চাঁদপুর, শনিবার ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৯ রমজান ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫০-সূরা কাফ্

৪৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।



৪৩। আমিই জীবন দান করি; মৃত্যু ঘটাই এবং সকলের প্রত্যাবর্তন আমারই দিকে।

৪৪। যেদিন তাহাদের উপরস্থ জমিন বিদীর্ণ হইবে এবং মানুষ ত্রস্ত্র-ব্যস্ত হইয়া ছুটাছুটি করিবে, এই সমবেত সমাবেশকরণ আমার জন্য সহজ।

৪৫। উহারা যাহা বলে তাহা আমি জানি, তুমি উহাদের উপর জবরদস্তিকারী নহ; সুতরাং যে আমার শাস্তিকে ভয় করে তাহাকে উপদেশ দান কর কুরআনের সাহায্যে।

 


assets/data_files/web

হিংসা একটা দরজা বন্ধ করে অন্য দুটো খোলে।


-স্যামুয়েল পালমার।


 


 


নামাজ বেহেশতের চাবি এবং অজু নামাজের চাবি।


 


 


ফটো গ্যালারি
চাঁদপুর সদর উপজেলায় ঘূর্ণিঝড় 'ফণী'র আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে ঢেউটিন ত্রাণ এবং বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে ভাতার বই বিতরণ
অসহায় প্রতিবন্ধী মানুষগুলো যেনো সমাজের বোঝা না হয়, সে জন্য বঙ্গবন্ধু কন্যা তাদের সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীকে সম্প্রসারিত করেছেন
শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি, এমপি
মিজানুর রহমান
২৫ মে, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


শিক্ষামন্ত্রী ও চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ দীপু মনি বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা এ নিয়ে ষোল বছর দেশের প্রধানমন্ত্রী। ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত যখন প্রথম প্রধানমন্ত্রী হন, তখন তিনি সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীকে জোরদার করার লক্ষ্যে নানা রকমের ভাতার প্রবর্তন করেন। তখন থেকে শুরু করে ভাতার পরিমাণ যেমন বৃদ্ধি পেয়েছে, তেমনি ভাতা ভোগীর সংখ্যাও ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে। গত দশ বছরে সারাদেশে ব্যাপকভাবে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীকে সম্প্রসারিত করা হয়েছে। দেশে একদিকে যেমন অর্থনৈতিক উন্নয়ন হয়েছে, তার পাশাপাশি আমাদের যারা অস্বচ্ছল মানুষ, যারা প্রতিবন্ধী, বয়স্ক ও বিধবা; এমন অসংখ্য অসহায় মানুষ যারা আয়-রোজগার করতে পারেন না, তারা যেনো সমাজের বোঝা হিসেবে বিবেচিত না হন, সেজন্যে তাদের জন্যে বঙ্গবন্ধু কন্যা এই সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীকে ব্যাপকভাবে সম্প্রসারিত করেছেন। এরই আওতায় চাঁদপুর সদর উপজেলায় বয়স্কভাতা পাচ্ছেন ১০ হাজার ৫৯ জন, বিধবা ও স্বামী নিগৃহীত ভাতা পাচ্ছেন ২ হাজার ৭শ' ৬৭ জন এবং প্রতিবন্ধী ভাতা পাচ্ছেন ২ হাজার ৪শ' ১০ জন। সবমিলিয়ে ১০ কোটি ৮ লাখ টাকা পরিমাণ প্রতিবছর একটি উপজেলায় তারা ভাতা পাচ্ছেন।



তিনি গতকাল ২৪ মে শুক্রবার বেলা সাড়ে বারোটার সময় চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত ঘূর্ণিঝড় 'ফণী'র আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় পরিবারের মাঝে ঢেউটিন, চাল ও নগদ অর্থ বিতরণ এবং সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে ভাতার বই বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন।



সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কানিজ ফাতেমার সভাপ্রধানে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নূরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (চাঁদপুর সদর সার্কেল) জাহেদ পারভেজ চৌধুরী। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী, আবিদা সুলতানা, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক লক্ষ্মণ চন্দ্র সূত্রধর, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী আরশ্বাদ মিয়াজী, চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ নাসিম উদ্দিন, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মোঃ জামাল উদ্দিনসহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, প্রশাসনিক কর্মকর্তা, আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ এবং সুবিধাভোগী মানুষ।



ডাঃ দীপু মনি এমপি আরো বলেন, সরকারের বিভিন্ন কর্মসূচীর কারণে আজকে দেশে ক্রমান্বয়ে দারিদ্রের হার হ্রাস পেয়েছে। এখন যে মানুষটি একেবারে হতদরিদ্র তার ঘরে অন্তত দুই বেলা খাবার আছে। দেশে ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে। কাজেই শিক্ষায়, চিকিৎসা, যোগাযোগ ব্যবস্থা সকল ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নতি সাধিত হয়েছে। এই যে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এটি সম্ভব হয়েছে আল্লাহর রহমতে আমাদের সফল নেতৃত্ব বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার কারণে।



তিনি প্রধানমন্ত্রীর জন্যে সবার কাছে দোয়া কামনা করেন বলেন, দেশরত্ন শেখ হাসিনা যেন সুস্থ থাকেন, দীর্ঘজীবী হন এবং সফলভাবে নেতৃত্ব দিয়ে এই দেশকে আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন। আমাদের যে অভীষ্ট লক্ষ্য একটি সুখী সমৃদ্ধ, শান্তিময় সোনার বাংলা, সেটি যেন আমরা গড়তে পারি।



পরে প্রধান অতিথি শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি উপস্থিত ঘূর্ণিঝড় 'ফণী'র আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত ও অসহায়দের মাঝে ঢেউটিন, চাল ও নগদ অর্থ এবং ক্যান্সার ও কিডনি রোগে আক্রান্তদের চিকিৎসা, নদী ভাংতি ক্ষতিগ্রস্তদের জন্যে অর্থের চেক, বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে ভাতার বই বিতরণ করেন।



এদিন রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নের ৩৬ পরিবারকে ২ ব্যান্ডেল করে ঢেউটিন, নগদ ৬ হাজার টাকা ও ২৩৪ পরিবারের মাঝে ৩০ কেজি করে চাল দেয়া হয়। হানারচর ইউনিয়নের ২০ পরিবারকে জনপ্রতি ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত বাবদ ৬ হাজার টাকা ও ২ ব্যান্ডেল করে ঢেউটিন এবং ১০০ পরিবারকে ৩০ কেজি করে চাল দেয়া হয়। এছাড়া ১২২৭ জন বয়স্ক, ২৩৪ জন বিধবা ও ৩৭১ জন প্রতিবন্ধীর মাঝে ভাতার বই বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি। ক্যান্সার ও কিডনি রোগে আক্রান্ত ১৩জন রোগী চিকিৎসার জন্য পেয়েছে ৫০হাজার টাকা করে অর্থের চেক।



চাঁদপুর সদর উপজেলায় ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে ঢেউটিন, চাল ও নগদ অর্থ এবং বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে ভাতার বই বিতরণ করছেন স্থানীয় সাংসদ ও শিক্ষা মন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৮৮৩০
পুরোন সংখ্যা