চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৭ রমজান ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫০-সূরা কাফ্

৪৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৩৮। আমি আকাশম-লী ও পৃথিবী এবং উহাদের অন্তর্বর্তী সমস্ত কিছু সৃষ্টি করিয়াছি ছয় দিনে; আমাকে কোন ক্লান্তি স্পর্শ করে নাই।৩৯। অতএব উহারা যাহা বলে তাহাতে তুমি ধৈর্য ধারণ কর এবং তোমরা প্রতিপালকের সপ্রশংস পবিত্রতা ও মহিমা ঘোষণা কর সূর্যোদয়ের পূর্বে ও সূর্যাস্তের পূর্বে,


assets/data_files/web

যাকে মান্য করা যায় তার কাছে নত হও। -টেনিসন।


 


 


যারা ধনী কিংবা সবকালয়, তাদের ভিক্ষা করা অনুচিত।


 


 


ফটো গ্যালারি
ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের প্রস্ততি সভা
ঈদে ঘরমুখী মানুষের হয়রানি রুখতে কাজ করবে প্রশাসন
মুহাম্মদ আবদুর রহমান গাজী
২৩ মে, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


গতকাল ২২ মে বুধবার সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদ্যাপনের লক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামানের সভাপ্রধানে ২০১৮ সালের ঈদুল ফিতরের প্রস্তুতিমূলক সভার কার্যবিবরণী পাঠ করা হয়।



সভায় বিগত বছরের সিদ্ধান্তসমূহ বলবৎ রেখে আরো নতুন কিছু করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সিদ্ধান্তসমূহ হচ্ছে : ঈদুল ফিতর উপলক্ষে লঞ্চঘাটে যাত্রীসেবা নির্বিঘ্ন রাখতে হবে। যাত্রীরা যদি নিজ মালামাল নিজেই বহন করে তাহলে ঘাটের কোনো কুলি বাধা প্রদান করতে পারবে না। কুলিদের নির্দিষ্ট পোশাক থাকতে হবে। আর যদি কোনো কুলি যাত্রীদের মালামাল নিয়ে অযথা হয়রানি করে বা নির্দিষ্ট পোশাক না পরে কাজ করে তাহলে তাকে মোবাইল কোর্টের আওতায় আনা হবে। এছাড়া লঞ্চ সনদধারী মাস্টার দিয়ে চালাতে হবে। সকল স্টাফের নির্দিষ্ট পোশাক পরিধান করে ডিউটি করতে হবে। স্ব-স্ব মালিক এই পোশাকের ব্যবস্থা করবেন। আগামী ৫ দিনের মধ্যে এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে হবে। অন্যথায় লঞ্চে নির্দিষ্ট পোশাকবিহীন ডিউটি করলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। নদী ও সড়কে চলাচলকারী সকল যানবাহনের ভাড়া কোনো মতেই বৃদ্ধি করা যাবে না। বর্তমানে যে ভাড়া রয়েছে তা-ই বলবৎ রাখতে হবে। কোনো নৌযানে নৌকা দিয়ে যাত্রী ওঠানামা করানো যাবে না। ঈদ উপলক্ষে চাঁদপুর-বরিশাল নৌ-রুটে লঞ্চযাত্রীদের জন্যে থাকবে কড়া নজরদারি। কোনোভাবেই অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে লঞ্চ-স্টিমার ও ট্রেন চলাচল করতে পারবে না। যদি কোনো নৌযানে অতিরিক্ত যাত্রী উঠে যায় তাহলে ওই নৌযান ঘাটে থামিয়ে রাখতে হবে। এ নির্দেশনা না মানলে ওই লঞ্চের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়া বাস টার্মিনাল, লঞ্চঘাট, রেলস্টেশন ও স্টীমার ঘাট এলাকায় ঘরমুখো মানুষ যাতে চুরি, ছিনতাই, পকেটমার ও মলম পার্টির খপ্পর থেকে রক্ষা পেতে পারে সেজন্যে পোশাকধারী পুলিশের পাশাপাশি সাদা-পোশাকে ডিবি পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবে। আজ থেকে মার্কেটসহ সর্বত্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার করা হবে। ঈদের ৩ দিন আগ থেকে ঈদের পরের দিন পর্যন্ত শহরের কোথাও এমনকি পাড়া-মহল্লার মোড়ে বা দোকানে অথবা বাসার ছাদেও বিকট আওয়াজে বাদ্যযন্ত্র বাজানো যাবে না। এছাড়া শহরের বাইরে থেকে গাড়ি ভাড়া করে উঠতি বয়সের যুবকরা সাউন্ড বঙ্ বাজিয়ে বড়স্টেশন মোলহেডে যাতে যেতে না পারে সেজন্যে এসব স্থানে চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশকে কড়া নজরদারি রাখতে হবে। বড়স্টেশন মোলহেড এলাকায় নদীতে যাতে কেউ আনন্দ ভ্রমণের নামে নৌযানে কোনো ধরনের উন্মাদনা করতে না পারে সেদিকে কোস্টগার্ড নজরদারি রাখবে। সভায় বখাটে ইভটিজারদের ধরে আইনগত ব্যবস্থাগ্রহণের জন্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেয়া হয়। আর বিশেষ করে ঈদকে কেন্দ্র করে চাঁদপুরের কোথাও কোনো ধরনের চাঁদাবাজি বা সাধারণ মানুষকে হয়রানি করা হলে প্রশাসনিকভাবে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানানো হয়।



সভাপ্রধান অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান বলেন, লঞ্চ, ট্রেন ও বাস টার্মিনালে মোবাইল কোর্ট বসবে। ১ জুন থেকে ৮ জুন পর্যন্ত নদীতে বালগেট চলবে না। এ বিষয়ে তদারকি করবে নৌ-পুলিশ ও বিআইডবিস্নউটিএ। ঈদে ঘরমুখী মানুষ কোনো রকম হয়রানির শিকার না হয় সেজন্যে প্রশাসন কাজ করবে। ঈদ উৎসব পালনে ফেসবুকে যে কোনো সমস্যা সমাধানের সুযোগ থাকবে। ঈদ উৎসবকে যাতে পরিপূর্ণভাবে উদ্যাপন করা যায় সেজন্যে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। তিনি লঞ্চ মালিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, লঞ্চের সময় ৯টায়, সেখানে যদি নির্ধারিত সময়ে ছাড়ার পূর্বে যাত্রী ধারণ ক্ষমতার পরিপূর্ণ হয়ে যায়, ওই লঞ্চ নির্ধারিত সময়ের পূর্বে ঘাট থেকে ছেড়ে যেতে হবে। আর ট্রেন নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ছাড়তে হবে। একজন যাত্রী ৪টি টিকেট কিনতে পারবে। কোনো অবস্থাই দালালের কারসাজি বরদাস্ত করা হবে না।



তিনি আরো বলেন, নদীপথে ছোট ছোট নৌকার মাঝিদের লাইফ জ্যাকেট ঈদের পূর্বেই বিতরণ করবো। বিআইডাবিস্নউটিএ'র উদ্দেশ্যে বলেন, নদীপথে এ যাবৎ কয়েকটি দুর্ঘটনা হয়েছে। এ ব্যাপারে আপনাদের আরো আন্তরিক হতে হবে। বারবারই লঞ্চ চলাচলে ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে। নদীতে অবৈধ বাল্কহেড বন্ধ করতে হবে। সরকারও চাচ্ছে কোনো অবস্থাতেই অবৈধ কাজ যেনো কোথাও না হয়। সুতরাং আমাদের কাজ করতে হবে। আমরা ঘুমাতে আসিনি। মানুষের কল্যাণে কাজ করতে এসেছি। আসুন আমরা যার যার অবস্থান থেকে চাঁদপুরকে নিরাপদ করি এবং ঈদের উৎসবে মাতিয়ে রাখি। আশা করি আপনাদের সহযোগিতা থাকলে কোনো সমস্যা হবে না। ঈদ উদ্যাপন আগের চেয়ে আরো ভালো হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।



অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ জাহেদ পারভেজ বলেন, ঈদুল ফিতরের টানা ৯ দিনের বন্ধে প্রত্যেকেই নিজ নিজ দায়িত্বে নিজ প্রতিষ্ঠানে সিকিউরিটি রাখতে হবে। চোর চক্রকে দমন করতে হলে আগে আমাদেরই সচেতন হতে হবে। সড়কে যানজট নিরসনে পুলিশের সাথে স্কাউট ও নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) সংগঠনের কর্মীরা থাকছে।



চাঁদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র সিদ্দিকুর রহমান ঢালী বলেন, চাঁদপুরে বাস, লঞ্চ ও ট্রেন ৩ ধরনের যানবাহন চলাচল করে। বিভিন্ন জেলার যাত্রীও এ রুটে চলাচল করে। তাদের নিরাপত্তা ও দেখভালের দায়িত্ব আমাদের চাঁদপুরবাসীর। আমরা পৌর এলাকায় যানজট নিরসনে কাজ করছি। গত বছরের মতো এ বছরও স্কাউটের স্বেচ্ছাসেবক এবং নিরাপদ সড়ক চাই সংগঠনের টিম থাকবে। পৌর এলাকার রাস্তাঘাট অনেকটা ভালো আছে। রাস্তার পাশে কোনো অবস্থাতে ফুটপাত বসতে দেয়া হবে না।



সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, চাঁদপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ মোঃ আনোয়ারুল আজিম, জেলা স্টেশন কমান্ডার লেপ্টেঃ ফয়সাল বিন রশিদ, চাঁদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র মোঃ সিদ্দিকুর রহমান ঢালী, বিআইডবিস্নউটিএর উপ-পরিচালক আব্দুর রাজ্জাক, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ খলিলুর রহমান, জেলা জাতীয় ইমাম সমিতির সভাপতি মাওঃ মোঃ সাইফুদ্দিন খন্দকার ও সাধারণ সম্পাদক মাওঃ আব্দুস সালাম, ঐতিহাসিক বেগম জামে মসজিদের খতিব মুফতি মাহবুবুর রহমান, রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার শোয়েব সিকদার, পুলিশের টিআই মোঃ নাসির উদ্দিন প্রমুখ।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৭৯৬৬১৮
পুরোন সংখ্যা