চাঁদপুর, সোমবার ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৭ জিলহজ ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৪-সূরা কামার


৫৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৩৮। প্রত্যুষে বিরামহীন শাস্তি তাহাদিগকে আঘাত করিল।


৩৯। এবং আমি বলিলাম, 'আস্বাদন কর আমার শাস্তি এবং সতর্কবাণীর পরিণাম।'


৪০। আমি কুরআন সহজ করিয়া দিয়াছি উপদেশ গ্রহণের জন্য; অতএব উপদেশ গ্রহণকারী কেহ আছে কি?


 


 


 


ভালোবাসার কোনো অর্থ নেই, কোনো পরিমাপ নেই।


-সেন্ট জিরোমি


 


 


নামাজ বেহেশতের চাবি এবং অজু নামাজের চাবি।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
জাতির পিতা সোনার বাংলায় সোনার মানুষ চেয়েছিলেন বলে হতে হবে তেমন মানুষ
-----------আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী
স্টাফ রিপোর্টার
১৯ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ ওচমান গনি পাটওয়ারী বলেছেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন 'আমি আমার সোনার বাংলায় সোনার মানুষ চাই; ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ চাই। তোমরা আমায় তা দাও। আর তা যদি করতে পারি তাহলে দেখবো আমার বাংলাদেশ খুব অল্প দিনে উন্নত অনেক দেশকে ছাড়িয়ে এবং আমরা অনেক মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে।' কিন্তু বঙ্গবন্ধু তা দেখে যেতে পারেননি। আজ মুজিবের আদর্শ লালন করে যারা তার গড়া দেশটায় আছি, তারা অবশ্যই জাতির জনকের সে রকম সোনার বাংলা বিনির্মাণে আত্মনিয়োগ করতে পারি। তেমন মানুষ তৈরি করতে পারি।



জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে চাঁদপুর আহমাদিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় আয়োজিত আলোচনা সভা ও মিলাদ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিবারের অন্যতম সদস্য ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ ওচমান গনি পাটওয়ারী তার বক্তব্যে আরো বলেন, যুদ্ধ বিধ্বস্ত একটা ধংসস্তূপে দাঁড়িয়ে মহান নেতা মুজিব যখন হাত দিলেন দেশ গড়তে তখনই দেশি-বিদেশি চক্রান্ত শুরু হয়। ১৯৭৫ সালের এই দিনে জাতির জনককে সপরিবারে হত্যা করলো কুলাঙ্গাররা। সেদিনের পর থেকে টানা ২১ বছর জাতির পিতার নাম নিতেও বাধা দিয়েছিল স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি। বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের বিচারের পথ আইন করে বন্ধ করে দেয়। জননেত্রী শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে বাংলাদেশ আবার ঘুরে দাঁড়িয়েছে। বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীদের বিচার হয়েছে। উন্নত ও সমৃদ্ধ সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে যাচ্ছি আমরা।



মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে শোক সভায় আরো বক্তব্য রাখেন উপাধ্যক্ষ মাওলানা মিজানুর রহমান, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও মাদ্রাসার রাষ্ট্রবিজ্ঞানের সহকারী অধ্যাপক ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী, ইংরেজির প্রভাষক শেফাতুন্নাহার, আরবী প্রভাষক আঃ হামিদ, সহকারী শিক্ষক বিল্লাল হোসেন, আমিনুল ইসলাম বিএসসি, শিক্ষার্থী মোঃ হুসাইন প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন আরবি প্রভাষক মোঃ আবদুল্লাহ ও জহিরুল ইসলাম। মিলাদ পরিচালনা করেন সহকারী মৌলভী সিরাজুল ইসলাম।



উল্লেখ্য, গত ১ আগস্ট আহমাদিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় শোকের মাস উপলক্ষে মাসব্যাপী নানা কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়।



 



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৮২৮৭৪৬
পুরোন সংখ্যা