চাঁদপুর, মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০ বৈশাখ ১৪২৬, ১৬ শাবান ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৯-সূরা হুজুরাত


১৮ আয়াত, ২ রুকু, 'মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৪। যাহারা ঘরের বাহির হইতে তোমাকে উচ্চস্বরে ডাকে, তাহাদের অধিকাংশই নির্বোধ,


৫। তুমি বাহির হইয়া উহাদের নিকট আসা পর্যন্ত যদি উহারা ধৈর্য ধারণ করিত, তাহাই উহাদের জন্য উত্তম হইত। আল্লাহ ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু।


 


 


কোনো বড় কাজই উৎসাহ ছাড়া লাভ হয়নি। -ইমারসন।


 


 


 


নিঃসন্দেহে তিন প্রকার লোকের দোয়া কবুল হয়-পিতার দোয়া, মোসাফিরের দোয়া এবং অত্যাচারিত ব্যক্তির দোয়া।


 


 


ফটো গ্যালারি
নারায়ণপুরে শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টায় অভিযুক্ত আটক
রেদওয়ান আহমেদ জাকির
২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+

মতলব দক্ষিণ উপজেলায় নারায়ণপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামে ৮ বছরের এক শিশুকে কৌশলে তার ঘরে ধর্ষণের চেষ্টা করতে গিয়ে জনতার হাতে ধরা পড়ে আলী আকবর (৫৫)। পরে স্থানীয় জনতা তাকে পুলিশে সোপর্দ করে। গত ২১ এপ্রিল রোববার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী শিশুটি। অভিযুক্ত আলী আকবর শিশুটির পাশের বাড়ির বাসিন্দা। উচ্ছৃঙ্খল স্বভাবের আলী আকবর এলাকায় দিনমজুরের (নারকেল গাছ পরিষ্কার) কাজ করে। ওই দিন বিকেলে ওই শিশু তার বসতঘরের সামনের উঠোনে খেলছিলো। এ সময় শিশুটির বাবা-মা বাড়িতে ছিলো না। এই সুযোগে আলী আকবর কৌশলে শিশুটিকে তার ঘরে নিয়ে যায়। এরপর সে শিশুটিকে জোর করে ধর্ষণের চেষ্টা করলে শিশুটি চিৎকার শুরু করে। শিশুটির চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে এবং আলী আকবরকে হাতেনাতে ধরে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

শিশুটির পিতা মোঃ সালাউদ্দিন অভিযোগ করেন, ওই ব্যক্তি (আলী আকবর) খারাপ প্রকৃতির লোক হিসেবে এলাকায় পরিচিত। সে এর আগেও একাধিক নারী ও শিশুর শ্লীলতাহানি করেছে। এ ব্যাপারে এলাকায় একাধিক সালিস-বৈঠকে তাকে সতর্ক করে দেয়া হয়। এরপরও আলী আকবর খারাপ পথ থেকে সরে আসেনি। এবারের ঘটনায় তাদের পরিবারের মানসম্মান নষ্ট হয়েছে। তারা অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে থানায় মামলা করবেন।

অভিযোগের ব্যাপারে আলী আকবর বলেন, তার বড় ভুল হয়ে গেছে। ভবিষ্যতে আর এমন কাজ করবেন না।

মতলব দক্ষিণ থানার ওসি একেএমএস ইকবাল বলেন, ঘটনাটির তদন্ত চলছে। সত্যতা পাওয়া গেলে ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ঘটনায় এখনো মামলা হয়নি। বিষয়টি মীমাংসার জন্য স্থানীয়ভাবে চেষ্টা চলছে।

এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৬৭৭১
পুরোন সংখ্যা