চাঁদপুর, মঙ্গলবার ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২৬ ভাদ্র ১৪২৬, ১০ মহররম ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৭-সূরা হাদীদ


২৯ আয়াত, ৪ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


২৭। অতঃপর আমি তাহাদের পশ্চাতে অনুগামী করিয়াছিলাম আমার রাসূলগণকে এবং অনুগামী করিয়াছিলাম মারইয়াম তনয় ঈসাকে, আর তাহাকে দিয়াছিলাম ইঞ্জীল এবং তাহার অনুসারীদের অন্তরে দিয়াছিলাম করুণা ও দয়া। আর সন্নাসবাদ-ইহা তো উহারা নিজেরাই আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের জন্য প্রত্যাবর্তন করিয়াছিল। আমি উহাদের ইহার বিধান দেই নাই; অথচ ইহাও উহারা যথাযথভাবে পালন করে নাই। উহাদের মধ্যে যাহারা ঈমান আনিয়াছিল, উহাদিগকে আমি দিয়াছিলাম পুরস্কার এবং উহাদের অধিকাংশই সত্যত্যাগী।


 


 


assets/data_files/web

অপ্রয়োজনে প্রকৃতি কিছুই সৃষ্টি করে না। -শংকর।


 


 


কবর এবং গোসলখানা ব্যতীত সমগ্র দুনিয়াই নামাজের স্থান।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
মোটরসাইকেলের চাপায় বৃদ্ধার মৃত্যু
গোলাম মোস্তফা
১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর সদর উপজেলার মৈশাদী তালতলা বাজারে বেপরোয়া গতির মোটর সাইকেল চালকের চাপায় হালিমা বেগম (৭০) নামে এক বৃদ্ধা মৃত্যুবরণ করেছেন।



জানা যায়, গত ৮ সেপ্টেম্বর রোববার তালতলা বাজারের ভূঁইয়া বাড়ির সম্মুখে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত বৃদ্ধা হালিমা বেগম বাগাদী ইউনিয়নের চাঁদপুর গ্রামের মৃত হান্নান তালুকদারের স্ত্রী।



নিহত বৃদ্ধার নাতনী শ্রাবণী আক্তার জানান, হালিমা বেগম তার এক আত্মীয়ের মৃত্যুর খবর শুনে শুক্রবার বাবুরহাটে একটি বাড়িতে যান। গত রোববার সকালে তিনি বাবুরহাট থেকে বাড়িতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। পথিমধ্যে মৈশাদীতে তার বোনের বাড়িতে বোনের সাথে দেখা করে হালিমা বেগম নিজ বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। তিনি মৈশাদী তালতলা বাজার সংলগ্ন ভূঁইয়া বাড়ির সামনে দিয়ে পায়ে হেটে যাচ্ছিলেন। এ সময় ল্যাব এইড ফার্মাসিউটিক্যালস্ কোম্পানীর মেডিকেল প্রমোশনাল অফিসার (এমপিও) মোঃ মাসুদ আলম বেপরোয়াভাবে তাঁর নিজ মোটরসাইকেলটি চালিয়ে মৈশাদী তালতলা বাজারে যাওয়ার পথে পেছন থেকে বৃদ্ধা হালিমার গায়ের উপর উঠিয়ে দেন। এতে বৃদ্ধা হালিমা রাস্তার পাশে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন। ঘটনাস্থল থেকেই হালিমার রক্তক্ষরণ শুরু হয়। পরে প্রত্যক্ষদর্শীরা তাকে উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে এনে ভর্তি করালে কর্মরত চিকিৎসক তার অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা প্রেরণ করেন। পরে তাকে ঢাকায় নেয়ার পথে মুখ দিয়ে প্রচ- রক্তক্ষরণ হলে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।



প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মোটর সাইকেল চালক অত্যন্ত বেপরোয়া গতিতে মোটর সাইকেলটি চালিয়ে যাচ্ছিলেন। এক পর্যায়ে তিনি মোটর সাইকেলটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলায় দুর্ঘটনায় পতিত হন। তারপর তিনি বৃদ্ধা হালিমা েকোনো রকমে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে পেঁৗছে দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যান। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার কোনো খোঁজ খবর পাওয়া যায়নি।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
২৫৩৬৫৪
পুরোন সংখ্যা