চাঁদপুর, বুধবার ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৩ জিলকদ ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৩-সূরা নাজম


৬২ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


২৭। যাহারা আখিরাতে বিশ্বাস করে না তাহারাই নারীবাচক নাম দিয়া থাকে ফিরিশ্তাদিগকে;


২৮। অথচ এই বিষয়ে উহাদের কোন জ্ঞান নাই, উহারা তো কেবল অনুমানেরই অনুসরণ করে; কিন্তু সত্যের মুকাবিলায় অনুমানের কোনই মূল্য নাই।


 


assets/data_files/web

অপ্রয়োজনে প্রকৃতি কিছুই সৃষ্টি করে না। -শংকর।


 


 


দয়া ঈমানের প্রমাণ; যার দয়া নেই তার ঈমান নেই।


 


ফটো গ্যালারি
অরক্ষিত নদীপথে যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল
মলমপার্টির দু সদস্য কারাগারে
শওকত আলী
১৭ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর-ঢাকা নৌ-পথ অরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে। এ পথে বিগত কয়েক বছর যাত্রীবাহী লঞ্চে খুন, ছিনতাই, চুরি ও মলমপার্টির সদস্যরা যাত্রীদের অজ্ঞান করে সর্বস্ব লুটে নেয়ার ঘটনা ঘটেই চলছে। এ পথের লঞ্চে বিগতদিনে যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্যে অস্ত্রধারী আনসার সদস্য থাকলেও বর্তমানে নেই। তাই এ পথে হাজার হাজার যাত্রী নিয়ে লঞ্চ চলাচল নিরাপত্তাহীনতার মধ্য দিয়েই চলছে। প্রতিদিন এ পথে চলাচলকারী প্রায় অর্ধশত লঞ্চে হাজার হাজার যাত্রীর জীবন ও মালামাল ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। লঞ্চ মালিকরা কোটি কোটি টাকা ব্যয় করে বিলাসবহুল লঞ্চের ব্যবসা করে গেলেও যাত্রী নিরাপত্তার দিকে তাদের মোটেও নজর পড়ছে না। নিরাপত্তা না থাকায় লঞ্চে খুনসহ সকলপ্রকার অপরাধমূলক কাজ হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। যার ফলে গত রোববার লঞ্চে অজ্ঞানপার্টির কবলে পড়ার ঘটনা ঘটে। এদিন সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা বরিশালের ভা-ারিয়াগামী যাত্রীবাহী লঞ্চে মলমপার্টির খপ্পরে পড়ে সান্দু শিকদার (৫৫) ও আব্দুল লতিফ গাজী (৭৫) গুরুতর আহত হন। এ ঘটনায় চাঁদপুর নৌ-থানা পুলিশ মলমপার্টি চক্রের ২ সদস্যকে আটক করে। আহত দুই যাত্রীকে চিকিৎসার জন্যে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার আটককৃত মলমপার্টির ২ সদস্যকে পুলিশ আদালতে পাঠালে আদালত তাদের জামিন না-মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়ে দেয়।



রোববার (১৪ জুলাই) দিবাগত রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টার দিকে চাঁদপুর লঞ্চঘাট থেকে আহত দুই যাত্রীকে উদ্ধার ও মলমপার্টি চক্রের সদস্য মোঃ দুলাল হাওলাদার (৪৭) ও মজিবুর রহমান (৫৫)কে আটক করে পুলিশ।



চাঁদপুর নৌ-পুলিশ জানায়, ঢাকা সদরঘাট থেকে এমভি টিপু-১২ নামক লঞ্চটি ছেড়ে রাত আনুমানিক ৮টার দিকে মুক্তারপুর ব্রীজের কাছে আসলে মলমপার্টির সদস্যরা ওই দুই যাত্রীর খাবারে নেশাজাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে এবং শরীরে মলম লাগিয়ে দেয়। এতে করে ওই দুই যাত্রী ধীরে ধীরে অসুস্থ হয়ে পড়েন। আহত যাত্রীদের মধ্যে আব্দুল লতিফ তার শরীরের অবস্থার অবনতি দেখে লঞ্চের সুপারভাইজার আবুল কাশেমকে ঘটনা জানান। তিনি তাৎক্ষণিক প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। পরে আব্দুল লতিফ সুপারভাইজারকে মলমপার্টি চক্রের ওই দুই সদস্যকে আকার ইঙ্গিতে দেখিয়ে দিলে লঞ্চ কর্তৃপক্ষ তাদের আটক করে রাখে।



চাঁদপুর নৌ-থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আবু তাহের খান জানান, লঞ্চটি চাঁদপুর ঘাটে আসার পর লঞ্চ স্টাফ ও যাত্রীদের সহায়তায় মলমপার্টির দুই সদস্যকে আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে অজ্ঞান করার কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন প্রকার ঔষধ, মলম ও দুটি মোবাইল জব্দ করা হয়। আহত যাত্রীদের চাঁদপুর লঞ্চঘাট থেকে পুলিশ সদস্যরা চিকিৎসার জন্যে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপালে নিয়ে ভর্তি করে। আটকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৪৫২০২
পুরোন সংখ্যা