চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ৫ বৈশাখ ১৪২৬, ১১ শাবান ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৮-সূরা ফাত্হ্

২৯ আয়াত, ৪ রুকু, মাদানী

২৮। তিনিই তাঁহার রাসূলকে পথনির্দেশ ও সত্য দীনসহ প্রেরণ করিয়াছেন, অপর সমস্ত দীনের উপর ইহাকে জয়যুক্ত করিবার জন্য। আর সাক্ষী হিসাবে আল্লাহই যথেষ্ট।



 


বুদ্ধি যেখানে প্রবল, লালসা সেখানে দুর্বল।                 


-প্লেটো।


ডান হাত যা দান করে বাম হাত তা জানতে পারে না-এমনদানই সর্বোৎকৃষ্ট।







 


ফটো গ্যালারি
মতলব উত্তর-২ উপকেন্দ্রের বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু
শতভাগে গ্রাহক সংখ্যা ৯০ হাজার কোনো সমস্যা না হলে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পাবে গ্রাহক
মাহবুব আলম লাভলু
১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


মতলব উত্তর উপজেলার সুজাতপুরে নবনির্মিত মতলব উত্তর উপজেলা-২ বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়েছে। গত ৩১ মার্চ এ উপকেন্দ্রটি চালু করা হয়। মতলব উত্তর উপজেলা-১-এর সাথে মতলব উত্তর উপজেলা-২ বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রটি বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করায় এ উপজেলায় বিদ্যুৎ ঘাটতি আর থাকছে না। সংশ্লিষ্ট বিভাগ জানিয়েছে, কোনো প্রকার সমস্যা না হলে গ্রাহকরা নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পাবে।



চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২-এর মতলব উত্তর জোনাল অফিসসূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের মার্চে ১০ এমভিএ ইনডোর মতলব উত্তর উপজেলা-২ বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রটি নির্মাণের কার্যক্রম শুরু হয়। এ উপকেন্দ্রে ৫টি ফিডারের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে। বর্তমানে ২টি ফিডার চালু করা হয়েছে। বাকি ৩টি ফিডার শীঘ্রই চালু করা হবে। এ উপকেন্দ্রে ৫টি ফিডারের মাধ্যমে ৩৫ হাজার গ্রাহকের বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে।



মতলব উত্তর উপজেলায় গ্রাহক সংখ্যা প্রায় ৭৫ হাজার। শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় আসলে গ্রাহক সংখ্যা হবে প্রায় ৯০ হাজার। এ গ্রাহকদের নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ দিতে বিদ্যুতের প্রয়োজন ১৪ মেগাওয়াট। মতলব উত্তর উপজেলা -১ ও মতলব উত্তর উপজেলা-২ বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র দুটির ক্ষমতা ২৫ এমভিএ। ফলে বর্তমানে এ উপজেলায় চাহিদা মাফিক বিদ্যুৎ পাওয়া যাচ্ছে।



মতলব উত্তর জোনাল অফিস জানায়, গত ১ বছরে উন্নয়নমূলক কাজ হিসেবে তারা মেঘনা ধনাগোদা নদীতে 'ডাবল সার্কিট' সম্পন্ন রিভার ক্রোসিং টাওয়ার নির্মাণপূর্বক ৩৩ কেভি লাইন চালু করেছে। চাঁদপুর টু মতলব উত্তর পাঁচানী ৩৩/১১ কেভি ১৫ এমভিএ উপকেন্দ্রের ৩৩ কেভি লাইনের গাজীপুর থেকে পাঁচানী পর্যন্ত প্রায় ১১ কিঃমিঃ লাইন জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ থাকায় লাইনের কিছু খুঁটি, ফিটিংস, জাম্পারিং ইনসুলেটর এবং ১ নট তারকে ৪ নটে পরিবর্তন করে ব্যবহারের উপযোগী করা হয়েছে। মতলব উত্তরের গাজীপুর থেকে সুজাতপুর ১০ কিঃমি ৩৩ কেভি নতুন লাইন নির্মাণ করে সুজাতপুরস্থ মতলব উত্তর-২ ১০ এমভিএ ইনডোর উপকেন্দ্রটি চালু করা হয়েছে। ১ বছরে ওভার ৩৮০টি লোডেড ট্রান্সফরমার পরিবর্তন করা হয়েছে। শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় গত ১ বছরে প্রায় ১৪০ কিঃ মিঃ লাইন নির্মাণ করে ১৬ হাজার গ্রাহককে নতুন সংযোগ দেয়া হয়েছে। মতলব উত্তরের গাজীপুর থেকে পাঁচানী উপকেন্দ্রের ৩৩ কেভি লাইনটি ঝুঁকিপূর্ণ থাকায় টাংকি ভিত্তিতে প্রায় ১০ কিঃমিঃ লাইন নির্মাণ কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। পাঁচানী উপকেন্দ্রের ১নং ফিডারের লোড ৪ মেগাওয়াট এবং লাইনের দৈর্ঘ্য বেশি হওয়ায় ইতিমধ্যে ফিডারটি বাইপারেশনের জন্যে লাইন নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। কিছুদিনের মধ্যে ১১ কেভি এসিআর স্থাপনপূর্বক ফিডারটি বাইরেশন করা হবে। পাঁচানী ১৫ এমভিএ উপকেন্দ্রের ক্রস-আম কাঠের তৈরি এবং দীর্ঘদিন ব্যবহারের কারণে ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় স্টিলের ক্রস আম দ্বারা পরিবর্তন করা হয়েছে।



গ্রাহকদের অভিযোগ, এ উপজেলায় বিদ্যুতের লোডশেডিং হয়। ঝড় ও বৃষ্টি হলেই বিদ্যুৎ থাকে না। শিল্প মিটারের গ্রাহক সাংবাদিক শামসুজ্জামান ডলার জানান, নতুন ১০ এমভিএ উপকেন্দ্রটি চালু হওয়ায় বিদ্যুতের লোডশেডিং কমে আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। গত কয়েকদিনে বিদ্যুতের লোডশেডিং কমে আসছে।



চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২-এর মতলব উত্তর জোনাল অফিস কর্মকর্তারা জানান, বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে বিদ্যুৎ সরবরাহ সংযোগ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এমন অবস্থায় দীর্ঘ সময় জুড়ে সংযোগ পুনঃস্থাপন করা সম্ভব হয় না। কারিগরি সমস্যা ও ক্ষতিগ্রস্ত লাইন মেরামতের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। গত এক বছরে যান্ত্রিক ও লাইনের সংস্কার অনেক কাজ হয়েছে ও চলমান আছে।



মতলব উত্তর জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মোঃ নূরুল আলম ভূঁইয়া বলেন, নতুন সাব স্টেশনটি পুরোপুরি চালু হলে গ্রাহকদের কাঙ্ক্ষিত মানের সেবা দিতে আমরা সক্ষম হবো। কোনো প্রকার সমস্যা না হলে গ্রাহকরা নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পাবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগ-ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ' কর্মসূচির আওতায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের মাননীয় চেয়ারম্যান ও চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২-এর জেনারেল ম্যানেজারের সুস্পষ্ট নির্দেশনায় এবং চাঁদপুর নির্বাচনী এলাকা-২-এর মাননীয় সংসদ সদস্য মহোদয়ের আন্তরিক সহযোগিতায় উন্নয়নমূলক কাজগুলো বাস্তবাহিত হচ্ছে।



উপজেলা চেয়ারম্যান মনজুর আহমদ বলেন, উপকেন্দ্রটি চালু হওয়ায় বিদ্যুতের ঘাটতি থাকবে না। জনগণের ব্যবসা-বাণিজ্য, চিকিৎসা, শিক্ষা, কৃষিসহ বিভিন্ন খাত এবং আর্থ-সামাজিক খাতে উন্নয়ন ঘটবে। স্থানীয়দের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে উপকেন্দ্রটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১০০৪৮৬৮
পুরোন সংখ্যা