চাঁদপুর, শুক্রবার ১২ জুলাই ২০১৯, ২৮ আষাঢ় ১৪২৬, ৮ জিলকদ ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর ডায়াবেটিক হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক, কিংবদন্তীতুল্য সমাজসেবক আলহাজ্ব ডাঃ এম এ গফুর আর বেঁচে নেই। আজ ভোর ৪টায় ঢাকার শমরিতা হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন।ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজিউন।বাদ জুমা পৌর ঈদগাহে জানাজা শেষে বাসস্ট্যান্ড গোর-এ-গরিবা কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হবে।
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৩-সূরা নাজম


৬২ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


 


assets/data_files/web

যাকে মান্য করা যায় তার কাছে নত হও। -টেনিসন।


 


 


যারা ধনী কিংবা সবকালয়, তাদের ভিক্ষা করা অনুচিত।


 


 


ফটো গ্যালারি
গুজবে বিভ্রান্ত না হতে পুলিশের মাইকিং
স্টাফ রিপোর্টার
১২ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


'পদ্মা সেতুতে মানুষের মাথা ও রক্ত লাগবে' মর্মে বিভ্রান্তিকর তথ্য কিছু ব্যক্তি বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করছে। এটি পুরোপুরি মিথ্যা ও গুজব। এমন গুজবে কান না দিতে এবং মানুষকে এ ব্যাপারে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে চাঁদপুর শহরে ব্যাপক মাইকিং করেছে চাঁদপুর জেলা পুলিশ বিভাগ। গতকাল বৃহস্পতিবার সারাদিন শহরের বিভিন্ন স্থানে চাঁদপুর সদর মডেল থানার পক্ষে মাইকিং করা হয়।



মাইকিংয়ে বলা হয়, 'পদ্মা সেতু নির্মাণ দেশের সর্ববৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্প। এ প্রকল্পের সাথে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি জড়িত। একটি মহল এ উন্নয়ন ব্যাহত করার জন্যে এ ধরনের গুজব রটিযে দেশবাসীর মধ্যে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে, যা একটি গুরুতর অপরাধ। অনেকে না বুঝেই এটি ফেসবুকে শেয়ার করে অপরাধের অংশীদার হচ্ছেন।



আরো লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, কিছু মানুষ এ গুজবের বিষয়টিকে কাজে লাগিয়ে যাদের সাথে তাদের ব্যক্তিগত শত্রুতা আছে, তাদের নাম এবং ছবি ব্যবহার করে এ গুজব ছড়ানোর জন্যে তাদেরকে দায়ী করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিচ্ছে। যারা এ বিষয়ে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর গুজব ছড়াচ্ছেন তাদের খুঁজে বের করতে এবং আইনের আওতায় আনতে ইতিমধ্যে দেশব্যাপী বাংলাদেশ পুলিশের বেশ কয়েকটি বিশেষ সাইবার গোয়েন্দা দল অনুসন্ধান তৎপরতা শুরু করেছে।



দেশে অস্থিতিশীলতা ছড়ানোর লক্ষ্যে এমন গুজব ছড়ানো একটি দ-নীয় অপরাধ। তাই এমন মিথ্যা ও গুজব না ছড়াতে এবং তাতে কান না দেয়ার জন্যে দেশবাসীকে অনুরোধ জানানো হচ্ছে।'



 



 



 



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৬৯৯১৩
পুরোন সংখ্যা