চাঁদপুর, মঙ্গলবার ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৭-সূরা হাদীদ


২৯ আয়াত, ৪ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


০৫। আকাশম-লী ও পৃথিবীর সর্বময় কর্তৃত্ব তাঁহারই এবং আল্লাহরই দিকে সমস্ত বিষয় প্রত্যাবর্তিত হইবে।


০৬। তিনিই রাত্রিকে প্রবেশ করান দিবসে এবং দিবসকে প্রবেশ করান রাত্রিতে এবং তিনি অন্তর্যামী।


 


 


 


মর্যাদা রক্ষার ব্যাপারে আমি নিজের অভিভাবক। -নিকেলাস রান্ড।


 


 


যদি মানুষের ধৈর্য থাকে তবে সে অবশ্য সৌভাগ্যশালী হয়।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
সেই পান্না ভর্তি হলেন ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে
কামরুজ্জামান টুটুল
২২ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


হাজীগঞ্জের অদম্য মেধাবী পান্না আক্তার সোমবার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস চলতি সেশনে ভর্তি হয়েছেন। এদিন পান্নাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে নিয়ে যান হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক দম্পতি বিলকিস বেগম ও বেলাল হোসেন।



এদিকে পান্নার এমবিবিএস ভর্তির মূল টাকা প্রদানসহ গত ক'দিন ধরে পুরো বিষয়টি তদারকি করছেন চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি। দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠ অনলাইন ও প্রিন্ট ভার্সনসহ কিছু অনলাইনে গত বুধবার 'অর্থাভাবে এমবিবিএস-এ ভর্তি হতে পারছে না দিনমজুরের মেয়ে পান্না' এমন সংবাদ প্রকাশিত হয়। এরপরেই বিষয়টি নজরে আসে স্থানীয় সাংসদ মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি, চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান, হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর হোসেন রনিসহ বিশিষ্ট জনের। এরপরেই পান্নার ভাগ্যের চাকা দ্রুত ঘুরতে শুরু করে।



জানা যায়, হাজীগঞ্জের বড়কুল পূর্ব ইউনিয়নের রায়চোঁ গ্রামের ইটভাটা শ্রমিক দুলাল মিয়া ও কোহিনূর দম্পতির মেয়ে পান্না। সে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে ভর্তি হয়। ডিগ্রি কলেজ কর্তৃপক্ষ পান্নার মেধা দেখে তাকে বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি করিয়ে পুরো দুটি বছর যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা দেয়। এইচএসসি পরীক্ষার পর পর পান্না একই কলেজের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের শিক্ষক বিলকিস বেগমের কুমিল্লার বাসায় থেকে কলেজের অর্থায়নে মেডিকেল কলেজ ভর্তি পরীক্ষার কোচিং করে। শেষ পর্যন্ত পান্না এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা-২০১৯-এ অংশগ্রহণ করে মেধা তালিকায় ৬৭২নং স্থান অর্জন করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে ভর্তির যোগ্যতা লাভ করে।



পান্নার বাবা দুলাল মিয়ার পক্ষে কোনোভাবেই মেয়ের এমবিবিএস ভর্তির টাকা জোগানো সম্ভব নয় বিধায় পান্নার কলেজ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বিষয়টি নজরে আসে স্থানীয় কয়েক সাংবাদিকের। এরপরেই গত বুধবার হাজীগঞ্জে কর্মরত ওই সকল সাংবাদিক বিভিন্ন অনলাইন ভার্সন ও প্রিন্ট ভার্সনে পান্নাকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করান। ওইদিন রাতে পান্নার নিজ এলাকার সাংসদ মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি মুঠোফোনে কথা বলেন পান্না ও তার বাবা-মায়ের সাথে। এ সময় এই সাংসদ পান্না ও তার বাবা মাকে আশ্বস্ত করেন পান্নার সকল দায়িত্ব তিনি নিলেন। এর পূর্বে সন্ধ্যায় পান্নার ভর্তির বিষয়ে এগিয়ে আসেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান। নগদ টাকা প্রদান করেন হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর হোসেন রনিসহ কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তি।



সোমবার বিকেলে ময়মনসিংহ থেকে মুঠোফোনে হাজীগঞ্জ কলেজের শিক্ষক বিলকিস বেগম জানান, হাজীগঞ্জ থেকে রওনার পর এমপি স্যার আমাদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন। এখানকার কলেজ অধ্যক্ষের সাথেও এমপি স্যার কথা বলেছেন। এমপি স্যারের পরামর্শে সোমবার দুপুরে পান্নাকে ভর্তি করা হয়েছে। ১০ জানুয়ারি থেকে তাদের ক্লাস শুরু হবে। ইতিমধ্যে আমরা পান্নাকে নিয়ে চাঁদপুরের পথে রওনা হয়েছি।



এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মাসুদ আহম্মেদ বলেন, গত ক'দিন ধরে আমাদের এমপি স্যার পান্নার ভর্তির বিষয়ে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছেন। সর্বশেষ এমপি স্যারের অর্থে ও সহায়তায় সোমবার পান্নাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস প্রথম বর্ষে ভর্তি করা হয়েছে।



এ বিষয়ে মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি চাঁদপুর কণ্ঠকে বলেন, মেয়েটির ভর্তির বিষয়ে ইতিমধ্যে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ অধ্যক্ষের সাথে আমার বেশ ক'বার কথা হয়েছে। তার পড়ালেখার সকল বিষয় আমি দেখছি। সেই সাথে মেয়েটির যেখানে যা কিছু দরকার তার সব আমি দেখবো।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
২০৬২০২
পুরোন সংখ্যা