেকে বিতার্কিকদের শুধু বিতর্ক শিখলেই চলবে না তাদেরকে শিখতে হবে শৃঙ্খলা। আমি বিশ্বাস করি গত ১১ বছরে এ বিতর্ক এমন পর্যায়ে পেঁৗছেছে যে, আমি না থাকলেও এখন শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে এ প্রতিযোগিতা চলবে। তিনি বলেন, অচিরেই দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একজন বিতর্ক বিষয়ক শিক্ষক নিয়োগে পদ সৃষ্টির জন্যে মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীকে স্মারকলিপি প্রদান করা হবে। সেই সাথে বিতর্ক শিল্পের প্রসারের জন্যে আগামী বছর থেকে যে কোনো একটি দিনকে 'বিতর্ক দিবস' হিসেবে ঘোষণা করে দিনটি উদ্যাপন করা হবে।



আলোচনা সভা শেষে দুপুর ১টায় অগ্রযাত্রা পর্বের বিতর্কের ফলাফল ঘোষণা করেন চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক ফাউন্ডেশনের সাবেক সফল সাধারণ সম্পাদক শ্রী রাজন চন্দ্র দে। ফলাফলে দিনের প্রথম বিতর্কে রাজারগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়কে ২৪ নম্বরের ব্যবধানে হারিয়ে সহজ জয় পায় হামানকর্দী পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়। এ পর্বে ব্যক্তিগত ৭৭.৫ নম্বর পেয়ে শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয় বিজয়ী দলের দলপ্রধান নূসরাত রুবাইয়া (অর্চি)। দিনের ২য় বিতর্কে হাজীগঞ্জ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়কে ২৪ নম্বরের ব্যবধানে হারিয়ে সহজ জয় পায় বাবুরহাট হাই স্কুল এন্ড কলেজ। এ পর্বে ব্যক্তিগত ৮৪ নম্বর পেয়ে শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয় বিজয়ী দলের দলপ্রধান সানজিদা আক্তার নীলা। দিনের ৩য় বিতর্কে শোল্লা স্কুল এন্ড কলেজকে ১৭ নম্বরে হারিয়ে জয়লাভ করে ফরিদগঞ্জ বালিথুবা আব্দুল হামিদ উচ্চ বিদ্যালয়। এ পর্বে ব্যক্তিগত ৭৭.৫ নম্বর পেয়ে শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয় বিজয়ী দলের দলপ্রধান মারিয়া আক্তার মিম। দিনের ৪র্থ বিতর্কে পুরাণবাজার মধুসূদন উচ্চ বিদ্যালয়কে ৫৩.৫ পয়েন্টে হারিয়ে সহজ জয় পায় মাতৃপীঠ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। এ পর্বেও ব্যক্তিগত ৮১ নম্বর পেয়ে শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয় বিজয়ী দলের দলপ্রধান সালমা আক্তার নিপা। দিনের শেষ বিতর্কে চাঁদপুর সদরের হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়কে ৭.৫ পয়েন্টে হারিয়ে জয়ী হয় শাহরাস্তি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়। এ পর্বে ব্যক্তিগত ৭৮ নম্বর পেয়ে শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয় বিজয়ী দলের দলপ্রধান ফাইজা আফরোজ প্রমি।



পরাজিত হলেও সর্বোচ্চ নম্বরের ভিত্তিতে জয়যাত্রা (কোয়ার্টার ফাইনাল) পর্বে যাওয়ার যোগ্যতা অর্জন করে তিনটি দল। দলগুলোর মধ্যে রয়েছে ২৩৭.৫ নম্বর পেয়ে হাসান আলী সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, ২২৫.৫ নম্বর পেয়ে হাজীগঞ্জ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এবং ২১০.৫ নম্বর পেয়ে ফরিদগঞ্জের শোল্লা স্কুল এন্ড কলেজ। কম নম্বর পেয়ে পরাজিত হওয়ায় অগ্রযাত্রা থেকে বাদ পড়ে পুরাণবাজার মধুসূদন উচ্চ বিদ্যালয় ও রাজারগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়। তবে ৭৮টি মাধ্যমিক পর্যায়ের বিতর্ক দলের মধ্যে রাজারগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় নবম এবং মধুসূদন উচ্চ বিদ্যালয় ১০ স্থান অর্জনের স্বীকৃতি পায়।



অগ্রযাত্রা পর্বে বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন চাঁদপুর বিতর্ক একাডেমির অধ্যক্ষ ডাঃ পীযূষ কান্তি বড়ুয়া, চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠের বার্তা সম্পাদক এএইচএম আহসান উল্যাহ, চাঁদপুর বিতর্ক একাডেমির প্রশিক্ষক সামীম আহমেদ খান, পুরাণবাজার ডিগ্রি কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান হাবিবুর রহমান পাটওয়ারী, চাঁদপুর সেন্ট্রাল ইনার হুইল ক্লাবের সাবেক সভাপতি মুক্তা পীযূষ, সিকেডিএফ চাঁদপুর সদর উপজেলা কমিটির সভাপতি মোঃ মাসুদুর রহমান এবং চাঁদপুর বিতর্ক একাডেমির উপাধ্যক্ষ রাসেল হাসান। মডারেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সিকেডিএফ চাঁদপুর সদর উপজেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক জায়েদুর রহমান নিরব এবং কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক কাজী আজিজুল হাকিম নাহিন। পুরো প্রতিযোগিতার সমন্বয়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সিকেডিএফ-এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক শ্রী রাজন চন্দ্র দে। আগামী ৩১ মার্চ মকাল ৯টায় চাঁদপুর রোটারী ভবন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে মাধ্যমিকের জয়যাত্রা পর্ব।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৭৪৫৯০
পুরোন সংখ্যা