চাঁদপুর, শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ৩ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ সফর ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৬ সূরা-ওয়াকি'আঃ


৯৬ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৯৬। অতএব তুমি তোমার মহান প্রতিপালকের নামের পবিত্রতা ও মহিমা ঘোষণা কর।


 


 


একটা হাত পরিষ্কার করতে অন্য একটা হাতের সাহায্য দরকার।


-সিনেকা।


 


 


নামাজ যাহাকে অসৎ কাজ হইতে বিরত রাখে না তাহার নামাজ নামাজই নহে; কারণ উহা তাহাকে খোদার নিকট হইতে দূরে রাখে।


 


 


ফটো গ্যালারি
কমরেড নিরোদ বরণ অধিকারীর স্মরণসভায় মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ
সমাজে প্রতিটি মানুষ বেঁচে থাকেন তার কর্মে, ধর্মে নয়
স্টাফ রিপোর্টার
১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চিকিৎসাবিজ্ঞানে দেহদানকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি চাঁদপুর জেলা কমিটির সাবেক সভাপতি কমরেড নিরোদ বরণ অধিকারীর স্মরণে শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ১৭ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকেলে চাঁদপুর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সংগঠনের চাঁদপুর জেলা শাখা আয়োজিত শোকসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পৌর মেয়র আলহাজ নাছির উদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেন, নিরোদ বরণ অধিকারী তাঁর কর্মের মধ্য দিয়ে আজীবন বেঁচে থাকবেন আমাদের সমাজে। তাঁর কর্মময় জীবন ছিলো মানুষের কল্যাণে, সমাজের কল্যাণে। তিনি স্বাধীনতার জন্যে যুদ্ধ করেছেন। তিনি ছিলেন একজন মুক্তিযোদ্ধা। জাতি তাঁকে আজীবন স্মরণ রাখবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু আজীবন সংগ্রাম করেছেন মানুষের মুক্তির জন্যে, অসামপ্রদায়িক চেতনায় দেশ গড়ে তোলার জন্যে। কিন্তু তাঁকে খুন করা হয়েছে বাংলাদেশকে সামপ্রদায়িক রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্যে। কিন্তু খুনি জিয়া-চক্র তা করতে পারেনি। বাংলাদেশ আজ অসামপ্রদায়িক চেতনা নিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা কে হিন্দু, কে মুসলিম সেটা কোনো বড় পরিচয় হতে পারে না। বড় পরিচয় হলো আমি সমাজের জন্যে, মানুষের জন্যে কতটুকু ভালো কাজ করতে পেরেছি। সেটাই মানুষের বড় পরিচয়। তিনি মানুষ হিসেবে সকলকে সমাজের কল্যাণে কাজ করার আহ্বান জানান। তিনি আরো বলেন, সমাজে প্রতিটি মানুষ বেঁচে থাকে তার কর্মে, ধর্মে নয়।



জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মনীষা চক্রবর্তীর সভাপ্রধানে ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন মিয়াজীর পরিচালনায় অতিথিদের মাঝে বক্তব্য রাখেন বাবুরহাট হাইস্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোশারেফ হোসেন, কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা পরেশ কর, জেলা বাসদের সমন্বয়ক শাহজাহান তালুকদার, প্রফেসর রণজিত কুমার বণিক, শিক্ষক নেতা, সাবেক অধ্যক্ষ শাফায়াৎ আহমাদ ভূঁইয়া, জেলা উদীচীর সভাপতি অধ্যাপক দুলাল চন্দ্র দাস, যুব ইউনিয়ন চাঁদপুর জেলা সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সাংস্কৃতিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন, আনন্দধ্বনি সংগীত বিদ্যায়তনের অধ্যক্ষ রফিক আহমেদ মিন্টু, মুক্তিযোদ্ধা বাসুদেব মজুমদার, রঞ্জিত মজুমদার, মাধ্যমিক সহকারী শিক্ষক সমিতির জেলা সভাপতি বিল্লাল হোসেন, প্রয়াতের পুত্র সজীব অধিকারী স্বাগত, জেলা কৃষক সমিতির নেতা ডাঃ মিজানুর রহমান, জেলা ছাত্র ইউনিয়ন নেতা প্রণব ঘোষ প্রমুখ।



প্রয়াতের সংক্ষিপ্ত জীবনবৃত্তান্ত পাঠ করেন জেলা উদীচীর সাধারণ সম্পাদক জহির উদ্দিন বাবর। সংগীতশিল্পী প্রশিকা সরকারের পরিচালনায় উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করেন।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
২০৫৮১৯
পুরোন সংখ্যা