চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ৫ বৈশাখ ১৪২৬, ১১ শাবান ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৮-সূরা ফাত্হ্

২৯ আয়াত, ৪ রুকু, মাদানী

২৮। তিনিই তাঁহার রাসূলকে পথনির্দেশ ও সত্য দীনসহ প্রেরণ করিয়াছেন, অপর সমস্ত দীনের উপর ইহাকে জয়যুক্ত করিবার জন্য। আর সাক্ষী হিসাবে আল্লাহই যথেষ্ট।



 


বুদ্ধি যেখানে প্রবল, লালসা সেখানে দুর্বল।                 


-প্লেটো।


ডান হাত যা দান করে বাম হাত তা জানতে পারে না-এমনদানই সর্বোৎকৃষ্ট।







 


ফটো গ্যালারি
লঞ্চ চলাচল শুরু
১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


নৌযান শ্রমিকদের একদিনের কর্মবিরতি শেষে সারাদেশের ন্যায় বুধবার সকাল থেকে চাঁদপুর-ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ বরিশালের যাত্রীবাহী লঞ্চগুলো চলাচল শুরু করেছে। গতকাল সকাল থেকে সিডিউল অনুযায়ী চাঁদপুর-ঢাকাগামী লঞ্চগুলো পর্যায়ক্রমে ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানের উদ্দেশ্যে চাঁদপুর লঞ্চঘাট ত্যাগ করে।



এর আগে মঙ্গলবার সকাল থেকে নৌযান শ্রমিকদের ১১ দফা দাবি নিয়ে চাঁদপুর লঞ্চঘাট থেকে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, বরিশাল ও দক্ষিণাঞ্চলগামী সকল নৌযান চলাচল বন্ধ ছিলো। এতে করে লক্ষ্মীপুর, রায়পুর, নোয়াখালী, শরীয়তপুর, ফরিদপুর, লাকসামসহ কয়েকটি জেলার হাজার-হাজার মানুষ নৌপথে যাতায়াত করতে না পেরে চরম দুর্ভোগে পড়েছে।



বিগত দিনে দেখা গেছে, চাঁদপুর জেলার ৮টি উপজেলার সোয়া কোটি মানুষ ছাড়াও পার্শ্ববর্তী ৬/৭টি জেলার হাজার-হাজার মানুষ যানজট থেকে রক্ষা পেতে নিরাপদে ও আরামদায়ক ভ্রমণ হিসেবে চাঁদপুর নৌপথ দিয়ে যাতায়াত করে আসছে। ফলে হঠাৎ করে নৌযান চলাচল বন্ধ হওয়ায় হাজার হাজার লঞ্চ যাত্রীকে পড়তে হয় মারাত্মক দুর্ভোগ ও চরম হতাশার মধ্যে।



বুধবার লঞ্চ চলাচল স্বাভাবিক হলে যাত্রীরা জানান, নৌযান শ্রমিকদের একদিনের কর্মবিরতিতে আমাদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। লঞ্চ চলাচল স্বাভাবিক হওয়ায় আমাদের মধ্যে যে কেমন স্বস্তি ফিরে এসেছে তা ভাষায় প্রকাশ করা যাচ্ছে না। আমরা চাই দ্রুত এই বিষয়ে সরকারিভাবে একটি স্থায়ী সমাধান হোক।



চাঁদপুর বন্দর ও পরিবহন কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক জানিয়েছেন, নৌযান শ্রমিকদের বিভিন্ন দাবি নিয়ে মঙ্গলবার ঢাকায় শ্রমমন্ত্রীসহ উচ্চ পর্যায়ে শ্রমিকদের সাথে বৈঠক হয়েছে। বৈঠকের সিদ্ধান্তের আলোকে বুধবার সকাল থেকে চাঁদপুর হতে সকল ধরনের লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে। তবে চাঁদপুর একটি গুরুত্বপূর্ণ নৌরূট। এ রূটটি বন্ধ থাকলে নৌ-যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৯৯৯৮২২
পুরোন সংখ্যা