চাঁদপুর, বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মহররম ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • অনিবার্য কারণে শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনির আজকের চাঁদপুর সফর স্থগিত করা হয়েছে
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৫-সূরা রাহ্মান


৭৮ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৬৬। উভয় উদ্যানে আছে উচ্ছলিত দুই প্রস্রবণ।


৬৭। সুতরাং তোমরা উভয়ে তোমাদের প্রতিপালকের কোন্ অনুগ্রহ অস্বীকার করিবে?


৬৮। সেথায় রহিয়াছে ফলমূল -খর্জুর ও আনার।


 


 


 


বাণিজ্যই হলো বিভিন্ন জাতির সাম্য সংস্থাপক। -গ্লাডস্টোন।


 


 


যখন কোনো দলের ইমামতি কর, তখন তাদের নামাজকে সহজ কর।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
চাঁদপুর স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন
জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়নে এখানকার খেলোয়াড়রা কাজ করে যাবে
-------------জেলা প্রশাসক মাজেদুর রহমান খান
চৌধুরী ইয়াসিন ইকরাম
১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর স্টেডিয়ামে শুরু হয়েছে জেলা পর্যায়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব (অনূর্ধ্ব-১৭ বালক ও বালিকা) গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট। এ টুর্নামেন্টে জেলার ৮ উপজেলাসহ চাঁদপুর পৌরসভার ফুটবল দল অংশ নিয়েছে।



মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর বিকেলে টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও জেলা প্রশাসক এবং টুর্নামেন্ট কমিটির আহ্বায়ক মোঃ মাজেদুর রহমান খান। উদ্বোধনকালে তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, এই টুর্নামেন্টে খেলোয়াড়রা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে খেলবে। জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়নে এখানকার খেলোয়াড়রা কাজ করে যাবে। চাঁদপুরের ছোট্ট ছোট্ট সোনামণিরা যখনই কোনো খেলার আয়োজন হয়, তারা চমৎকারভাবে অংশগ্রহণ করে। তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা ও বর্তমান সরকারের বাস্তবায়নে সকলে মিলে কাজ করতে হবে। এই টুর্নামেন্টে বিভিন্ন উপজেলার ও পৌরসভার কিশোর কিশোরীরা অংশ নিচ্ছে। তারা এই মাঠে দর্শকদের ভালোমানের খেলাও উপহার দিয়ে যাচ্ছে। একসময় শুধু জাতির পিতার নামেই এই টুর্নামেন্ট হয়ে আসছিল, কিন্তু এ বছর বঙ্গমাতার নামও জড়িত হয়েছে। এ দুই মহান ব্যক্তির নামে সারা বাংলাদেশে এই গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টের আয়োজন করেছেন যা প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শিতা।



পুলিশ সুপার ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি এবং জেলা ক্রীড়া সংস্থার ফুটবল উপ-কমিটির সভাপতি মোঃ মাহবুবুর রহমান পিপিএম (বার)-এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল।



অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা, হাইমচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদৌসী বেগম, হাজীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বৈশাখী বড়ুয়া, মতলব দক্ষিণ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিদুল ইসলাম, মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার, ফরিদগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মমতা আফরিন, জেলা ক্রীড়া অফিসার তরিকুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, ফুটবল উপ-কমিটির সম্পাদক শাহির হোসেন পাটওয়ারী, চাঁদপুর পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র ছিদ্দিকুর রহমান ঢালী, পৌর সচিব আবুল কালাম ভূঁইয়া, মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ নাসিম উদ্দিন, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি শহীদ পাটোয়ারী, সদর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সম্পাদক তপন চন্দসহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যকরী কমিটির কর্মকর্তাসহ ক্রীড়া সংগঠক, খেলোয়াড়, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীগণ।



উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবু। উদ্বোধনী দিনে উপজেলা পর্যায়ে ৬টি খেলা অনুষ্ঠিত হয়।



খেলাগুলোর মধ্যে কচুয়া উপজেলা বালিকা দল টাইব্রেকারে ২-১ গোলে ফরিদগঞ্জ উপজেলা বালিকা দলকে পরাজিত করে। কচুয়া উপজেলা বালক দলকে ১-০ গোলে ফরিদগঞ্জ উপজেলা বালক দল, মতলব (উঃ) বালিকা দলকে ১-০ গোলে চাঁদপুর পৌরসভা বালিকা দল, মতলব (উঃ) বালক দলকে ২-০ চাঁদপুর পৌরসভা বালক দল, হাজীগঞ্জ উপজেলা বালিকা দলকে ২-০ গোলে হাইমচর উপজেলা বালিকা দল ও হাইমচর উপজেলা বালক দলকে টাইব্রেকারে ২-১ গোলে হাজীগঞ্জ উপজেলা বালক দল পরাজিত করে।



ধারাভাষ্যে ছিলেন রাসেল হাসান ও শামীম হাসান। রেফারির দায়িত্ব পালন করেন মাসুদুর রহমান মাসুদ, ওহিদুর রহমান লাবু, রানা গাজী ও মাসুম বেপারী। চিকিসৎকের দায়িত্বে ছিলেন ডাঃ একেএম মাসুদুর রহমান।



 



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৪২৬৩৭
পুরোন সংখ্যা