চাঁদপুর, বুধবার ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৭-সূরা হাদীদ


২৯ আয়াত, ৪ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


 


০৭। তোমরা আল্লাহ ও তাহার রাসূলের প্রতি ঈমান আন এবং আল্লাহ তোমাদিগকে যাহা কিছুর উত্তরাধিকারী করিয়াছেন তাহা হইতে ব্যয় কর। তোমাদের মধ্যে যাহারা ঈমান আনে ও ব্যয় করে, তাহাদের জন্য আছে মহাপুরস্কার।


 


 


মর্যাদা রক্ষার ব্যাপারে আমি নিজের অভিভাবক। -নিকেলাস রান্ড।


 


 


যদি মানুষের ধৈর্য থাকে তবে সে অবশ্য সৌভাগ্যশালী হয়।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
শিক্ষানুরাগী ও প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা
মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান সুজন অর্থাভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারছে না
শওকত আলী
২৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


প্রাচ্যের অঙ্ফোর্ড নামে খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় পাস করেও শুধুমাত্র টাকার অভাবে ভর্তি হতে পারছে না মেধাবী শিক্ষার্থী সুজন হোসেন। সে কচুয়া উপজেলার পশ্চিম সহদেবপুর ইউনিয়নের নন্দনপুর গ্রামের দিনমজুর আব্দুল মান্নানের ছেলে।



জানা গেছে, মেধাবী ছাত্র সুজন হোসেন ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে খ-ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে মেধা তালিকায় ১৭১৮তম স্থান অর্জন করে। কিন্তু বর্তমানে অর্থাভাবে তার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ নষ্ট হতে বসেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির খরচ যোগাতে দ্বারে দ্বারে ঘুরেও টাকার ব্যবস্থা করতে পারছে না তার মা রানু বেগম ও বাবা আব্দুল মান্নান।



ছোটবেলা থেকেই শিক্ষাজীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে মেধার পরিচয় দিয়ে আসা সুজন পঞ্চম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষায় এ গ্রেড ও অষ্টম শ্রেণিতে জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়। এছাড়া দাখিল পরীক্ষায় খিলমেহের আহমাদিয়া মাদ্রাসা থেকে মানবিক বিভাগে এ গ্রেড এবং এইচএসসি পরীক্ষায় পালাখাল রোস্তম আলী ডিগ্রি কলেজ থেকে মানবিক বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়ে সাফল্যের সাথে উত্তীর্ণ হয়।



কিন্তু দিনমজুর বাবার স্বল্প আয় দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়াটা সুজনের জন্যে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সুজনের হতভাগা দরিদ্র বাবা আব্দুল মান্নান বলেন, এতদিন অনেক কষ্টে খেয়ে না খেয়ে ছেলের পড়াশুনার খরচ চালিয়ে এসেছি। কিন্তু জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে অর্থের অভাবে তার ভবিষ্যৎ নষ্ট হয়ে যাবে এ কথা ভাবতেই পারছি না। সুজনের চাচা শহীদ উল্যা ও দাদা মুক্তিযোদ্ধা আলী আক্কাছ বলেন, ছোট বেলা থেকে সুজন খুবই মেধাবী। বর্তমানে সে ঢাবিতে চান্স পেয়েছে শুনে আমরা অনেক খুশি হয়েছি। সুজন ঢাবিতে ভর্তি হয়ে দেশ ও জাতির মঙ্গল করতে পারবে বলে আশা করি।



সুজন হোসেন জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগে সে পড়তে আগ্রহী। কিন্তু টাকার অভাবে তার স্বপ্ন আজ নিঃশেষ হতে বসেছে। সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের আবেদন জানান তিনি। কেউ একটু সাহায্য করলে তিনি তার বাবা-মায়ের স্বপ্ন পূরণ করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।



 



বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য ২০ থেকে ২২ হাজার টাকা লাগবে। কিন্তু তার দিনমজুর বাবা আব্দুল মান্নানের পক্ষে এতো টাকা জোগাড় করা সম্ভব নয়। তাই প্রশাসনসহ সমাজের বিত্তবানদের প্রতি সুজনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য এগিয়ে আসার আহ্বান জানান স্থানীয়রা। তাকে কেউ সহযোগিতার হাত বাড়াতে চাইলে বিকাশ : ০১৮৪৫৩৫৪২৫৭ নাম্বার ও সুজনের মোবাইল ফোন ০১৮৫২০০৪১৭ নাম্বারে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করেছেন তার পরিবার।



 



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১০১০১৮৮
পুরোন সংখ্যা